ঢাকা, ২০১৯-০৬-২৬ ৯:৫০:৩৮, বুধবার

Ekushey Television Ltd.

জঙ্গি শনাক্তকরণ বিজ্ঞাপন নিয়ে যা বললেন পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যয়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০১:০০ পিএম, ১৭ মে ২০১৯ শুক্রবার | আপডেট: ০১:৫৪ পিএম, ১৭ মে ২০১৯ শুক্রবার

জঙ্গি শনাক্তকরণ বিষয়ে গত সোমবার পত্রিকায় প্রকাশিত বিজ্ঞাপনের সাথে  ‘সম্প্রীতি বাংলাদেশ’র কোনো সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেছেন সংগঠনটির আহ্বায়ক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।  

সন্দেহভাজন জঙ্গি সদস্য শনাক্তকরণের কিছু নির্দেশক তুলে ধরে গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিজ্ঞাপনটিকে ‘অনভিপ্রেত’ ও ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ আখ্যা দিয়ে সেটি ‘সম্প্রীতি বাংলাদেশের’ পক্ষ থেকে দেওয়া হয়নি বলে দাবি করেন তিনি।  

তিনি বলেন, প্রকাশিত জঙ্গি শনাক্তকরণ বিজ্ঞাপনটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। বিজ্ঞাপনটিতে সরল প্রাণ মানুষের মনে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করতেই মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তি এমন অপপ্রচার চালিয়েছে। ওই বিজ্ঞাপনের সাথে সম্প্রীতি বাংলাদেশের কোনো সম্পর্ক নেই।

প্রকাশিত পত্রিকায় ‘সন্দেহভাজন জঙ্গি সদস্য শনাক্তকরণের (রেডিক্যাল ইন্ডিকেটর) নিয়ামকসমূহ’ শিরোনামে ‘সম্প্রীতি বাংলাদেশের’ নামে একটি পোস্টার ছাপানো হয়। সেখানে দাঁড়ি রাখা ও টাখনুর উপর কাপড় পরাসহ বেশ কিছু আচারকে জঙ্গি লক্ষণ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে।

অন্য লক্ষণগুলোর মধ্যে ধর্ম চর্চার প্রতি ঝোঁক; গায়ে হলুদ, জন্মদিন পালন, গান বাজনা থেকে গুটিয়ে রাখা; মিলাদ, শবেবরাত, শহীদ মিনারে ফুল দেওয়াকে ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে সমালোচনা করা ইত্যাদি আচরণের কথা তুলে ধরা হয়েছে।

বিজ্ঞাপনটি প্রকাশিত হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমূল সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় ‍ওঠে। এটাকে অনেকে ধর্মীয় অনভূতিতে আঘাত বলে অভিহিত করেন। পরে সেটি পত্রিকায় প্রকাশিত হলে বিষয়টি আলোচনায় আসে। এমন প্রেক্ষাপটে প্রকাশিত বিজ্ঞাপনের ৪ দিন পর সংবাদ সম্মেলন করেন পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যয়।

পীযূষ বলেন, সম্প্রীতি বাংলাদেশ মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী এবং সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল একটি সামাজিক সংগঠন। সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে অসাম্প্রদায়িক জাতিসত্বার পক্ষে কাজ করে চলেছে।

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্সের’ ঘোষণার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, সম্প্রীতি বাংলাদেশ সব মহলের সক্রিয় সহযোগিতায় সব ধরণের উগ্রবাদ, সন্ত্রাসবাদ, ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সবসময় সক্রিয় রয়েছে এবং ভবিষতেও থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশে থাকবে আন্তঃধর্ম সুসম্পর্ক। থাকবে না কোনো প্রকার বৈষম্য, থাকবে না কোনো নিপীড়ন-নির্যাতন।

সংগঠনের আহ্বায়ক পীযুষ বন্দোপাধ্যায়ের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ডা. মামুন আল মাহতাবের (স্বপ্নীল) উপস্থাপনায় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী শিকদার, সাবেক সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ, ইসলামী ঐক্যজোট চেয়ারম্যান মাওলানা মিছবাহুর রহমান চৌধুরী ও বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি উইলিয়াম প্রলয় সমাদ্দার।

আই//

ফটো গ্যালারি



© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি