ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর রাষ্ট্রভাষা বাংলা ছাড়াও রয়েছে নিজস্ব মাতৃভাষা

রাষ্ট্রভাষা বাংলা ছাড়াও দেশে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর রয়েছে নিজস্ব মাতৃভাষা। সব মিলিয়ে এর সংখ্যা ৪৩টি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিস্টরা। এসব ভাষার বর্ণমালা সংরক্ষণের উদ্যোগ না থাকায় অনেক জাতি-গোষ্ঠীর মাতৃভাষা হুমকির মুখে পড়েছে। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষা সংরক্ষণ ও বিকশিত করতে ‘আদিবাসী ভাষা একাডেমী’ প্রতিষ্ঠা করা দরকার বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

দেশে ৪৫টিরও বেশী ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বসবায়, তাদের রয়েছে নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি ।

পাবর্ত চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, গাইবান্ধা, টাঙ্গাইলসহ বেশ কয়েকটি জেলার এই জনগোষ্ঠী বাংলার পাশাপাশি কমপক্ষে ৪৩টি ভাষায় কথা বলেন। এরমধ্যে মাত্র ৫টি ভাষার নিজস্ব বর্ণমালা রয়েছে। আর অন্যরা কোনো না কোনো বর্ণমালাকে গ্রহণ করে সেসব ভাষায় কথা বলছে। তবে সেসব ভাষা অনেকটাই হুমকীর মুখে দাবী আদিবাসী জনগোষ্ঠীর।

ইতিহাসবিদ মেজবাহ কামাল মনে করেন, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী স্থানীয় পর্যায়ে ভাষায় ব্যবহার বাড়ালে, মাতৃভাষা অনেকটাই বেঁচে থাকবে ।

প্রাথমিক শিক্ষা এবং প্রযুক্তিতে আদিবাসীদের বর্ণমালা যুক্ত করা গেলে এসব ভাষা বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব বলেও মনে করেন। সেই সঙ্গে ভাষা কমিটি করারও পরামর্শ তার।

২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পুরো পৃথিবী স্বীকৃতি দিয়ে যে মর্যাদা দিয়েছে, তা রক্ষা করতে সব ভাষার লিপি সংরক্ষণ ও বাঁচিয়ে রাখা দরকার বলে মত এই ইতিহাসবিদের।

Leave a Reply