চট্টগ্রামের ট্রাফিক পুলিশ চাঁদাবাজিতে বেশি ব্যস্ত

যানজট নিরসনের চেয়ে চাঁদাবাজিতে বেশি ব্যস্ত চট্টগ্রামের ট্রাফিক পুলিশ। দিন- রাত সমান তালে চলে চাঁদাবাজি। ট্রাফিক পুলিশের এই বেপরোয়া চাঁদাবজিতে অতিষ্ঠ চালকরা।

পোর্ট কানেক্টিং রোড, বড়পুল, অংলকার মোড়, সল্টগোলা ক্রসিং, ইপিজেড মোড়, সদরঘাট রোড কিংবা বহদ্দারহাট, জিইসি মোড়সহ নগরীর অধিকাংশ মোড়ে এভাবে চলে গাড়ি থামিয়ে ট্রাফিক পুলিশের চাঁদাবাজি। এতে পুলিশকে সহায়তার জন্য রাখা হয়েছে বেশ কিছু সহযোগী।

সন্ধ্যার পর আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে ট্রাফিক পুলিশ। নগরী ব্যস্ততম জিইসি মোড়সহ বিভিন্ন মোড়ে এভাবে সহযোগিদের নিয়ে চাঁদা তোলার কাজে নেমে পড়ে তারা। একুশে টেলিভিশনের ক্যামেরা দেখার পর পালাতে থাকেন ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর সুভাষ এবং সার্জেন্ট আজিজ।

ট্রাফিক পুলিশের প্রকাশ্যে এই চাঁদবাজিতে ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ।অতিষ্ঠ চালকরাও।

চাঁদাবাজির দৃশ্য ধারণ করার পর কেউ কেউ নিজেদের অসহায়ত্বের কথা বললেও, আবার ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে কেউ কেউ।

কিছু কর্মকর্তা অনিয়মের সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেন ট্রাফিক বিভাগের এই কর্মকর্তাও।

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় শৃংখলা ফিরে আনতে প্রশাসন কার্যকর ব্যবস্থা নেবে- এমন প্রত্যাশা সবার।

Leave a Reply