৫ বছরে পাট পণ্যের রপ্তানী আয় বেড়েছে দ্বিগুণ

গেল ৫ বছরে বহুমূখী পাট পণ্যের রপ্তানী আয় বেড়েছে দ্বিগুণ। রপ্তানীর ক্ষেত্রে কাঁচা পাট তৃতীয় স্থানে। যা দেশের মোট জিডিপির ৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ। বিশ্ব বাজারে বছরে শপিং ব্যাগের চাহিদা প্রায় ৫০ হাজার কোটি পিস। এর ১০ শতাংশ বাজার পাটজাত পণ্যের দখলে থাকলে আয় হবে বিলিয়ন ডলার, এমন আশা সংশ্লিষ্টদের। আর কাঁচাপাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানীতে আন্তর্জাতিক বাজারের সম্ভাবনার কথাও জানিয়েছেন তারা।

গেল অর্থ বছরে ৮২ দশমিক ৪৬ লাখ বেল পাট উৎপাদন হয় দেশে। আর কাঁচাপাট রপ্তানী করে গেল ৫ বছরে আয় হয় প্রায় ৫ হাজার পাচশ চুয়ান্ন কোটি টাকা।

আর পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয় প্রায় ২৮ হাজার ৮’শ ৪৮ কোটি টাকা। কাঁচাপাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানীতে ৫ বছরের আয়ে হিসাব ছাড়িয়েছে প্রায় ৩৪ হাজার ৪শ  দুই কোটি টাকা।

পাট মন্ত্রণালয় বলছে, গেল অর্থবছরে কাঁচা পাট ও পাটজাতপণ্য রপ্তানী করে আয় হয়েছে ৭ হাজার ২শ ৯৪ কোটি টাকা।

উৎপাদনের ৭০ শতাংশই রপ্তানিযোগ্য বলে জানিয়েছে রপ্তানীকারক প্রতিষ্ঠান বিজেজিইএ।

উদ্যোক্তারা আশাবাদী, বাংলাদেশের পাটপণ্য উন্নত বিশ্বে সমাদৃত বলে আগ্রহী হচ্ছে নতুন উদ্যোক্তারাও।

তবে উৎপাদন ব্যয় বেশি এবং বিপণন আয় কম বলে আন্তর্জাতিক বাজারে সামঞ্জস্যতার প্রয়োজন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পাটের প্রাকৃতিক তন্তু আরো প্রক্রিয়াজাত করা হলে বহুমূখী ব্যবহার নিশ্চিতের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতিযোগিতা সম্ভব বলেও মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply