একের পর এক কারখানা দুর্ঘটনায় শ্রমিকের মৃত্যুতে দেশের শিল্পখাতের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন

একের পর এক কারখানা দুর্ঘটনায় শ্রমিকের মৃত্যুতে দেশের বিকাশমান শিল্পখাতের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। ঝুঁকিমুক্ত কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করতে নিয়মিত কারখানা পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেয়ারও তাগিদ দেন তারা। তবে জনবলসহ নানা সংকট থাকলেও আগ্রাধিকার ভিত্তিতে ঝুঁকিপূর্ণ শিল্প প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দ্রুতই ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী।

দিনে দিনে দেশে শিল্পখাতের ব্যাপক প্রসার ঘটে গেছে।

শ্রমিক নেতাদের অভিযোগ, শিল্পের কল্যাণে মালিকরা মুনাফা করছেন, কিন্তু নজর দেননি শ্রমিকদের নিরাপত্তায়। এখনও রয়েছে বঞ্চনা আর শোষণ।

ক্রেতারা পোশাক পেলেই হলো, কিন্তু কীভাবে তৈরি হলো, সেটা নিয়ে মাথা ঘামানোর প্রয়োজন নেই। রানা প্লাজা ট্রাজেডির পর অবশ্য এ মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসেছে পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন।

জিডিপিতে শিল্পের অবদান বাড়ছে, তেমনি রফতানি বাণিজ্যেও ভূমিকা রাখছে শিল্পখাত। অথচ অনেক কারাখানায় শিল্প শ্রমিকদের কাজ করতে হচ্ছে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে নজরদারির কোনো বিকল্প নেই বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নে মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানালেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ।

পর্যায়ক্রমে দেশের সব কারখানা নজরদারির আওতায় আনবে মন্ত্রণালয় ।

Leave a Reply