সর্বত্র বাংলা ভাষা প্রচলন আইন অনুসরণের নির্দেশনা হাইকোর্টের, কার্যকর হয়নি আজও

ভাষার জন্য বাঙালীর আত্মত্যাগ বিশ্ব দরবারে স্বীকৃতি পেলেও, দেশের আদালতে এখনো উপেক্ষিত বাংলা। সর্বোচ্চ আদালতেও সব কার্যক্রম চলে ইংরেজীতে। অথচ, ২০১৪ সালে বাংলাদেশের সর্বত্র বাংলা ভাষা প্রচলন আইন অনুসরণের নির্দেশনা দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। কিন্তু, আদালতের সেই নির্দেশনা আজো কার্যকর হয়নি। সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালুর তেমন উদ্যোগ নেই কর্তৃপক্ষেরও।

একুশে ফেব্র“য়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ। ১৯০টি দেশের মানুষ এ’ দিবসটি পালন করে, যা বাংলা ভাষার জন্য দুর্লভ সম্মানের।

কিন্তু, জাতি হিসেবে আমরা কতটুকু উপলব্ধি করতে পেরেছি বাংলা ভাষাকে? সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালুর বিষয়ে ২০১৪ সালের ফেব্র“য়ারিতে হাইকোর্টে রিট করেছিলেন আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ। সেই রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলা ভাষা প্রচলন আইন- ১৯৮৭ অনুযায়ি অফিস-আদালতসহ সর্বত্র বাংলা ভাষা ব্যবহারের নির্দেশ দেয় আদালত।

সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগের অধিকাংশ রায়, আদেশ বা নির্দেশনাও দেয়া হয় ইংরেজিতে। শুধু তা-ই নয়, আইনজীবীরাও তাদের শুনানি করেন ইংরেজি ভাষায়। তবে, সুপ্রিম কোর্ট রুলসেও ভাষা হিসেবে প্রথমে বাংলা ও পরে আদালতের ভাষা ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে।

যদিও কয়েকজন বিচারপতি বাংলায় রায় দিচ্ছেন। তবে, প্রতিশব্দ আর বেঞ্চ অফিসারদের বাংলায় রায় না লিখতে পারার কারণে সমস্যায় পড়তে হয় বলে জানালেন সাবেক এই প্রধান বিচারপতি।

বাংলায় রায় দেয়ার সুবিধার্থে আগামী জুনের মধ্যে একটি আইন শব্দকোষ লেখা শেষ হবে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply