দীর্ঘ সাত বছরে সাফল্য না এলেও এখনো পিপিপি নিয়ে আশাবাদী

দীর্ঘ সাত বছরে সাফল্য না এলেও এখনো পিপিপি নিয়ে আশাবাদী সরকারের নীতিনির্ধারকদের পাশাপাশি বিশ্লেষকরাও। আইন, নীতিমালা চূড়ান্ত হওয়ায় এ’ ক্ষেত্রে এখন আর তেমন প্রতিবন্ধকতা নেই বলে মত তাদের। তবে, পিপিপিতে সাফল্য পেতে দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণে সরকারকে আরও বেশি উদ্যোগী হতে হবে বলে মত দিয়েছেন তারা।

২০০৯-১০ অর্থবছরে প্রথমবারের মতো বাজেটে পিপিপির জন্য অর্থ বরাদ্দ রাখে সরকার। তারপর থেকে ধারাবাহিকভাবেই বাজেটে অর্থবরাদ্দ থাকছে পিপিপির জন্য। কিন্তু খরচ না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত তা স্থানান্তর হচ্ছে অন্য খাতে। আর চলতি অর্থবছরে এর আওতায় আছে ৪৪টি প্রকল্প। এর মধ্যে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে সহ তিন প্রকল্প নির্মাণাধীন। বাকি সব প্রকল্পই রয়েছে অনুমোদন বা সক্ষমতা যাচাইয়ের পর্যায়ে।

সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলো বলছে, পিপিপি নামে না হলেও সরকারি বেসরকারি অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে এদেশে সফল প্রকল্পের শুরু ১৯৯৬ সাল থেকে।

এদিকে, ২০১৫ সালে পাস হয় পিপিপি আইন। চলতি বছর চূড়ান্ত হয়েছে এ’ সংক্রান্ত নীতিমালাও। ফলে আগামী অর্থবছরে এই খাতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হবে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।

তবে, পিপিপির ক্ষেত্রে বড় দুর্বলতা বেসরকারি উদ্যোক্তাদের তেমন আগ্রহ তৈরি না হওয়া।

এখন পর্যন্ত পিপিপিতে নেয়া প্রকল্পগুলোর বেশিরভাগই যোগাযোগ খাতের।

Leave a Reply