চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হয়েছে একুশে টেলিভিশনের ব্রাইট এন্ড ব্রিলিয়ান্ট জার্নালিস্ট অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠান

জমকালো আয়োজনে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হয়েছে একুশে টেলিভিশনের ব্রাইট এন্ড ব্রিলিয়ান্ট জার্নালিস্ট অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠান। মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রামের একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার ৫ সাংবাদিককে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে তুলে ধরা হয় চট্টগ্রামে একুশে টেলিভিশনের ভবিষ্যত পরিকল্পনা।

প্রথমবারের মতো চট্টগ্রামে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের সম্মাননা দিতে ব্রাইট ও ব্রিলিয়ান্ট অ্যাওয়ার্ড চালু করলো একুশে টেলিভিশন। মঙ্গলবার রাতে হোটেল রেডিসন ব্লু চিটাগাংয়ের ব্লু ভিউতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগ দেন চট্টগ্রামের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী-শিল্পপতিসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ।

দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন সাংবাদিকরা। সাংবাদিকদের এই সম্মাননা প্রদানের মধ্য দিয়ে নতুন ধারা সৃষ্টি করলো একুশে টেলিভিশন। ভবিষ্যতে এ’ ধারা অব্যহত থাকবে বলে জানান একুশে টেলিভিশনের ভাইস চেয়ারম্যান।

বলিউডের সুপার স্টার অমিতাভ বচ্চন, ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারের সাক্ষাতকার নেয়ার গল্প শোনান কলকতার ‘সংবাদ প্রতিদিন’ পত্রিকার সিনিয়র সাংবাদিক গৌতম ভট্টাচার্য। শততম টেষ্টে বিজয়ের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানান তিনি।

একুশে টেলিভিশনের ভবিষ্যত পরিকল্পনা তুলে ধরে প্রধান সম্পাদক ও প্রধান নির্বাহী বলেন, সাংবাদিকতা মুর্খ, দুর্বৃত্ত ও অসৎ মানুষের পেশা নয়। প্রকৃত সাংবাদিকতা টিকে থাকবে শিক্ষিতদের হাতে, রুচিশীলদের হাতে, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মাধ্যমে।

পরে ঘোষণা করা হয় পুরষ্কার পাওয়া ৫ সাংবাদিকদের নাম। তারা হলেন, দৈনিক প্রথম আলো’র একরামুল হক বুলবুল, কালের কন্ঠের আসিফ সিদ্দিকী, দৈনিক সমকালের সরওয়ার সুমন, বাংলা নিউজের রমেন দাশ গুপ্ত এবং সময় টিভির কমল দে। একুশে টেলিভিশনের পক্ষ থেকে তাদের দেয়া হয় এক লাখ টাকা করে সম্মাননা।

এরপর অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

Leave a Reply