ঝুকিপূর্ণ ১২ টি ভবনের সংস্কার ও নতুন করে নির্মান, অবৈধ মাকের্ট উচ্ছেদ

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ঝুকিপূর্ণ ১২ টি ভবনের সংস্কার ও নতুন করে নির্মানের পক্ষে মত দিলেও লগ্নির অর্থ নিয়ে চিন্তিত মার্কেটের ব্যবসায়ীরা। তবে সংঘাত নয়, পারস্পরিক সহায়তায় এ প্রক্রিয়া এগিয়ে নেয়ার পক্ষে তারা। আর আলোচনার মাধ্যমে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করে মার্কেটগুলো মেরামত করা হবে বলে জানিয়েছে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। তবে অবৈধ মাকের্টগুলো উচ্ছেদ করা হবে বলেও জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের আধীনে পরিচালিত অন্তত ১২টি বাণিজ্যিক ভবন ঝুঁকিপূর্ণ। গুলশান ১ ও ২ কাচা মার্কেট, গাবতলি, খিলগাও, কাওরান বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় এসব ভবনগুলোতে ব্যবসায়ী ও আর কর্মচারিরা দিন পাড় করছেন আতংকে।

মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আনিসুল হক জানান, এসব ভবন সংস্কার ও নতুন করে নির্মান জরুরী।

দূর্ঘটনা এড়াতে মেয়রের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন দোকান মালিক সমিতির নেতারা। চেয়েছেন পূনর্বাসন সহায়তা।

তবে ঝুকিপূর্ন মার্কেটের ব্যবসায়ি আর কর্মচারিরা চিন্তিত পুঁজি ও কর্মসংস্থান নিয়ে। নতুন ভবন নির্মান করলে কি ভাবে উঠে লগ্নির অর্থ, সেই প্রশ্নও তাদের।

মার্কেট গুলোর সংস্কার কাজ সহজ। তবে নতুন ভবন নির্মান করে ব্যবসায়িদের বুঝিয়ে দেয়া কঠিন হবে বলে জানিয়েছেন উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী।

দূর্ঘটনা রোধে ব্যক্তি মালিকানাধিন ১৪১টি ঝুকিপূর্ন ভবনের মালিকদের সাথেও আলোচনা করার কথাও জানান প্রধান নির্বাহী।

এছাড়া নিয়মিত অভিযানে অবৈধ মার্কেট গুলো উচ্ছেদ করার প্রক্রিয়ার কথাও বলেন এই কর্মকর্তা।

Leave a Reply