অনুষ্ঠানসূচি ১১.০৫.১৬

সকাল    ০৬.৩০        কোরআন ও সুন্নাহ্’র আলোকে বিশেষ অনুষ্ঠান: কোরআনের সূত্র।
সকাল    ০৭.০০        সঙ্গীতানুষ্ঠান।
সকাল    ০৮.০০        ধারাবাহিক নাটক ঃ থার্ড আই।
সকাল    ০৮.৩০        ধারাবাহিক নাটক ঃ অন্ধকারের গান।
সকাল    ০৯.০০        একুশে সংবাদ।
সকাল    ১০.০০        একুশের সকাল। (সরাসরি)
সকাল    ১০.৩০         ব্যবসা বানিজ্য সংক্রান্ত সরাসরি অনুষ্ঠান: একুশের বিজনেস।
সকাল    ১১.০০        দেশের খবর।
সকাল    ১১.১৫        চট্রগ্রাম সংবাদ।
সকাল    ১১.৩০        ব্যবসা বানিজ্য সংক্রান্ত সরাসরি অনুষ্ঠান: একুশের বিজনেস।
দুপুর    ০২.০০        একুশে সংবাদ।
সন্ধ্যা    ০৬.৩০        চিত্র বিচিত্র।
সন্ধ্যা    ০৭.০০        একুশে সংবাদ।
রাত    ০৮.০০           ধারাবাহিক নাটক ঃ কাছাকাছি। অভিনয়ে: ইন্তেখাব দিনার, বিজরী বরকতউল্লাহ্,         জেনি, শতাব্দী ওয়াদুদ, মঈন আহমেদ, নাজিবা বাশার, আনোয়ারুল হক, সাজু খাদেম,         স্বাগতা,    এজাজুল ইসলামসহ আরও অনেকে।
রাত    ০৮.৩০           ধারাবাহিক নাটক ঃ রূপকথার মা। অভিনয়: জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, সাদিয়া ইসলাম মৌ,         ফারুক আহমেদ, শ্যামল মাওলা, শামিমা তুষ্টি, মাজনুন মিজান, টুটুল চৌধুরী, আহসান         কবীরসহ আরও অনেকে।
রাত    ০৯.০০        একুশে সংবাদ।
রাত    ০৯.৩০        ডেইলী সোপ: ‘তুমি আসবে বলে’।
রাত    ১১.০০        একুশে সংবাদ।
রাত    ১২.০০        একুশের রাত।

Rupkothar Ma (28)আজ ধারাবাহিক নাটক ‘রূপকথার মা’
একুশে টেলিভিশনে আজ বুধবার প্রচার হবে ধারাবাহিক নাটক ‘রূপকথার মা’। শরৎচন্দ্র চট্টোপধ্যায় এর উপন্যাস অবলম্বনে ধারাবাহিক নাটক ‘রূপকথার মা’। অঞ্জন আইচের চিত্রনাট্য এবং পরিচালনায় নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, সাদিয়া ইসলাম মৌ, ফারুক আহমেদ, শ্যামল মাওলা, শামিমা তুষ্টি, মাজনুন মিজান, টুটুল চৌধুরী, আহসান কবীরসহ আরও অনেকে। ধারাবাহিকটি প্রতি বুধ, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার রাত ৯টা ৩০মিনিট প্রচার হবে ।

কাহিনী সংক্ষেপ: সবাই তাকে ডাকে নতুন মা। মা যেন তার পদবী। সে রাখালের কাছে মা আরার তারকের কাছেও মা। হঠাৎ কওে তার মনে হয় বহুদিন আগের কথা।যখন সে ব্রজ বাবুর সংসার থেকে এক কাপরে বেরিয়ে এসেছিল। ব্রজ বাবু অত্যন্ত ভাল ও সাধু প্রকৃতির মানুষ। কোন ধরনের দোষত্র“টি তার মধ্যে নেই। তারপরও বিনা কারণে তাকে ত্যাগ করে রমনীর হাত ধরে  চলে যায় সে। অথচ রমনী তাকে তার যোগ্য সম্মান দিতে পারেনি, বরং তাকে এক রকম রক্ষিতা বানিয়ে রেখে দেয়। এই নিয়েই চলতে থাকে তার জীবন যাপন। এবাবে কেটে যায় প্রায় ১২ বছর। কাহিনীর এ পর্যায়ে নতুন মা দেখা করতে আসে ব্রজ বাবুর সাথে। ব্রজ বাবুকে দেখে তার খুব বেশী কষ্ট হয়। সে তাকে এক রকমের সান্তনা দিতে শুরু করে। কিন্তু ব্যাপারটা॥টের পেয়ে যায় রমনী বাবু। এই নিয়ে অশান্তি শুরু করে। সব দোষ গিয়ে পরে রাখালের উপর। এর মধ্যে নতুন মায়ের ভাড়াটিয়া সাবদা আত্ম হত্যার চেষ্টা করে। কাহিনী মোড় নেয় জটিল দিকে। ও দিকে এলাকায় চলে আসে এক কাপালিক আর এক ব্যবসায়ী। নতুন মা হুট করে বিরাট এক বাড়ি কিনে নেয়।

Kachhakachhi Still 12 [Original Size]আজ ধারাবাহিক নাটক ‘কাছাকাছি’
আজ বুধবার একুশে টেলিভিশনে প্রচার হবে ধারাবাহিক নাটক ‘কাছাকাছি’। পাঁচ তরুন তরুনীর জীবনে প্রতিনিয়তই ঘটতে থাকে নানা রকম হাসি কান্না এবং কষ্ট নিয়ে নির্মিত নাটক ‘কাছাকাছি’। ইরাজ আহমেদের রচনা এবং মোন্তাসির বিপনের পরিচালনায় ধারাবাহিক নাটক ‘কাছাকাছি’ এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইন্তেখাব দিনার, বিজরী বরকতউল্লাহ্, জেনি, শতাব্দী ওয়াদুদ, মঈন আহমেদ, নাজিবা বাশার, আনোয়ারুল হক, সাজু খাদেম, স্বাগতা, এজাজুল ইসলামসহ আরও অনেকে। ধারাবাহিকটি প্রতি বুধ, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার রাত ৯টায় প্রচার হবে ।

কাহিনী সংক্ষেপ ঃ
এই নাটকের কাহিনী হতে পারত একটা ছোট্ট কফি টেবিলকে ঘিরে থাকা পাঁচটি চেয়ারের গল্প। আঁৎকে ওঠার মত কথাই। না, আসলে পাঁচটি চেয়ারে বসা পাঁচটি চরিত্রের গল্প। ভিন্ন বয়েসী পাঁচটি জীবনের বর্ষা, বসন্তের গল্প। এই পাঁচ চরিত্রের একজন চারু। পেশায় প্রকৌশলী। চারুর জীবনে এক হাজার যন্ত্রনা। আনন্দ একটাই। কফি টেবিলকে ঘিরে পাঁচ বন্ধুর আড্ডা। চারুর ধারনা তার জীবনের হাজারো ভুলের মাঝে সবচাইতে বড় ভুল গল্প’র প্রেমে পড়া। গল্প হল এই গল্পের দ্বিতীয় চরিত্র। একটি বুটিক হাউজের মালিক। চারুর হাত ধরেই এই আড্ডার অন্যদের সাথে পরিচয় তার। চারুর সঙ্গে সঙ্গে এই আড্ডার সভাপতির চেয়ারটিও এখন গল্প’র দখলে। তার মেজাজের কারণে বাকী তিন মূর্তি তাকে ভয় পায়। তৃতীয় চরিত্রের নাম মোহাম্মদ আবুল কালাম সংক্ষেপে ম্যাক। একজন ডেইলীসোপ লেখক। ম্যাকের বিশ্বাস জীবনটাই একটা ডেইলীসোপ। যার সবকিছুই চিত্রনাট্যের মতন পূর্বনির্ধারিত। যে আড্ডার টানে এই চরিত্রগুলো ছুটে আসে, সেই আড্ডা বসে চতুর্থ চরিত্র ফান্টির ফ্ল্যাটে। হাত পা ঝাড়া বেকার ফান্টি একজন ভোজন বিলাসী। একদিন এই চারজনের আড্ডায় পঞ্চম চরিত্রের আবির্ভাব ঘটে । ইংল্যান্ড প্রবাসী লিসা শেকড়ের সন্ধানে এদেশে এসে জড়িয়ে যায় অন্য চার চরিত্রের সঙ্গে।

গল্পর সাথে চারুর একটা ‘টম অ্যান্ড জেরি’ খেলা আছে। সেই খেলার বাংলা নাম সন্দেহ। গল্প সারাক্ষণ সন্দেহ করে চারু তাকে বাদ দিয়ে প্রেমে পড়েছে অন্য মেয়ের। চারুর জীবনের সব শান্তি এই সন্দেহের বন্দুকের সামনে তছনছ।  এরমধ্যে ওই বাড়িতে বিদেশ থেকে লিসা নামের একটি মেয়ের আগমন ঘটে। লিসা আসে তার হারানো বাবাকে খুঁজতে। কিন্তু সেখান থেকে গল্প তৈরী করে নেয় নতুন সংকট।  ছোট ছেট কাহিনীতে ভর করে এগিয়ে চলে নাটক ‘কাছাকাছি’ আর তাতে প্রতিফলিত হয় এই সমাজেরই নানা চরিত্র।

Tumi Asbe Bole-1প্রতিদিনের ধারাবাহিক ‘তুমি আসবে বলে’

একুশে টেলিভিশনে আজ প্রচার হবে প্রতিদিনের ধারাবাহিক নাটক ‘তুমি আসবে বলে।’ একজন নারীর একাকিত্ব এবং পারিপর্শ্বিক পরিস্থিতি নিয়ে নিমির্ত হয়েছে নাটকটি। টুকু মজনিউলের রচনা এবং লুৎফুন নাহার মৌসুমীর পরিচালনায় প্রতিদিনের ধারাবাহিক নাটকটিতে অভিনয় করেছেন ঈশানা, লায়লা হাসান, শাহেদ শরীফ খান, শানু, রওনক হাসান, মানস বন্দোপধ্যায়, মুনমুন আহমেদ, নাজনীন চুমকীসহ আরও অনেকে। ধারাবাহিকটি একুশে টেলিভিশনে প্রতিদিন রাত ৯টা ৩০মিনিট প্রচার হচ্ছে।

কাহিনী সংক্ষেপ: মাহিনকে ছেড়ে আমেরিকা প্রবাসী পাত্রকে নিজের স্বামী হিসেবে কোন ভাবেই ভাবতে পারে না শশী। তাই হাজারটা প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে মফস্বল ছেড়ে ঢাকায় মাহিনের মেসে এসে হাজির হয় শশী। কিন্তু শশীকে প্রচন্ড ভালোবাসলেও গরীব বাবা মার বেকার সন্তান মাহিন কোন ভাবেই শশীকে গ্রহণ করতে প্রস্তুত হয়নি। বাড়ি থেকে পালিয়ে আসা শশী সিদ্ধান্ত নেয় আর বাড়ি ফিরে যাবে না।
হৃদয় খন্ড বিখন্ড নিরুপায় শশীকে বোনের বাসায় আশ্রয় দেয় পূর্ব পরিচিত উচ্ছাস। কিছুদিন পর উচ্ছাসের বোনের প্রস্তাবে নিরুপায় শশী বিয়ে করে উচ্ছাসকে। বিয়ের পরপরই উচ্ছাসের আসল পরিচয় বেড়িয়ে আসে শশীর কাছে। শশী উচ্ছাসের দ্বিতীয় স্ত্রী। উচ্ছাসের বিকৃত রুচি আর বদমেজাজের স্বীকার হয়ে প্রথম স্ত্রী ডিভোর্স দেয় উচ্ছাসকে। এমন পরিস্থিতিতে পাশের বাসার শিক্ষিত সচেতন দিলারা আপা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। শশীকে স্বাবলম্বী করার জন্য চাকুরি, উচ্ছসকে ডিভোর্স দেয়সহ ছোট একটি পরিবারের সাথে সাবলেটের ব্যবস্থা করে দেন।

শামা এবং বাঁধনের পরিবারে সাবলেট থাকার সময় বিচিত্র পরিস্থিতির সম্মুখীন হন শশী। বাঁধনের কু-প্রস্তাবে দিশেহারা শশীকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন মাহিন। মাহিন এখন ভালো চাকুরি করে। শশীর জীবন সংগ্রামের ঘটনা  শুনে অন্যত্র থাকার ব্যবস্থা করে দেন। অফিস থেকে ফেরার পথে প্রতিদিনই দেখা হয় মাহিন আর শশীর। এভাবে চলার মাঝে কোন এক দূর্বল মুহূর্তে দুজনের শারিরীক সম্পর্ক হয়। আত্মগ্লানিতে ভুগতে থাকা শশী সিদ্ধান্ত নেয় মাহিন কে বিয়ে করবে। সব ঠিক থাকলেও সড়ক দূর্ঘটনায় মাহিন মারা যায়।
কিছুদিন পর নিজের ভেতর আর একটি জীবনের অস্তিত্ব অনুভব করে শশী। কি করবে একাকী শশী?

Leave a Reply