নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কার কথা বললেও ব্যবসা পরিচালনায় কোনো সমস্যা দেখছে না বিদেশী কোম্পানিগুলো

নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কার কথা বললেও ব্যবসা পরিচালনায় কোনো সমস্যা দেখছে না বিদেশী কোম্পানিগুলো। এদিকে বর্তমান পরিস্থিতিতে বিদেশী বিনিয়োগ নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই বলেও মনে করছেন ব্যবসায়ী নেতা ও অর্থনীতিবিদরা। তাদের মতে বিনিয়োগ বাড়াতে হলে অবকাঠামো ও জ্বালানি সমস্যা সমাধানের বিকল্প নেই।

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসিদের হামলার মূল টার্গেট ছিলেন বিদেশী নাগরিকরা। এর পরই বিদেশী বিনিয়োগ নিয়ে দেখা দেয় শঙ্কা। তবে কল্যানপুরে জঙ্গী ঘাটিতে অভিযানের পাশাপাশি সরকারের নানা পদক্ষেপে অনেকটাই পাল্টে গেছে দৃশ্যপট।

এখন পর্যন্ত বড় ধরণের বিনিয়োগ প্রত্যাহারের কোন খবর মেলেনি। আর পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদেশী কোম্পানিগুলোর সবশেষ হিসেব বলছে, ব্যবসা বেড়েছে তাদের।

তবে ব্যাক্তিখাতে বিনিয়োগে নেতিবাচক প্রভাব না পড়লেও দাতা সংস্থা নির্ভর একাধিক প্রকল্পে কাজের গতি খানিকটা থমকে গেছে।

এছাড়া নিরাপত্তার চেয়ে বিনিয়োগ আকর্ষনে অন্য চ্যালেঞ্জগুলোই বেশি গুরুত্বপূর্ন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

২০১৫ সালে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগের পরিমান ছিল দুই বিলিয়ন বা দু’শ কোটি মার্কিন ডলার।

 

Leave a Reply