ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ১৫:৪৯:১৫

বাইরের কেউ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে দিক বিএনপি চায় না : ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ গণতন্ত্রের জন্য রক্ত দিয়েছে, লড়াই করেছে। তারাই জেগে ওঠে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে। তার দল চায় না বাইরে (বিদেশ) থেকে কেউ এসে বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে দিক। সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) প্রয়াত অলি আহাদ ও চাষী নজরুল ইসলাম স্মরণে এক স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে গণসাংস্কৃতিক দল।মির্জা ফখরুল বলেন, বিশ্ববাসীর কাছে বলতে চাই-  বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই। বাংলাদেশে মুখোশপরা গণতন্ত্রের লেবাস আছে। অতীতে বাংলাদেশের মানুষ লড়াই করেছে, সংগ্রাম করেছে এবং বুকের রক্ত দিয়েছে এই গণতন্ত্রের জন্য। কেউ দয়া করে এই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে দেবে না উল্লেখ করে সংগ্রাম করেই গণতন্ত্র কায়েম করতে হবে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির মহাসচিব।খালেদা জিয়াকে আপসহীন নেত্রী উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভবিষ্যতেও আপসহীন থেকে তিনি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবেন। তিনি বলেন, দেশের মানুষ মনে করে খালেদা জিয়াই গণতেন্ত্রর প্রতীক। তিনিই এ দেশের মানুষকে মুক্তি দিতে পারবেন। তাই আগামী দিনে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এ দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে। সমাজে পরিবর্তন অনেক কষ্টের কাজ উল্লেখ করে এ জন্য তরুণদের জেগে ওঠার আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, সবাই জেগে ওঠুক, নিজের অধিকার আদায় করে নিক।আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।/ এআর /

প্রভাসের জন্মদিনে ‘শাহু’র পোস্টার

নিজের জন্মদিনে ভক্তদের জন্য আশ্চর্য গিফট নিয়ে হাজির হলেন মহেশমতী সাম্রাজ্যের সম্রাট ‘বাহুবলী’! প্রকাশ করলেন বহু প্রতিক্ষিত ‘শাহু’ ছবির পোস্টার। এর আগেও বাহুবলী : দ্য কনক্লুশন-ছবির পোস্টারও রিলিজ করেছিল প্রভাসের জন্মদিনেই। আর সেই রীতি মেনেই এবারও দক্ষিণী অভিনেতা প্রভাসের জন্মদিনে আত্মপ্রকাশ করল তাঁর পরবর্তী ছবি শাহু’র প্রথম লুক। বাহুবলীর বলশালী প্রভাসকে শাহু ছবিতে দেখা যাবে একেবারে ভিন্ন স্বাদে। পোস্টারে রয়েছে তারই ঝলক। এক কথায় ‘রহস্যময় প্রভাস’। প্রায় এক হাজার কোটির ব্যবসা করা বাহুবলী : দ্য কনক্লুশন-ছবি রিলিজের ছয় মাসের মাথায় রিলিজ হলো শাহু ছবির ফার্স্ট লুক। আগামী বছর প্রেক্ষাগৃহে আসবে এই ছবি। তেলেগু পরিচালক সুজিথের সঙ্গে এই প্রথম কাজ করছেন প্রভাস। ২৭ বছর বয়সী পরিচালক শাহু ছবিতে দক্ষিণের সঙ্গেই রেখেছেন বলিউড টাচ্ও। শাহু ছবিতে সুপারস্টার প্রভাসের বিপরীতে অভিনয় করতে দেখা যাবে শ্রদ্ধা কাপুরকে। উল্লেখ্য, এই ছবি প্রাথমিক ভাবে তামিল, তেলেগু এবং হিন্দি-তিনটি ভাষায় প্রকাশিত হবে বলে সূত্রের খবর।  সূত্র : জি নিউজ এসএ/ এআর

দুর্দশা দেখতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে জর্ডানের রানি

মিয়ানমারে রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনীর নির্যাতনে প্রাণভয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করছেন জর্ডানের রানি রানিয়া আল আবদুল্লাহ। আজ সোমবার বেলা ১১টা ১০ মিনিটে বিশেষ বিমানে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছান রানিয়া। সেখান থেকে তিনি উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের উদ্দেশে রওনা হন। রানি রানিয়া আল আবদুল্লাহ কক্সবাজারের কুতুপালং ক্যাম্পে পৌঁছে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নারী, পুরুষ ও শিশুদের অবস্থা দেখেন এবং সেখানে জাতিসংঘের একাধিক সংস্থাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ত্রাণ কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন। রানির আগমন ‍উপলক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কক্সবাজারের সংশ্লিষ্ট এলাকায় মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। কক্সবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) ড. এ কে এম ইকবাল হোসেন জানান, জর্ডানের রানির কক্সবাজার আগমন উপলক্ষে সর্বোচ্চ নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পুলিশ, বিজিবির পাশাপাশি সাদা পোশাকেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে। জর্ডানের রানি রানিয়া আবদুল্লাহ ইন্টারন্যাশনাল রেসকিউ কমিটির (আইআরসি) একজন বোর্ড সদস্য। একই সঙ্গে তিনি জাতিসংঘের মানবিক সংস্থাগুলোর পরামর্শক। এর আগে রোহিঙ্গাদের দুরবস্থা দেখতে বাংলাদেশে এসেছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের স্ত্রী এমিনে এরদোয়ান।   এমআর / এআর

১৭০ জনকে নিয়োগ দেবে পায়রা বন্দর

জনবল নিয়োগ দেবে পায়রা বন্দর। প্রতিষ্ঠানটি অস্থায়ীভাবে ৬০ পদে মোট ১৭০ জনকে নিয়োগ। এই লক্ষ্যে আজ সোমবার বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে আবেদন চেয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। সরকারি চাকরির প্রতি আগ্রহ থাকলে আপনিও আবেদন করতে পারেন এসব পদে। তার আগে দেখে নিন বিজ্ঞপ্তি। মিলিয়ে নিন যোগ্যতার মাপকাঠি। পদের নাম ও পদ সংখ্যা: উপ-প্রধান প্রকৌশলী (জেটি এন্ড হারবার)-১ জন, যুগ্ম-পরিকল্পনা প্রধান- ১জন, ডক মাস্টার- ১জন, নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল)-২ জন, উপ-পরিচালক(ব্রেক বাল্ক)-১ জন, উপ-পরিচালক (বাজেট)-১ জন, উপ-পরিচালক(অডিট)-১ জন, উপ-পরিচালক(ইআর)-১ জন, উপ-পরিচালক(প্রোগ্রামার)-১ জন, সিনিয়র হাইড্রোগ্রাফার(ফিল্ড)- ০১ জন, সিনিয়র সহকারী প্রধান (প্রোগ্রামিং এন্ড এপ্রাইজাল)- ১জন, পাইলট-২ জন, সহকারী পরিচালক (নিরাপত্তা)-১ জন, সহকারী পরিচালক(ইআর)-১ জন, সহকারী পরিচালক(এস্টেট)-১ জন, সহকারী পরিচালক( হিসাব) ১ জন, সহকারী সচিব(সমন্বয়)-১ জন, সহকারী ড্রেজিং মাস্টার-১ জন, সুপারিনটেনডেন্ট)(লাইট ও মুরিং)-১ জন, মেডিকেল অফিসার-১ জন, সহকারী প্রধান (প্রোগ্রামিং) -১ জন, সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল)- ২ জন, সহকরী প্রকৌশলী(বিদ্যুৎ)- ১ জন, সহকারী প্রকৌশলী(যান্ত্রিক)-১ জন, একান্ত সচিব)- ১ জন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল)-৪ জন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী(বিদ্যুৎ) -১ জন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী(যান্ত্রিক)-১ জন, কানুনগো- ১ জন, প্রশাসনিক কর্মকর্তা- ১ জন, নিরাপত্তা কর্মকর্তা- ১ জন, সিনিয়র স্টাফ নার্স-১ জন, ফার্মাসিষ্ট -১ জন, ইনল্যান্ড মাস্টার(প্রথম শ্রেণী)-১ জন, তত্ত্বাবধায়ক-৩ জন, ইঞ্জিন  ড্রাইভার(১ম শ্রেণী)- ১ জন, ব্যক্তিগত সহকারী- ১ জন, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর-১ জন, একাউনটেন্ট-৩ জন, প্রধান সহকারী-৬ জন, সিনিয়র ডাটা এন্ট্রি অপারেটর-১ জন, সহকারী ট্রাফিক ইন্সপেক্টর- ২জন, সিনিয়র একাউন্টেস্ এসিসট্যান্ট-২ জন, উচ্চমান সহকারী-৫ জন, লাইটিং মেকানিক-২ জন, জুনিয়র স্টাফ নার্স- ১ জন, ল্যান্ড সর্ভেয়ার – ২ জন, অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক -১৮ জন, ডাটা এন্ট্রি অপারেটর-৩ জন, সহকারী সাব ইন্সপেক্টর- ৬ জন, ‍জুনিয়র একাউন্টস্ এসিসট্যান্ট – ৩জন, জুনিয়র এডিট এসিসট্যান্ট-১ জন, গাড়ী চালক (ভারী/ হালকা)-৪ জন, সুকানী -১ জন, গ্রীজার-৪ জন, লস্কর- ৭ জন, অফিস সহায়ক- ১৯ জন, খালাসী- ৪ জন, পরিচ্ছন্নতা কর্মী-৬ জন, নিরাপত্তা রক্ষী-৩২ জন। আবেদনের যোগ্যতা:  প্রতিটি পদের জন্য আলাদা আলাদা যোগ্যতা চাওয়া হয়েছে।বিস্তারিত দেখুন বিজ্ঞপ্তিতে।   আবেদনের নিয়ম: আগ্রহী প্রার্থীরা (http://ppa.teletalk.com.bd)  ওয়েব সাইট থেকে আবেদনপত্র পূরণ করে জমা দিতে পারবেন । আবেদনপত্র পূরণ ও পরীক্ষার ফি জমাদন শুরু হবে ২৫ অক্টোবর,২০১৭ ইং সকাল ১০ টা থেকে । আবেদনের শেষ সময় :  ২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ইং তারিখের মধ্যে আবেদন পত্র জমা দিতে হবে। বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কে  বিস্তারিত জানতে পায়রা বন্দরের নিজস্ব ওয়েব সাইট(www.ppa.gov.bd) দেখুন । / এম / এআর  

নারায়ণগঞ্জে দেয়াল চাপা পড়ে ৩ বোন নিহত

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার পাগলা বাজারের শান্তিনিবাস এলাকায় দেয়াল চাপা পড়ে ৩ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হচ্ছে - সাইফুল ইসলামের মেয়ে লামিয়া (১২), লাবণী (৮) ও লিমা (৩)। এ দুর্ঘটনায় আরও ২ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। ফতুল্লা থানার ওসি কামাল উদ্দিন জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাগলা বাজারের শান্তিনিবাস এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ওসি কামাল এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ওই এলাকার চান মিয়ার বাড়ির পুরনো সীমানা প্রাচীর ভাঙার কাজ চলছিল। এ সময় সেখানে খেলাধুলা করছিল ৩ বোনসহ কয়েকজন শিশু। হঠাৎ দেয়াল ধসে পড়লে ৩ বোন ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয়েছে আরও ২ জন। তবে তাদের নাম এখনও পাওয়া যায়নি।’ তিনি বলেন, ‘ঘটনার পরপরই পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে দেয়ালের মালিকপক্ষের কাউকে পাওয়া যায়নি। পুলিশ ঘটনা তদন্ত করছে।’   এসএ/ এআর

সিনেমার গল্পটা হতে হবে জীবনের, জীবনবোধের

‘ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমায় সোয়াত টিমের ইনচার্জ (এসি, সোয়াত) এ বি এম সুমন, সিনেমাতে তার আশফাক চরিত্রটি ছিল এক কথায় অসাধারণ। অধিকাংশ দর্শকদের কাছে আশফাক চরিত্রটিই এই সিনেমায় পছন্দের শীর্ষে। সিনেমায় সন্তান সম্ভবা স্ত্রীর প্রতি আশফাকের প্রেম, দেশের প্রতি কর্তব্যবোধ, সুদর্শন চেহারা ও অসাধারণ অভিনয় হল ভর্তি দর্শকদের দৃষ্টি কেড়েছে। জীবনের গল্পগুলোতে আশফাকেরাই যেনো আসল হিরো। সিনেমার শেষ পর্যন্ত দর্শকের দৃষ্টি ছিল আশফাকের দিকে। ‘অচেনা হৃদয়’ ছবির মাধ্যমে ঢাকাই চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে নায়ক এ বি এম সুমনের। অভিনয়ে যাত্রা শুরু করেন মডেলিংয়ের মাধ্যমে। মার্শাল আর্টে দক্ষ সুমন তাঁর সুঠাম দেহ ও আকর্ষণীয় চেহারার কারণে দ্রুত নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছেন। আড়ং, এক্সট্যাসি, ইজিসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসের বিলবোর্ডে তিনি পরিচিত মুখ। এছাড়া বিভিন্ন টেলিভিশন বিজ্ঞাপন ও নাটকে কাজ করেছেন সমানতালে। সবমিলিয়ে এ বি এম সুমনের বৃহস্পতি এখন তু্ঙ্গে। একুশে টেলিভিশন (ইটিভি) অনলাইনের একান্ত সাক্ষাৎকারে এ বি এম সুমন বললেন সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ঢাকা অ্যাটাক নিয়ে, সেই সঙ্গে নিজের ভালোলাগা নিয়ে। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন- সোহাগ আশরাফ  একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : ভাই কেমন আছেন? অনেক ব্যস্ত সময় কাটছে মনে হয়? এ বি এম সুমন : জি, ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন? সারাদিন একটু ব্যস্ত ছিলাম। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : আমিও ভালো আছি। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : ঢাকা অ্যাটকের সাফল্য কেমন উপভোগ করছেন? এ বি এম সুমন : ভালোই। অনেকেই ম্যাসেজ দিচ্ছে। ফেসবুকে অভিনন্দন জানাচ্ছে। দেখা হলে তাদের অনুভুতি শেয়ার করছে। সব মিলিয়ে ভালো সাড়া পাচ্ছি। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : ঢাকাই সিনেমায় এই সাফল্য অব্যাহত রাখতে হলে কি কি করা জরুরী বলে মনে করেন? এ বি এম সুমন : যেকোনো চলচ্চিত্রে সাফল্য পেতে সবার প্রথম একটা ভালো গল্প নির্বাচন করা জরুরী। গল্পটা হতে হবে মানুষের গল্প, জীবনের, জীবনবোধের। আমাদের সমাজের গল্প। এরপর নির্মাণটাকে গুরুত্ব দিবো। নির্মাতা যদি তার নির্মাণশৈলীর মাধ্যমে গল্পের শুরু থেকে শেষ পর‌্যন্ত দর্শকদের ধরে রাখতে পারেন তবেই ভালো কিছু সম্ভব। অভিনেতা যদি চরিত্রের শতভাগ দিতে পারে তবেই একটা সিনেমা পূর্ণতা লাভ করে। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : সাদা পাঞ্জাবি পরা সুমন (আশফাক) আর স্ত্রী নওশাবার রোমান্টিসিজম ছিলো উপভোগ্য। সিনেমার চরিত্রে আশফাককে দেখে অনেকেই তার প্রেমে পড়ে গেছেন। দর্শকদের এই ভালোবাসায় আপনার মন্তব্য কি? এ বি এম সুমন : আসলে বাংলাদেশের মানুষ অনেক বেশি আবেগ প্রবণ। তারা অল্প কিছু দিলে অনেক বেশি দেয়। আমরা যতটুকু না দর্শকদের দিতে পেরেছি দর্শক আমাদের তার চেয়ে অনেক বেশি ভালোবাসা দিয়েছে। দর্শকদের ভালোবাসায় আমি সিক্ত, বিমোহিত। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ ও চিরঋনী।    একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : অনেকের কাছে আপনিই পুরো সিনেমার হিরো। এর আগেও নায়ক হিসেবে আপনাকে দর্শক দেখেছে। তবে ঢাকা অ্যাটাকের পর আপনি দেশের মানুষের কাছে আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। আগামীতে কি একক ভাবে হিরো হিসেবে দর্শক আপনাকে দেখতে পাবে? এ বি এম সুমন : হ্যাঁ। অবশ্যই দেখবে। ইতিমধ্যে বেশ কিছু সিনেমায় কাজ করেছি। অনেকগুলোতে আমি নাম ভূমিকায়ও অভিনয় করেছি। যেমন শফিকুল ইসলাম খান মিঠুর‘অচেনা হৃদয়’ (যা মুক্তি পেয়েছে), তানিম রহমানের ‘আদি’,  এ ছবির অন্যতম কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছি। সৈয়দ জাফর ইমামীর অ্যাকশন ও থ্রিলার ঘরানার ‘রুদ্র দ্য গ্যাংস্টার’, নির্মাতা সোহেল আরমানের ‘ভ্রমর’। এছাড়া বেশ কিছু কাজ শুরু করেছি। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : দর্শকদের মধ্যে ঢাকা অ্যাটাক নিয়ে একটা প্রশ্ন ছিলো আপনাদের চুল নিয়ে… এ বি এম সুমন : দুই বছর ধরে ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর শ্যুটিং হয়েছে। প্রথম লটে শুটিং করে মাঝে বেশ কিছু দিন বন্ধ ছিলো। অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে এমনটা হয়েছিলো। তাই পরিকল্পনামাফিক নির্ধারিত সময়ে এর কাজ শেষ করা যায়নি। তবে আমার মাথায় হেলমেট থাকায় কিছুটা রক্ষা পেয়েছি। শুভর (আরেফিন শুভ) চুলটা বেশি চোখে পরেছে। আসলে দীর্ঘ বিরতির কারণে আমরা অনেকগুলো সিনেমায় কাজ শুরু করি। অন্য পরিচালকদের কথাটাও মাথায় রাখতে হয়েছে। মূলত এ কারণে হেয়ার স্টাইলের ধারাবাহিকতা ধরে রাখা সম্ভব হয়নি।    একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : আপনার অভিনয় জীবনের শুরুটা কীভাবে? এ বি এম সুমন : ‘অচেনা হৃদয়’ ছবির মাধ্যমে ঢাকাই চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়। তবে এর আগে মডেলিং, টেলিভিশন বিজ্ঞাপন ও নাটকে কাজ করেছি।   একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : ব্যাক্তিগত জীবনে অভিনয় ছাড়া অন্য কোনো পেশার সঙ্গে কি জড়িত আছেন? এ বি এম সুমন : এ মুহুর্তে শুধুই অভিনয় নিয়ে ভাবছি। তবে আগামীতে ভিন্ন কিছু করার পরিকল্পনা আছে। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : ঢাকা অ্যাটাক সিনেমার শুটিং চলাকালে কোনো একটা মজার ঘটনা বা অভিজ্ঞতার কথা যদি বলতেন… এ বি এম সুমন : অভিজ্ঞতা তো অনেকই আছে। আমাদের শুটিং করতে বেশ পরিশ্রম করতে হয়েছে। পাহাড়ে ওঠা, জঙ্গলে পানির মধ্যে হাটা, ভারি পোশাক পড়ে অভিনয় করা ইত্যাদি। তবে একটা বিষয় আমাকে খুব প্রেরণা দেয়। আমার অভিনয় শেষে পরিচালক দীপংকর দীপন ভাই এসে আমাকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে দিলেন। এই যে ভালোবাসা, কাজের মূল্যায়ন- অভিনেতা হিসেবে অনেক বড় পাওয়ার। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : যদি বলা হয়-অভিনেতা এবিএম সুমন অথবা সোয়াত টিমের ইনচার্জ আশফাক দুটি মধ্য কোনটি বেছে নিবেন? এ বি এম সুমন : কোনোটি না। আমি মানুষ হয়ে থাকতে চাই। মানুষ-ই আসল পরিচয়। একুশে টেলিভিশন  অনলাইন : একুশে টেলিভিন অনলাইনের পক্ষ থেকে অনেক ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন। এ বি এম সুমন : একুশে টেলিভিশনের পাঠক-দর্শকদেরও অনেক ধন্যবাদ। আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ। আর হ্যাঁ; আগামী ২৬ অক্টোবর সকালে হয়তো একুশে টেলিভিশনে দর্শক আমাকে দেখতে পাবে। কথা হবে সবার সঙ্গে। ভালো থাকবেন। এস এ / এআর /

সালমান-ঐশ্বরিয়ার বিচ্ছেদের নেপথ্যে…

সাবেক বিশ্ব সন্দুরী ঐশ্বরিয়া রাই। বলিউডে এক সময়ে নিজের দাপিয়ে বেড়ানো এই অভিনেত্রী ঘুম হারাম করেছেন অনেকে সহকর্মীদেরও। তাদের একজন সালমান খান। কয়েক বছর চুটিয়ে প্রেম করেছেন ঐশ্বরিয়া ও সালমান। তবে বলিউড সুপারস্টার সালমানকে হতাশায় ডুবিয়ে ফের সম্পর্কে জড়ান আরেক বলিউড অভিনেতা বিবেক ওবেরয়ের সঙ্গে। তবে দু’জনের কেউই তাকে ভালোবাসার বন্ধনে আটকে রাখতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত গাঁটছড়া বাঁধেন অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে। বর্তমানে এই দম্পতির একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে। কিন্তু ঐশ্বরিয়ার অতীত প্রেম কাহিনী নিয়ে মাঝে মধ্যে অজানা কিছু তথ্য অপ্রত্যাশিতভাবেই বের হয়ে আসে। সালমান-ঐশ্বরিয়ার রসায়ন নিয়ে জল ঘোলা কম হয়নি। তবে কেনো তাদের প্রেম দীর্ঘ স্থায়ী হলো না! কেনোই বা পরিণতি পেলো না দুজনার ভালোবাসা! এ প্রশ্ন ভক্তদের মাঝে এখনও ওঠে। সেই ব্রেক-আপের অধ্যায় বলিউডে আজো রহস্য। কখনো শোনা গেছে, সালমানের আচরণ পছন্দ হচ্ছিল না প্রাক্তন এই বিশ্বসুন্দরীর। প্রতিটি কাজে অ্যাশের ওপর সালমানের অতিরিক্ত নিয়ন্ত্রণে অতিষ্ট হয়ে উঠেছিলেন নায়িকা। আবার শোনা যায়, প্রেম কাহিনিতে তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে বিবেক ওবেরয়ের প্রবেশই ভাঙনের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে আসল ঘটনা কি? জানা গেছে, বাবার অমতেই সালমান খানের সঙ্গে সম্পর্কে অনেকখানি এগিয়ে গিয়েছিলেন ঐশ্বরিয়া রায়। কিন্তু শেষমেশ তা আর টেকেনি। আর তাঁদের ভাঙনের অন্যতম কারণ ঐশ্বরিয়ার বাবাই। দাবাং খান একবার স্বীকার করেছিলেন, ঐশ্বরিয়ার বাবার সঙ্গে তিনি বেশ খারাপ ব্যবহার করেছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমি ঐশ্বরিয়ার বাবার সঙ্গে যে ব্যবহার করেছিলাম তা তাঁর একেবারেই পছন্দ হয়নি। স্বাভাবিকভাবে আমার বাবার সঙ্গেও এমন ব্যবহার আমি মেনে নিতাম না। তাই অ্যাশের বাবার আমাকে অপছন্দ করার যথেষ্ট যুক্তি ছিল। আমি সে বিষয়ে কোনো অভিযোগও করছি না।‘ সেই বিষয়টি একেবারেই সহ্য করতে পারেননি সে সময়ের এক নম্বর নায়িকা। আর শুধু বাবাকেই নয়, বান্ধবী অ্যাশের সঙ্গেও একই রকম অপমান করতে শুরু করেছিলেন। যে বিষয়টি দিনের পর দিন মেনে নেওয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছিল তাঁর পক্ষে। আর তারপরই নাকি একটু একটু করে সালমানের থেকে দূরে সরতে থাকেন তিনি। বিচ্ছেদের ব্যাপারে ঐশ্বরিয়াও জানিয়েছিলেন, ‘সালমানের খারাপ সময়েও ওর পাশে ছিলাম। কিন্তু মদ্যপ অবস্থায় ওর নিয়ন্ত্রণহীন ব্যবহার ক্রমেই বাড়তে থাকে। শারীরিক ও মানসিকভাবে আমায় অপমানিত হতে হয়েছে বারবার। নিজের সম্মান রক্ষা করতেই শেষমেশ সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি। আমি নিশ্চিত আমার জায়গায় অন্য কেউ থাকলেও এমনটাই করতেন।’ সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া   এসএ / এআর  

ভারতীয় অর্থায়নের ১৫ প্রকল্পের উদ্বোধন

ভারতীয় অর্থায়নে ১৫টি বড় উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করেছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। এ সময় তিনি ঢাকায় ভারতীয় হাই কমিশনের নতুন চ্যান্সেরি কমপ্লেক্সেরও উদ্বোধন করেন। সোমবার সকালে রাজধানীর বারিধারায় ভারতীয় হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সারি কমপ্লেক্সে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব প্রকল্পের উদ্বোধন করেন তিনি। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুও উপস্থিত ছিলেন। ৭১ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ের এই প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে, পিরোজপুরে ১১টি পানি পরিশোধনাগার স্থাপন, দেশের বিভিন্ন স্থানে ৩৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন, সাভারে ৫ তলা ইস্কন মন্দির নির্মাণ, সিলেট ইস্কনে ৫ তলা ছাত্রাবাস নির্মাণ, চট্টগ্রামে একটি কমিউনিটি ভবন নির্মাণসহ অন্যান্য প্রকল্প। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, দুই দিনের সফরে রোববার ঢাকা পৌঁছে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর সঙ্গে ভারত-বাংলাদেশ যৌথ পরামর্শক কমিশনের চতুর্থ সভায় অংশ নেন সুষমা।   এসএ /  এআর

উ. কোরিয়ার হুমকি মোকাবেলার প্রতিশ্রুতি

উত্তর কোরিয়ার হুমকি মোকাবেলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে। গতকাল রোববারের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর তিনি প্রতিশ্রুতি দেন। এ জয়ের ফলে জাপানের যুদ্ধোত্তর শান্তিচুক্তি সংবিধান সংশোধন করার ক্ষেত্রে অ্যাবে’র পথ সুগম হলো। স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাচনে অ্যাবে’র ক্ষমতাসীন জোট সংসদে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রেখেছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, কমেটো পার্টির সঙ্গে আবের ক্ষমতাসীন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) জোট জোটের নিম্নকক্ষের ৪৬৫টি আসনের মধ্যে ৩১২ টি আসন লাভ করেছে - যা তাদের সংবিধানের একটি সংশোধনের ক্ষমতা দিয়েছে। পিয়ংইয়াংয়ের হুমকিসহ জাপানের বিভিন্ন সংকট মোকাবেলা করার জন্য প্রতিশ্রতি দেন জাপান প্রধান মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি মোতাবেক আমার প্রধান কাজ হবে উত্তর কোরিয়াকে দৃঢ়ভাবে মোকাবেলা করা। আর এর জন্য শক্তিশালী কূটনীতি প্রয়োজন।’ মাস দুয়েক আগেই নোংরা দুটি রাজনৈতিক স্ক্যান্ডালের জন্য তার জনপ্রিয়তা হ্রাস পেয়েছিল। তবে তিনি দ্রুতই তার ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার করতে সমর্থ হয়। তারা এই বিজয়ই এর প্রমান। সূত্র : বিবিসি /এমআর / এআর

তারেক রহমানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

রাজধানীর তেজগাঁও থানায় দায়ের করা রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। সোমবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা এই পরোয়ানা জারি করেন।পরোয়ানাভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন সাংবাদিক মাহাথীর ফারুকী খান ও কনক সরোয়ার খান।রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি তাপস কুমার পাল গণমাধ্যমকে জানান, আজ আদালতে মামলাটির অভিযোগপত্র আমলে নেওয়ার দিন ধার্য ছিল। বিচারক অভিযোগপত্রটি আমলে নিয়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।এর আগে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক এমদাদ হোসেন তারেক রহমানসহ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।এ মামলার অন্য আসামি বেসরকারি টেলিভিশন একুশে টিভির (ইটিভি) সাবেক চেয়ারম্যান আবদুস সালাম কারাগারে আটক রয়েছেন।অভিযোগপত্রটি দণ্ডবিধির ১২৪ ও পুলিশ ইনসাইটমেন্ট অব ডিস অ্যাফেকশনের ১৯২২-এর ৩ ধারায় দাখিল করা হয়েছে।মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১ আগস্ট রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলাটি করেন এসআই বোরহান উদ্দিন।মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি পূর্ব লন্ডনের অট্রিয়াম অডিটরিয়ামে যুক্তরাজ্য বিএনপি আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন তারেক রহমান। সেখানে তিনি দেশের বিচার বিভাগ, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে এমন মন্তব্য করেছেন, যাতে জনমনে হিংসার উদ্রেক হয়েছে।/ এআর

মারা গেছেন সৈয়দ আশরাফের স্ত্রী

আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান প্রেসিডিয়াম সদস্য জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী শিলা ইসলাম মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহে…রাজিউন)। সোমবার বাংলাদেশ সময় সকাল সোয়া আটটায় লন্ডনের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।জনপ্রশাসন মন্ত্রীর চাচাতো ভাই সৈয়দ খায়রুল ইসলাম একুশে টেলিভিশন অনলাইনকে মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন।লন্ডনে বসবাসরত শিলা ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে দুরারোগ্যব্যাধী ক্যান্সারে ভুগছিলেন। এর আগে গত এপ্রিলে জার্মানির একটি হাসপাতালে কেমো থেরাপিসহ ক্যান্সারের কয়েক ধাপের চিকিৎসা করা হয় তার। পরে সেখান থেকে তাকে সেন্ট্রাল লন্ডনের একটি হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। এই হাসপাতালেই সোমবার মারা যান তিনি।

সংকট ‍নিরসনে কাতারের সঙ্গে সরাসরি আলাপ চায় না সৌদি : টিলারসন

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন বলেছেন, কূটনৈতিক সংকট সমাধানে উপসাগরীয় সহযোগিতা সংস্থার (জিসিসি) দেশ সৌদি আরব প্রতিবেশী কাতারের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা করতে রাজি নয়। তিনি রোববার কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুল রহমান আল থানির সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন। গত কয়েক বছরের মধ্যে উপসাগরীয় অঞ্চলের সবচেয়ে বড় কূটনৈতিক সংকট সৃষ্টি হয়েছে। জঙ্গিবাদে সমর্থন ও মদদ দেওয়ার অভিযোগ তুলে গত ৫ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরব, মিসর, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। এছাড়া আরব রাষ্ট্র কাতারের ওপর স্থল, নৌপথ ও আকাশপথ অবরোধও দেয় তারা । তবে কাতার বরাবর এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। এরইমধ্যে এ সংকট নিরসনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনসহ  দেশটির কিছু জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ও কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আল-আহমাদ আল-জাবের আল-সাবাহ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। সূত্র: আল জাজিরা / এম / এআর  

চার বছরে ১০০ পরমাণু বোমা থাকবে উত্তর কোরিয়ার হাতে

ক্রমশ শক্তিশালী হচ্ছে উত্তর কোরিয়া।  তাদের পরমাণু অস্ত্র মজুতের সংখ্যা আগামী চার বছরের মধ্যে ১০০-তে পৌঁছবে।  শুধু তাই নয়, উত্তর কোরিয়া দ্রুত পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে এমনটাই চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে মার্কিন থিংক ট্যাংক র‌্যান্ড কর্পোরেশন। র‌্যান্ড  কর্পোরেশনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর কোরিয়ার হাতে এখন ১৩ থেকে ২১টি পরমাণু বোমা বানানোর উপযোগী উপাদান  রয়েছে।  এসব বোমা ২০২০ সালের মধ্যে তৈরি করা হবে।  এছাড়া, এই সময়ের মধ্যে আরও ৫০ থেকে ১০০টি পরমাণু বোমা বানানোর উপযোগী উপাদান দেশটি তৈরি করতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে।  অন্যদিকে, মিশ্র পন্থা অবলম্বন করে পিয়ংইয়ং পরমাণু বোমার উপাদান তৈরির খরচও কমিয়ে আনতে পারবে। ফলে পরমাণু বোমা তৈরির উপাদান ব্যাপক মাত্রায় তৈরি করতে সক্ষম হবে দেশটি। গত কয়েক দফায় একাধিকবার পরমাণু বোমার পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। যেগুলি সবচেয়ে শক্তিশালী পরমাণু বোমার পরীক্ষা বলে উল্লেখ করা হয়েছে।  এছাড়া, বিমান বা যুদ্ধজাহাজে পরমাণু বোমা মোতায়েনের সক্ষমতাও তাদের আছে বলেও দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। আমেরিকার মতো দূরবর্তী লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার জন্য পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে কাজ করে চলেছে এখন দেশটি।  ২০২০ থেকে ২০২৫ সালের মধ্যে এই ক্ষেত্রে পুরো সক্ষমতা অর্জন করবে পিয়ংইয়ং।  যা কিনা ভয়ঙ্কর বিপর্যয় ডেকে আনবে বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্র : র‌্যান্ড কর্পোরেশন / এআর

মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে নিহতদের মধ্যে ৩ বাংলাদেশি সনাক্ত

মালয়েশিয়ার পেনাংয়ের রাজধানী জর্জ টাউনে শনিবার সকালে দুটি ৪৯তলা ভবন নির্মাণস্থলে ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় তিন বাংলাদেশিসহ আটজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পেনাং রাজ্যের দমকল বাহিনীর ডেপুটি অপারেশন হেড এর্ভিন গ্যালেন তেরুকি জানান, এসএআর টিম রোববার বিকেল পর্যন্ত আটজনের মরদেহ উদ্ধার করতে পেরেছে । এ আটজন হচ্ছেন নূর আলম, মনিরুল ইসলাম, হোসেইন মোহাম্মদ (বাংলাদেশ), ইউনুস নাজির হাসান (মিয়ানমার), মোহাম্মদ ইলিয়াস মোস্তাক (মিয়ানমার), রহমতুল্লাহ মোহাম্মদ সিদিক (মিয়ানমার), হসরিন, ইরউইন (ইন্দোনেশিয়া)। বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সেলর জানান, উদ্ধারকৃত শ্রমিকদের মধ্যে বাংলাদেশি তিনজন শ্রমিককে শনাক্ত করা গেছে। এরা হলেন নূর আলম (মাগুরা), মনিরুল ইসলাম (যশোর) এবং হোসাইন মোহাম্মদ (কক্সবাজার)। আইনি প্রক্রিয়া শেষে শীঘ্রই  তাদের মরদেহ দেশে প্রেরণ করা হবে বলে জানান তিনি। এম / এআর    

টি-টোয়েন্টি সিরিজে নেই ডু প্লেসি

ইনজুরির কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন টি-২০ সিরিজে খেলতে পারছেন না দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। বাংলাদেশ ও স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ব্যাটিং করার সময় ইনজুরির শিকার হন তিনি। ৬৭ বলে ৯১ রান করার পর রিটায়ার্ড হার্ট মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।  ডু প্লেসির ইনজুরিতে দক্ষিণ আফ্রিকার সিনিয়র ক্রিকেটারদের ইনজুরি আক্রান্ত হওয়ার তালিকাটা আরও লম্বা হলো। অভিজ্ঞ তিন ক্রিকেটার ডেল স্টেইন, ভারনন ফিল্যান্ডার ও ক্রিস মরিসও চোটের কারণে রয়েছেন মাঠের বাইরে। ডু প্লেসিসের অবর্তমানে টি-টোয়েন্টি সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকাকে নেতৃত্ব দেবেন জেপি ডুমিনি। এদিকে প্রোটিয়া অধিনায়কের বদলে টি-২০ স্কোয়াডে ডাক পেয়েছেন ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস। টি-টোয়েন্টি সিরিজের ম্যাচ দুটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৬ ও ২৯ অক্টোবর। দক্ষিণ আফ্রিকা টি-টোয়েন্টি দল :   জেপি ডুমিনি (অধিনায়ক), হাশিম আমলা, ডেভিড মিলার, ফারহান বেহারডিন, কুইন্টন ডি কক, এবি ডি-ভিলিয়ার্স, রবি ফ্রাইলিংক, বিউরেন হেন্ড্রিক্স, মাঙ্গালিসো মোসেহলে, ডেন প্যাটারসন, এরন ফাঙ্গিসো, আন্দিলে ফেলুকায়ো, তাব্রাইজ শামসি, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস।   সূত্র : ক্রিকইনফো এমআর / এআর

লাথাম ও টেইলরে বিধ্বস্ত ভারত

ক্যারিয়ারের ২০০তম ম্যাচে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করেও পরাজিত দলে ভারত অধিনায়ক ভিরাট কোহলি। কোহলির ১২৫ বলে ১২১ রানের ইনিংসের ওপর ভর করে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ২৮০ রানের স্কোর দাঁড় করিয়েছিল ভারত। লাথামের সেঞ্চুরি ও রস টেইলরের ৯৫ রানের সুবাধে এক ওভার ও ৬ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সফরকারীরা। গতকাল মুম্বাইয়ের ‍উয়েংকেড়ে স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে ৭১ রানেই ৩ তিন উইকেট হারায় ভারত। সেখান থেকে অসাধারণ এক সেঞ্চুরি করে দলকে চ্যালেঞ্জিং স্কোর এনে দেন।  এটি কোহলির ৩১ নম্বর ওয়ানডে সেঞ্চুরি। সেঞ্চুরির সংখ্যায় রিকি পন্টিংকে (৩০) পেছনে ফেলেছেন তিনি। ৪৯ সেঞ্চুরি নিয়ে সামনে আছেন কেবল শচীন টেন্ডুলকার। এছাড়া দিনেশ কার্তিক ৩৭ ও ‍ভুবনেশ্বর কুমার ২৬ রান করেন। নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্ট ৪টি ও টিম সাউদি ২টি উইকেট লাভ করেন। ২৮১ রানের জবাবে নিউজিল্যান্ডের শুরুটা ভালো হয়নি। ৮০ রানে ৩ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ডকে পথ দেখায় টম লাথাম ও রস টেইলরের ২০০ রানের জুটিটি। জয় থেকে মাত্র এক রান দূরে থাকতে ৯৫ রান করে টেইলর আউট হয়ে গেলেও টম লাথাম অপরাজিত ছিলেন ১০৩ রানে। এ জয়ের ফলে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল নিউজিল্যান্ড। ম্যাচসেরা হয়েছেন টম লাথাম। সূত্র : ক্রিকইনফো এমআর / এআর

বাবা-মায়ের বদভ্যাসে সন্তানের ডায়াবেটিস

ডায়াবেটিস এবং অতিরিক্ত ওজন  আজকের প্রজন্মের জন্য বড় একটা সমস্যা৷ কিন্তু এর জন্য কি খাদ্যাভ্যাস ও জীবনধারাই দায়ী? নাকি সেই সমস্যা কেউ উত্তরাধিকারসূত্রে জিনের মাধ্যমেও পেতে পারে? জার্মান বিজ্ঞানীরা এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছেন৷ এটা একটা মহামারির মতো ৷ গোটা বিশ্বে প্রতি ১০ জনের মধ্যে একজন টাইপ ২ ডায়াবেটিসে ভুগছেন৷ এই প্রবণতা দ্রুত বেড়ে চলেছে৷ অতিরিক্ত ওজন ও অনিয়মিত জীবনযাত্রা এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে৷ তবে বিজ্ঞানীদের অনুমান, এর পেছনে অন্য কারণও কাজ করছে৷ মিউনিখ শহরে হেল্মহলৎস সেন্টারে গবেষকরা সেই রহস্য সমাধানের চেষ্টা করছেন৷ এমন পরীক্ষার জন্য ইঁদুর সবচেয়ে উপযুক্ত প্রাণী৷ তাদের মেটাবলিজম অনেকটা মানুষের মতোই কাজ করে৷ মোটা ও রোগা ইঁদুর ঠিক মানুষের মতোই রোগে ভোগে৷ এমনকি তাদের ডায়াবেটিসও হয়৷ গবেষকরা ৬ সপ্তাহ ধরে ইঁদুরদের হাই-ক্যালোরি খাদ্য দিচ্ছেন৷ মানুষের মতই এমন ত্রুটিপূর্ণ খাদ্য খেয়ে তারা মোটা হয়ে যাচ্ছে এবং ডায়াবেটিসের আগের পর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছে৷ অনুমান করা হচ্ছে, ইঁদুররা এই বৈশিষ্ট্য পরবর্তী প্রজন্মের ঘাড়ে চাপিয়ে দেবে৷ জিনের মাধ্যমে এমন হস্তান্তর একমাত্র ডিম্বাণু ও বীর্যের মাধ্যমে ঘটতে পারে৷ স্থূলকায় বাবা-মার অন্য সব প্রভাব এড়াতে কৃত্রিম প্রজননের জন্য বিজ্ঞানীরা তাদের ডিম্বাণু ও শুক্রাণু সংগ্রহ করছেন৷ ২৪ ঘণ্টা পর ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন প্রক্রিয়ায় ডিম্বকোষের বিভাজন ঘটে গেছে৷ গবেষকরা ইঁদুরের ভ্রূণ সারোগেট মায়ের শরীরে প্রতিস্থাপন করছেন৷এই সারোগেট মায়েদের স্বাস্থ্য যথেষ্ট ভালো ৷ তারা শুধু তাদের গর্ভে ইঁদুরশিশু ধারণ করে না, জন্মের পর শিশুদের দেখাশোনাও করে৷ ইঁদুর শিশুদের প্রতিপালনের কাজে তাদের মোটা বাবা-মায়েদের আর কোনো ভূমিকা থাকে না৷ এমনকি খাদ্যাভ্যাসের ক্ষেত্রেও তারা ভুল আদর্শ হয়ে উঠতে পারে না৷ এ বিষয়ে ইয়োহানেস বেকার্স বলেন, ‘‘বাবা-মার সঙ্গে সামাজিক স্তরে যোগাযোগের কারণে খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তনের সম্ভাবনা যে নেই, সে বিষয়ে আমরা নিশ্চিত হতে পারলাম৷ জরায়ু অথবা মায়ের দুধ পান করার প্রক্রিয়াও কোনো প্রভাব ফেলে না৷ পাকস্থলির ব্যাকটেরিয়াও এক প্রজন্ম থেকে অন্য প্রজন্মে হস্তান্তর হয় না৷ অর্থাৎ এ সব থেকে বোঝা যাচ্ছে, যে পরবর্তী প্রজন্মে যে পরিবর্তন ঘটছে, তা ‘জার্ম ট্র্যাক সেল`-এর তথ্যের উপর নির্ভর করে৷`` গবেষকরা এই ইঁদুর শিশুদের বিকাশের উপর কড়া নজর রাখছেন এবং রোগা বাবা-মায়েদের সন্তানদের সঙ্গে তাদের তুলনা করছেন৷ সব শিশুদেরই একই খাবার দেওয়া হচ্ছে৷ এ ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে, যে এই ইঁদুরদের  জিনগতভাবে প্রায় একই কাঠামো রয়েছে৷ একই পরিবেশে তারা বড় হয়েছে৷ একমাত্র তফাত হলো, তাদের আসল বাবা-মায়েরা হয় মোটা অথবা রোগা৷ অথচ এই বিষয়টিই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ মোটা ইঁদুরদের বংশধররা রোগা ইঁদুরদের বংশধরদের তুলনায় অনেক দ্রুত ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হলো৷ অর্থাৎ নিশ্চয় বংশানুক্রমেই তারা এই প্রবণতা পেয়েছে৷ কিন্তু বাবা-মায়েরা ভুল খাবার খেয়ে এমন সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে৷  বাবা এবং মা ডায়াবেটিস ও অতিরিক্ত ওজনের প্রবণতা তাদের সন্তানদের শরীরে হস্তান্তর করেছে৷ ত্রুটিপূর্ণ খাদ্য জিনের রেগুলেশন পরিবর্তন করে পরবর্তী প্রজন্মের শরীরে ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে৷ অতএব ডায়াবেটিসের দ্রুত প্রসারের কারণ বোঝা যায়৷ সূত্র: ডয়েচে ভেলে / এম / এআর

পৃথিবীর যে ৭টি জায়গা গুগল ম্যাপে পাবেন না

ঘরে বসেই আপনি ঘুরে আসতে পারেন পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত। গুগল ম্যাপের সাহায্যে সহজেই বিশ্বের যে কোনো জায়গা খুঁজে বের করতে পারবেন। তবে বিশ্বের এমন কিছু স্থান রয়েছে, যে স্থানগুলো আপনি চাইলেও গুগল ম্যাপে খুঁজে পাবেন না। জেনে নিন এই সাতটি স্থানের নাম এবং অবস্থান- ন্যাটোর বিমানঘাঁটি: সামরিক জোট ন্যাটোর বিমানঘাঁটি রয়েছে জার্মানির গিয়েলেনকির্চেন নামের একটি স্থানে। এ জায়গায়টি মাইক্রোসফটের বিংয়ে ব্লক করা না থাকলেও গুগল ম্যাপে জায়গাটি পিক্সেল করে দেখানো হয়। ন্যাশনাল সিকিউরিটি ব্যুরো: চীনের জাতীয় নিরাপত্তা ব্যুরোর সদর দপ্তর ন্যাশনাল সিকিউরিটি ব্যুরো। এটি গুগল ম্যাপে চাইলেও আপনি বের করতে পারবেন না। তাইওয়ানে অবস্থিত এ জায়গায় চীনের কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থার কার্যালয়ও আছে। গুগলে এই জায়গাটি ব্লক করা আছে। রোজেজ: লোস ডোলোরেসের মতো স্পেনের আর একটি জায়গাও রোজেজ গুগল ম্যাপে পাওয়া যায় না। ধারণা করা হয়, এ স্থান থেকে মার্কিন বিমানবাহিনীর ৮৭৫তম আধুনিক বিমানটি নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এখান থেকে বিভিন্ন সতর্কবার্তাও পাঠানো হয়। স্পেনের এ স্থানটি গুগল ম্যাপে পাওয়া যায় না। ভলক্যাল বিমানঘাঁটি: নেদারল্যান্ডসের ভলক্যাল বিমানঘাঁটি গুগল ম্যাপে পাওয়া যায় না। মার্কিন বিভিন্ন গোপন নথি প্রকাশ করা ওয়েবসাইট উইকিলিকসের অভিযোগ, এই বিমানঘাঁটিতে স্নায়ুযুদ্ধের সময়কার ২২টি পারমাণবিক বোমা লুকিয়ে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসরায়েল: আপনি চাইলেও পুরো ইসরায়েল গুগল ম্যাপে দেখতে পারবেন না। তবে জুম করলে মনে হবে কিছু ভবন কিন্তু সেটি ইসরায়েল নয়। লোস ডোলোরেস: স্পেনের লোস ডোলোরেসের হ্যালিপোয়েরতো ডি কার্টাগেনা নামের জায়গাটিও গুগল ম্যাপে পাবেন না। জায়গা সম্পর্কে তেমন তথ্যও খুব একটা জানা নেই কারও। গুগলের স্ট্রিট ভিউয়ে খুঁজলেও এর অবস্থান পাওয়া যায় না। হাডসপেথ কাউন্টি: টেক্সাসের একটি অংশ, যার নাম হাডসপেথ কাউন্টি। এখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর সীমান্ত এলাকা আছে। এই সীমান্তের প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে মেক্সিকোর সিউদাদ জুয়ারেজ এলাকাটি গুগল ম্যাপে বিকৃত করে রাখা আছে।   আর / এআর

সার্টিফিকেটের ভুল সংশোধন করবেন যেভাবে

লেখা-পড়া ও পরীক্ষা শেষে সফলতার একটি সনদ আমাদের সবারই কাম্য। কিন্তু পড়ালেখা শেষ করে সার্টিফিকেট হাতে পাওয়ার পরই যদি সার্টিফিকেটে ভুল নাম কিংবা তথ্যগত গড়মিল লেখা থাকে তবে তো চোখ কপালে উঠার-ই কথা! সার্টিফিকেটে নাম, জন্মতারিখ বা অন্য যেকোনো তথ্য ভুল লেখা হলে কী করবেন? দুশ্চিন্তা নয়, এই ভুলেরও সমাধান রয়েছে। মনে রাখবেন, জন্মতারিখ ভুল হলে পাসের সাল থেকে পরবর্তী দুই বছরের মধ্যে সংশোধন করতে হয়। এরপর সংশোধন করা না হলেও বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে পুনর্বিবেচনা করা হয়। আসুন জেনে নিই কিভাবে এই ভুল সংশোধন করা যায়- প্রথমত, নাম বা জন্মতারিখের ভুল সংশোধনের জন্য প্রথমে নোটারি বা এফিডেভিট করাতে হবে। পরে একটি দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিতে হবে। বিজ্ঞপ্তিতে প্রার্থীর সার্টিফিকেট নাম, বাবার নাম, মায়ের নাম, শাখা, পরীক্ষার সাল, পরীক্ষাকেন্দ্রের নাম, রোল নম্বর, বোর্ডের নাম লিখতে হবে। জন্মতারিখ উল্লেখ করে যা সংশোধন করতে চান (প্রার্থীর নাম, বাবার নাম, মায়ের নাম বা জন্মতারিখ) তা করতে হবে। দ্বিতীয়ত, বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর আপনি যে শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরীক্ষা দিয়েছেন সেই বোর্ডে তে হবে। এরপর শিক্ষা বোর্ডের `তথ্য সংগ্রহকেন্দ্র` থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে হবে। আবেদনপত্র সংগ্রহের পর তা পূরণ করতে হবে। প্রার্থীর নাম, বাবা-মায়ের নাম কিংবা জন্মতারিখ সংশোধনের জন্য (জরুরি ফিসহ) ৫০০ টাকা জমা দিতে হয়। এ ফি সোনালী ব্যাংকের ডিমান্ড ড্রাফটের মাধ্যমে বোর্ডের সচিব বরাবর জমা দিলেই আবেদন কার্যকর হবে। তৃতীয়ত, আবেদনপত্রের সঙ্গে ব্যাংক ড্রাফটের মূল কপি, পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির কাটিং, মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সার্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক সত্যায়িত এক কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি এবং প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট বা নোটারি পাবলিকের কাছে নাম বা জন্মতারিখ সংশোধন সম্পর্কে এফিডেভিট করে তার মূল কপি জমা দিতে হবে। চতুর্থত, নাম ও জন্মতারিখ সংশোধনের জন্য আবেদন গ্রহণের এক মাসের মধ্যে বোর্ড আবেদনকারী এবং তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একজন শিক্ষকসহ একটি সভায় বসে। এ মিটিংয়েই আবেদন যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মিটিংয়ে বসার ১০ থেকে ১৫ দিন আগেই আবেদনকারীর ঠিকানায় চিঠি দিয়ে জানানো হয়। জরুরি প্রয়োজনে বোর্ডের চেয়ারম্যানের বিশেষ বিবেচনায় একদিনের মধ্যেও নাম ও জন্মতারিখ সংশোধন করার সুযোগ রয়েছে।   / আর / এআর  

শরীর ও মনের উপর সংগীতের প্রভাব

সুখে-দুঃখে সংগীত আমাদের মনোরঞ্জন করে৷  শৈশব থেকেই শরীর ও মনের  উপর সংগীতের প্রভাব রয়েছে৷ চিকিৎসাবিদ্যার ক্ষেত্রেও সংগীতের সফল প্রয়োগ চলছে৷ মানুষ কেন সংগীত ভালবাসে? – এমন প্রশ্ন অনেকের মনেই জাগে৷ আসলে আমাদের পরিবেশ সুরে ভরপুর৷ পাখিদের কলকাকলি৷ কথারও সুর আছে৷ মস্তিষ্ক ভাষার মতো সংগীত শুনেও একই ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখায়৷ কিন্তু সংগীত শোনার সময় মস্তিষ্কের সেই অংশ সক্রিয় হয়ে ওঠে, যেখানে আবেগ সৃষ্টি হয়৷ সে কারণেই সংগীতের এত বেশি প্রভাব রয়েছে৷সদ্যোজাত শিশুরাও সংগীত শুনে যথেষ্ট প্রতিক্রিয়া দেখায়৷ সেটা শুধু চোখে দেখা যায় না, হাতেনাতে প্রমাণ করা সম্ভব৷ সেই বয়সে শিশুরা মায়ের কণ্ঠ শুনলে তাদের লালায় স্ট্রেস হরমোন কর্টিসলের ঘনত্ব কমে যায়৷ মস্তিষ্ক চাঙা হয়ে পড়ে৷ সে কারণে যে সব শিশু সংগীত চর্চা করে, তারা অনেক সহজে ভাষা শিখতে পারে এবং নির্দিষ্ট বিষয় মনোযোগ দিয়ে শিখতে পারে৷যে সব স্কুলে সংগীত চর্চা হয়, সেখানে শিশুরা সংঘবদ্ধ হয়ে ভালোভাবে শিক্ষা গ্রহণ করে এবং পরস্পরের মধ্যে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে৷ সংগীত আমাদের শরীরে কী প্রতিক্রিয়া দেখায়, গবেষকরা তা পরীক্ষা করে দেখেছেন৷ সংগীত হৃৎস্পন্দন, রক্তচাপ ও পেশির টান বদলে দেয়৷ সেই সঙ্গে আমাদের শরীর আরও বেশি করে কিছু হরমোন নিঃসরণ করে৷ এই সব কারণে চিকিৎসাবিদ্যার ক্ষেত্রে সংগীতকে সফলভাবে প্রয়োগ করা হচ্ছে৷ ব্যথা সহ্য করতে এবং স্নায়ুকোষগুলির মধ্যে নতুন করে যোগাযোগ স্থাপন করতে সংগীত সাহায্য করে৷ তবে শুধু শারীরিক প্রয়োজনের কারণে নয়, সংগীত তার নিজস্ব গুণে বড়ই সুন্দর৷ সূত্র: ডয়েচে ভেলে /  এম / এআর

টালিউড নায়িকাদের পারিশ্রমিক কার কত?

বর্তমানে টালিউড শাসন করছেন শুভশ্রী, মিমি চক্রবর্তী, পায়েল সরকার, রাইমা সেন, ঋত্বিকা, কোয়েল মল্লিক, পাওলি দাম, শ্রাবন্তী, নুসরাত, সায়ন্তিকা। এদের মধ্যে পারফর্মমেন্সে এগিয়ে আছেন শ্রাবন্তী, শুভশ্রী, মিমি চক্রবর্তী। তবে একটি সিনেমার জন্য কে কত পারিশ্রমিক নিচ্ছেন এই খবর জানতে আগ্রহ অনেকেরই। আর এ খবর যদি জানা যায় তবে বোঝা যাবে টলিডের সবচেয়ে দামি নায়িকা কে? জেনে নিন কে কত পারিশ্রমিক নেন -  শুভশ্রী অভিনেত্রী শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়ের পারিশ্রমিক ২৩ লাখ রুপি, প্রতিটি ফিল্মের জন্য। শুনতে কিছুটা অবা লাগলেও টলিউডের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রী কোয়েল ও ঋতুপর্ণাকেও পারিশ্রমিকের বিচারে শুভশ্রী ছাপিয়ে গেছেন বলেই সূত্রের খবর। কোয়েল মল্লিক বাংলা চলচ্চিত্র জগতে অন্যতম প্রখ্যাত অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক। বলা যায় এই মুহুর্তে তাঁর জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। প্রতি ফিল্মের জন্য কোয়েল মল্লিক ২০ লাখ রুপি পারিশ্রমিক নেন। শ্রাবন্তী প্রতিটি ফিল্মের জন্য শ্রাবন্তী পারিশ্রমিক হিসাবে পান ১৮ লাখ রুপি। বাণিজ্যিক বাংলা ছবিতে শ্রাবন্তী বেশ নাম অর্জন করেছেন। মিমি চক্রবর্তী এই সুন্দরী অভিনেত্রীর পারিশ্রমিক ১৭ লাখ রুপি প্রতি ফিল্ম পিছু। সিরিয়ালে অভিনয় দিয়ে তাঁর কেরিয়ার শুরু হলেও, তিনি দিনে দিনে নিজের দক্ষতায় টলিউডে প্রথম সারির অভিনেত্রী হিসাবে উঠে এসেছেন। নুসরাত জাহান বাংলা চলচ্চিত্র জগতে অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। একের পর এক হিট ছবির নায়িকা নুসরাত ছবি পিছু ১৫ লাখ রুপি করে পারিশ্রমিক নেন। সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রত্যেকটি ফিল্ম পিছু ১৪ লাখ রুপি করে পারিশ্রমকি নেন। এই মুহুর্তে বাণিজ্যিক বাংলা ছবিতে তাঁর জনপ্রিয়তা বেশ ভালো। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তা বাংলা চলচ্চিত্রে নব্বইয়ের দশক একাই মাত করে রেখেছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এই অভিনেত্রীর জনপ্রিয়তা এখনও কিছু কম নয়। তাঁর প্রতি সিনেমার পারিশ্রমিক ১১ লাখ রুপি। পাওলি দাম টলিউডের আরেক নামী অভিনেত্রী তথা দক্ষ নায়িকা পাওলি দাম প্রতি ফিল্ম পিছু ১০ লাখ রুপি করে পারিশ্রমিক নেন। বাংলা চলচ্চিত্রের সমান্তরাল ছবিতে পাওলি যেভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন তা প্রশংসনীয়। রাইমা সেন বাংলা চলচ্চিত্রে যে সকল অভিনেত্রী রয়েছেন তাঁদের মধ্যে অন্যতম দক্ষ অভিনেত্রী রাইমা সেন। স্বনামধন্যা অভিনেত্রীর পরিবারের সন্তান এই নায়িকার পারিশ্রমিক প্রতিটি সিনেমা পিছু ৭ লাখ রুমি। পায়েল সরকার পায়েল সরকার প্রতিটি সিনেমা পিছু ৮ লাখ রুপি পারিশ্রমিক হিসাবে নেন। টলিউডের এই মিষ্টি নায়িকা নিজেকে দিন দিন পরিণত করেছেন বাণিজ্যিক ছবি থেকে সমান্তরাল ছবিতে। উল্লেখ্য, বর্তমানে টলিউডে সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক নেন শুভশ্রী গাঙ্গুলি। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া এসএ/ এআর    

ঢাকায় নয়, ‘ডুব’র প্রিমিয়ার হবে কলকাতায়

মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর পরিচালনায় নির্মিত ছবি ‘ডুব’ মুক্তি পাচ্ছে আগামী ২৭ অক্টোবর। তবে বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এ ছবিটি ঢাকায় নয়, প্রিমিয়ার হবে কলকাতায়। সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন ‘ডুব’ ছবির বাংলাদেশের প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আব্দুল আজিজ। তিনি বলেন, ‘ছবির চারজন প্রধান অভিনয় শিল্পীর মধ্যে দুইজন বাংলাদেশের এবং দুইজন ভারতের। ছবির পরিচালক এবং চিত্রনাট্যকার বাংলাদেশের। চিত্রগ্রাহক, সম্পাদক, সংগীত পরিচালক বাংলাদেশের। গল্প বাংলাদেশের। মহরত হয়েছে বাংলাদেশে। শুটিংও হয়েছে বাংলাদেশে। তাই  ভারতীয় অংশের প্রযোজক ছবির প্রিমিয়ার বাংলাদেশে না করে ভারতের কলকাতায় করতে চেয়েছেন। আর তাদের এই চাওয়া আমাদের কাছে যুক্তিসংগত মনে হয়েছে। তাই আমরা প্রযোজকরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ছবির প্রিমিয়ার শো হবে কলকাতায়।’ তিন্ আরও বলেন, ‘২৬ অক্টোবর সন্ধ্যায় প্রিমিয়ারে অংশ নিবেন ইরফান খান, মোস্তফা সরোয়ার ফারুকী, নুসরাত ইমরোজ তিশা, পার্ণো মিত্র  এবং ছবির প্রযোজকরা।’ এ বিষয়ে মোস্তফা সরোয়ার ফারুকী বলেন, ‘ছবির প্রিমিয়ারে তো বন্ধুবান্ধব আর কাছের মানুষেরা অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন। তারা সবাই আমাদের সিদ্ধান্ত বদলের কারণ উপলব্ধি করতে পারবেন। প্রিমিয়ারে হোক আর প্রক্ষাগৃহে হোক, ছবি দেখার অভিজ্ঞতা কিন্তু একই। তাই বন্ধুদের সবাইকে বলব, প্রক্ষাগৃহে ছবিটি দেখুন। দু’দেশেই ‘ডুব’ মুক্তি পাচ্ছে আগামী ২৭ অক্টোবর।’ উল্লেখ্য, ‘ডুব’ ছবিটি বাংলাদেশে জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে ভারতের এসকে মুভিজ ও ইরফান খানের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন বলিউডের অভিনেতা ইরফান খান। সঙ্গে আছেন টালিগঞ্জের পার্নো মিত্র, বাংলাদেশের অভিনেত্রী তিশা, রোকেয়া প্রাচীসহ আরো অনেকে।    এসএ/ এআর    

উড়ুক্কু বাইকে অপরাধী ধরবে দুবাই পুলিশ

বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক ও অভিনব প্রযুক্তির গাড়ি ও বাইক ব্যবহার করে দুবাই পুলিশ। এবার সে ধারায় যুক্ত হলো উড়ন্ত মোটরবাইক। সম্প্রতি দুবাইয়ের পুলিশ উড়ুক্কু মোটরবাইক পরীক্ষা করে দেখেছে। দুবাই পুলিশের বিশ্বাস, মাথার ওপর দিয়ে উঁড়ে যাবতীয় বাধা অতিক্রম করে অপরাধী ধরতে দারুণভাবে কাজে আসবে এই বাইক। এ উড়ন্ত মোটরবাইকের ডিজাইন করেছে রাশিয়ার প্রযুক্তি কোম্পানি হোভারসার্ফ। স্করপিয়ন নামে এ উড়ন্ত মোটরবাইকটি চারটি পাখার ওপর ভর করে শূন্যে অবস্থান ও চলাচল করতে পারবে। বাইক বলা হলেও এটি দেখতে অনেকটা ড্রোনের মতো। বাইকটি একটানা ২৫ মিনিট ধরে ঘণ্টায় ৪০ মাইল বেগে স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলতে পারে। এর একটি সিটে ৬০০ পাউন্ডের কাউকে বহন করা যাবে। এ বছর টেক-শোতে প্রদর্শনের পরপরই দুবাই পুলিশ `স্মার্ট সিটি` পরিকল্পনায় এটি যোগ করে। নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হোভারসার্ফ সিইও আলেকজান্ডার আটামানভ এ বিষয়ে বলেন, ”দুবাই পুলিশের সঙ্গে আমরা একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছি। তারা দুবাইয়ে এই যানের প্রসার বাড়ানোর আমন্ত্রণ জানিয়েছে।” এ উড়ন্ত বাইক পরীক্ষার কাজটিও ইতোমধ্যে সেরে নিয়েছে দুবাই পুলিশ।   এমআর / এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি