৫৩ বছর ধরে কাজ করছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতি

 

গরীব ও অসহায় রোগীদের চিকিৎসা সেবায় ৫৩ বছর ধরে কাজ করছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতি। প্রতি বছর এ’খাতে খরচ হচ্ছে প্রায় চার কোটি টাকা। তবে, আর্থিক সংকটে সব রোগীকে সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক ও সমিতির সভাপতি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জালাল উদ্দিন।

সাত মাস বয়সী শিশু আরাফাত। মস্তিস্ক ও মেরুদন্ডে জন্মগত ত্রুটির কারনে জন্মের ১০দিনের মাথায় হাসাপাতালে ভর্তি করেন বাবা-মা। পরে শিশুটিকে নিউরোসার্জারি বিভাগে ফেলে যান তারা। সেসময় পরিত্যক্ত শিশুটির দায়িত্ব নেয় রোগী কল্যাণ সমিতি। সম্প্রতি শিশুটির মাথায় সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। মাসখানেকের মধ্যে মেরুদন্ডে অস্ত্রোপচার হবে বলে জানান চিকিৎসকরা। আর তখন থেকেই শিশুটিকে মাতৃ¯েœহে বুকে তুলে নেন রুমা নামের এতিম এক তরুণী।

শুধু আরাফাত নয়, অসংখ্য অসহায়-দরিদ্র, অজ্ঞাতপরিচয় রোগীকে আর্থিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে রোগী কল্যাণ সমিতি। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ১৯৬২ সালে প্রতিষ্ঠার পর এ পর্যন্ত প্রায় ৩ লাখ রোগীকে সহায়তা দেয়া হয়েছে।

তবে প্রতিদিন প্রায় তিন লাখ টাকা প্রয়োজন হলেও সীমিত তহবিলের কারণে চাহিদা অনুযায়ী রোগীদের সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

এ অবস্থায় প্রান্তিক ও দু:স্থ মানুষের সেবায় সমাজের সহৃদয় ও ধনাঢ্য ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন সমিতির সভাপতি ও হাসপাতালের পরিচালক।

স্বেচ্ছাসেবী এ সংগঠনের পরিধি বাড়াতে বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানসহ সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে এলে আরো বেশি অসহায় মানুষকে চিকিৎসা সেবা দেয়া সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

Leave a Reply