ঢাকা, ২০১৯-০৫-২৬ ১১:৪২:৩০, রবিবার

আজ দেশে ফিরছেন রাষ্ট্রপতি

আজ দেশে ফিরছেন রাষ্ট্রপতি

মেডিকেল চেকআপ শেষে আজ রোববার দেশে ফিরছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে রাষ্ট্রপতিকে বহনকারী বিমানটি। শনিবার রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের প্রেস অনুবিভাগ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে ১৫ মে বুধবার চোখের চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে যান তিনি। ওই দিন সকাল ৯টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন রাষ্ট্রপতি। রাষ্ট্রপতিকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে মোমেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কূটনৈতিক কোরের ডিন, যুক্তরাজ্য ও জার্মানির দূত, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, মুখ্য সচিব, তিন বাহিনীর প্রধান, আইজিপি ও স্বরাষ্ট্র সচিব।
হালদায় ডিম ছেড়েছে মা রুই

বিশ্বের একমাত্র জোয়ার-ভাটার মিঠা পানির চট্টগ্রামের হালদা নদীতে রুই জাতীয় (রুই, কাতাল, মৃগেল ও কালিবাইশ) মা-মাছ এ বছর দ্বিতীয় দফায় নমুনা ডিম ছেড়েছে। শনিবার ভোরে হাটহাজারী ও রাউজান উপজেলা সংলগ্ন নদীর বিস্তীর্ণ অংশের বিভিন্ন স্পটে মা-মাছ নমুনা ডিম ছাড়ে।এর আগে চলতি ৪ মে রাতে ও ৫ মে ভোরে প্রথম দফায় নমুনা ডিম ছেড়েছিল হালদার মা মাছ। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার পর প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হলে নদীর পাড়ে অবস্থান নেন ডিম আহরণকারীরা। প্রবল বর্ষণের ফলে হালদার সঙ্গে সংযুক্ত খাল, ছড়া ও নদীতে ঢলের সৃষ্টি হয় এবং রুই জাতীয় (রুই, মৃগেল, কাতল, কালিবাউশ) মাছ নমুনা ডিম ছাড়ে। সাধারণত, চৈত্র ও বৈশাখ মাসে প্রবল বর্ষণ হলে মা মাছ ডিম ছাড়ে। কিন্তু এবার বৃষ্টির পরিমাণ কম থাকায় ঢলের প্রকোপ হয়নি। বৈশাখ মাসের মাঝামাঝিতে নদীতে মা মাছ অল্প ডিম ছেড়েছিল। মা মাছ সাধারণত অমাবস্যা, অষ্টমী ও পূর্ণিমা তিথিতে নদীতে ডিম ছাড়ে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হালদা রিভার রিসার্চ ল্যাবরেটরির সমন্বয়ক ড. মঞ্জুরুল কিবরিয়া বলেন, নিয়মিত অভিযান চালিয়ে মা মাছ সংরক্ষণ, ডিম থেকে রেণু তৈরির কুয়া সংস্কার, কুয়ায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থাসহ নানা উদ্যোগের কারণে হালদায় ডিম সংগ্রহের পরিমাণ এবার অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যেতে পারে। তিনি জানান, হালদা থেকে ২০১৮ সালে ২২ হাজার ৬৮০ কেজি, ২০১৭ সালে একহাজার ৬৮০ কেজি, ২০১৬ সালে ৭৩৫ কেজি (নমুনা ডিম), ২০১৫ সালে দুই হাজার আটশ’ কেজি এবং ২০১৪ সালে ১৬ হাজার পাঁচশ’ কেজি মাছের ডিম সংগ্রহ করা হয়। হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন বলেন, দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদায় সংগ্রহকারীরা যাতে ভালো ডিম সংগ্রহ করতে পারেন এ জন্য মা মাছ সংরক্ষণের উপর জোর দেয়া হয়। তিনি জানান, ইঞ্জিনচালিত নৌকা জব্দ, নিষিদ্ধ জাল ধ্বংসসহ হালদার দূষণ কমাতে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হয়। পাশাপাশি, ডিম থেকে রেণু তৈরির কুয়াগুলো সংস্কারের উদ্যোগ ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়। আরকে//

সরকার ঢাকা-কক্সবাজার রুটে পর্যটন ট্রেন চালু করবে: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা-কক্সবাজার রুটে সরকার দ্রুতগামী পর্যটন ট্রেন চালুর উদ্যোগ নেবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, সরকার দেশে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে চায়। দারিদ্র্য বিমোচনের পাশাপাশি সকলের আধুনিক জীবন নিশ্চিত করতে চায়। শনিবার (২৫ মে) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে সেমি ননস্টপ ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ নামক দ্রুতগামী ট্রেন উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন তিনি। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এসময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন পঞ্চগড় রেল স্টেশন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে বক্তৃতা করেন। মন্ত্রিসভার সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ, ঢাকায় নিযুক্ত ইন্দোনেশিয় রাষ্ট্রদূত রীনা পি. সোয়েমার্নো এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত এডিবি’র কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ গণভবন প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন।রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন বাংলাদেশ রেলওয়ের সামগ্রিক উন্নয়ন কর্মকান্ডের ওপর অনুষ্ঠানে একটি ভিডিও ডকুমেন্টারী উপস্থাপন করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার দেশে উন্নত ও আধুনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলে দেশের দারিদ্র্য বিমোচন করার পাশাপাশি সকলের উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে চায়। রেলের প্রতি মানুষের আগ্রহ বেড়েছে উল্লেখ করে সরকার প্রধান বলেন, সারাদেশে রেল নেটওয়ার্কের বিস্তার ঘটছে এবং এই প্রেক্ষাপটে রেলের কারখানাগুলোকে আরো আধুনিক করার উদ্যোগ নিতে হবে। পণ্য পরিবহনে আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহণের অংশ হিসেবে রেলে আধুনিক ওয়াগন সংযোজনের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন প্রধানমন্ত্রী। সারাদেশে রেল নেটওয়ার্ক বিস্তৃত করার উদ্যোগ তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে রেল সংযোগ স্থাপন করে বরিশাল পর্যন্ত সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বরিশাল থেকে পায়রা পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের পাশাপাশি পঞ্চগড় থেকে বাংলাবান্ধা পর্যন্ত রেল সংযোগ স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে তার সরকার রেলপথ মন্ত্রণালয়কে আলাদা মন্ত্রণালয় হিসেবে গঠন করে সারাদেশে রেল সংযোগের উন্নয়ন কার্যক্রম গ্রহণ করে। পাশাপাশি আঞ্চলিক রেলসংযোগসহ ট্রান্স এশিয়ান রেলওয়েতে যুক্ত হওয়ার জন্য তাঁর সরকার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে। শেখ হাসিনা তার বক্তব্যে নতুন রেল স্টেশন নির্মাণসহ গত ১০ বছরে ৩৪৬ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণ এর পাশাপাশি নতুন নতুন রেল স্টেশন, নতুন ট্রেন চালু করা, সিগন্যাল ব্যবস্থার আধুনিকায়ন, বন্ধ রেল স্টেশন চালু করা এবং নতুন জনবল নিয়োগসহ বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ রেলওয়েতে নতুন জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে তাঁদের জন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। বিএনপি’র আন্দোলনের নামে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা এবং যানবাহন, ভাংচুড়-অগ্নিসংযোগসহ রেলের ফিসপ্লেট খুলে ফেলে রেলকে লাইনচ্যুত করা এবং অগ্নিসংযোগ করে গণবান্ধব পরিবহন রেল ধ্বংসের অপচেষ্টার কঠোর সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতুর পাশাপাশি পৃথক একটি রেলসেতু গড়ে তোলার জন্য বিশ্বব্যাংকের প্রস্তাব অনুযায়ী ইতোমধ্যে জাপান সরকারের সঙ্গে তাঁদের আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার রেলের প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ উৎপাদনে দেশের পার্বতীপুর, সৈয়দপুর সান্তাহারে থাকা রেলের যন্ত্রাংশ নির্মাণ কারখানাগুলোকেও উন্নত করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, শুধু মেরামতের জন্য নয়, ভবিষতে যাতে রেল ওয়াগন থেকে শুরু করে সবকিছু আমরা তৈরী করতে পারি সেদিকে আমাদের বিশেষভাবে দৃষ্টি দিতে হবে। আর এই রেলের সঙ্গে সঙ্গে যেখানে যেখানে আমাদের সড়ক ক্রসিং থাকবে সেগুলোতে ফ্লাইওভার বা ওভারপাস করে দেওয়ার উদ্যোগও সরকার গ্রহণ করছে। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের সাথে দারিদ্র্য বিমোচন অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত বলে অভিমত ব্যক্ত করেন শেখ হাসিনা। তিনি পঞ্চগড়বাসীসহ দেশবাসীকে এ সময় তাঁর দলকে পুনরায় নির্বাচিত করায় কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, তাঁরা ভোট দিয়ে আমাদের সেবা করার সযেযাগ দিয়েছেন বলেই আমরা এই কাজগুলো করতে পারছি। তিনি রেলের যত্ন নেওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, আমরা যে কাজগুলো করেছি এগুলো যেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে এবং অক্ষত থাকে। কারণ, এটা যে জনগণের সম্পদ সে কথা সবাইকে মনে রাখতে হবে এবং সেভাবে যত্ন করেই এগুলো ব্যবহার করতে হবে। আরকে//

নকল প্রসাধনীর ৮ দোকান সিলগালা, আটক ৯

রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজারে খাতুন মার্কেটে নকল প্রসাধনী সংরক্ষণ ও পাইকারি বিক্রির দায়ে আটটি দোকানকে সিলগালা করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় নয়জনকে আটক করা হয়েছে। শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ওই দোকানগুলোতে অভিযান চালায় র‌্যাব। র‌্যাব-১০ এর সদস্যদের সহায়তায় অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। নির্বাহী সারওয়ার আলম বলেন, গোপন সংবাদে জানতে পারি খাতুন মার্কেটের নকল কসমেটিক বিক্রি ও গোডাউনে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এমন অভিযোগের সত্যও মিলেছে অভিযানে। প্রায় ৩৩ প্রকারের প্রসাধনী ও কসমেটিক পণ্য নকল করে বাজারে বিক্রি করেছে। এ সব অপরাধে এখানকার আটটি দোকানকে সিলগালা ও ৯ জনকে আটক করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ব্যবসায়ীদেরও সতর্ক করা হয়েছে। যাতে ভবিষ্যতে তারা নকল প্রসাধনীর ব্যবসা না করেন। আরকে//

৫ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদলি

বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অ্যাডিশনাল এসপি) পদমর্যাদার ৫ জন কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। গত ২২ মে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের অতিরিক্ত ডিআইজি (পার্সোনেল ম্যানেজমেন্ট-১) আমিনুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ বদলি করা হয়। টাঙ্গাইলের (সদর) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাসুদুর রহমান মনিরকে ডিএমপির অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার, এসএমপির অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার বিজয়া সেনকে ৯ম এপিবিএন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, র‌্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মমতাজুল ইসলামকে রেলওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ময়মনসিংহের (সদর) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার লাবনীকে কেএমপির অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার ও ১১ এপিবিএন ঢাকার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরিদা পারভীনকে নৌ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে বদলি করা হয়েছে। আরকে//

গণপরিবহনে ধূমপানমুক্ত পরিবেশ রাখতে নির্দেশনা

পাবলিক প্লেস ও পরিবহনে ধূমপানমুক্ত পরিবেশ বজায় রাখতে দুটি নিদের্শনা পত্র জারি করেছে বিআরটিএ। সরকার ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ক্ষতিকর দিক বিবেচনা করে ‘ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন-২০০৫’ প্রণয়ন করেছে। এই আইনের ৪(১) ধারা অনুযায়ী পাবলিক প্লেস ও গণপরিবহনে ধূমপান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বিআরটিএ নির্দেশনার মধ্যে একটি হলো, বিআরটিএ সদর কার্যালয় ও সকল বিভাগীয় অফিস এবং সার্কেল অফিসকে ‘ধূমপান মুক্ত এলাকা’ ঘোষণা এবং এ আইন অনুযায়ী সর্তকবার্তা অফিসের দৃশ্যমান স্থানে একাধিক জায়গায় প্রদর্শনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ। অপরটি হলো, পাবলিক পরিবহনে ধূমপান রোধে জনসচেতনা বৃদ্ধির জন্য আইনের ধারা ৮ অনুসারে সকল পাবলিক পরিবহনে ‘ধূমপান হতে বিরত থাকুন, ইহা শাস্তিযোগ্য অপরাধ’ সম্বলিত নোটিশ বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় প্রদর্শন করার নিদের্শনা। যা আগামী দুই মাসের মধ্যে বাস্তবায়ন নিশ্চিত করার জন্য বলা হয়। অন্যথায় আগামী পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে আইন অমান্যকারীকে জরিমানার আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন বিআরটিএ চেয়ারম্যান মো. মশিয়ার রহমান। আইন বাস্তবায়ন নিশ্চিতকরণে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে অ্যাডভোকেসি করছে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন। গত ২৫ মার্চ মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে একটি অ্যাডভোকেসি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ)। আরকে//

আগামী ৫ জুন পবিত্র ঈদুল ফিতর!

আগামী ৪ জুন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার সম্ভাবনা রয়েছে এবং আর সেই অনুযায়ী পরেরদিন ৫ জুন বুধবার পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর পালিত হবে। গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ অ্যাসট্রোনোমিক্যাল সোসাইটির (বিএএস) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়,আগামী ৩ জুন সোমবার বিকাল ৪টা ২ মিনিটে বর্তমান চাঁদের অমাবস্যা কলা পূর্ণ করে নতুন চাঁদের জন্ম হবে। চাঁদটি ওইদিন সন্ধ্যা ৬টা ৪২ মিনিটে সূর্যাস্তের সময় দিগন্ত রেখা হতে ১ ডিগ্রি নিচে ২৯২ ডিগ্রি দিগংশে অবস্থান করবে। তাই এদিন চাঁদের কোনো অংশই দেশের আকাশে দেখা যাবে না। চাঁদটি পরদিন ৪ জুন, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা ৪২ মিনিটে সূর্যাস্তের সময় দিগন্ত রেখা থেকে ১১ ডিগ্রি উপরে ২৮৯ ডিগ্রি দিগংশে অবস্থান করবে এবং ৫৮ মিনিট দেশের আকাশে অবস্থান শেষে সন্ধ্যা ৭টা ৪১ মিনিটে ২৯৪ ডিগ্রি দিগংশে অস্ত যাবে। এই সময় চাঁদের ১% অংশ আলোকিত থাকবে এবং দেশের আকাশ মেঘমুক্ত পরিষ্কার থাকলে একে বেশ স্পষ্টভাবেই দেখা যাবে। এই সন্ধ্যায় উদিত চাঁদের বয়স হবে ২৬ ঘণ্টা ৪০ মিনিট এবং সবচেয়ে ভালোভাবে দেখা যাবে সন্ধ্যা ৭টা ৮ মিনিটে। ইসলামী নিয়ম অনুযায়ী আগামী ৪ জুন সন্ধ্যায় নতুন চাঁদ দেখার সাপেক্ষে আগামী ৫ জুন বুধবার থেকে আরবি ১৪৪০ হিজরির ‘শাওয়াল’ মাসের গণনা শুরু হবে এবং ওই দিনই পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর পালিত হবে। এনএম/কেআই 

চেকআপ শেষে রোববার দেশে ফিরছেন রাষ্ট্রপতি

মেডিকেল চেকআপ শেষে আগামীকাল রোববার দেশে ফিরছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে রাষ্ট্রপতিকে বহনকারী বিমানটি। শনিবার রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের প্রেস অনুবিভাগ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে ১৫ মে বুধবার চোখের চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে যান তিনি। ওই দিন সকাল ৯টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন রাষ্ট্রপতি। রাষ্ট্রপতিকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে মোমেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কূটনৈতিক কোরের ডিন, যুক্তরাজ্য ও জার্মানির দূত, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, মুখ্য সচিব, তিন বাহিনীর প্রধান, আইজিপি ও স্বরাষ্ট্র সচিব। টিআই/ এসএইচ/

৩ জুনের টিকিট পেতে কমলাপুরে উপচেপড়া ভিড়

ঈদে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির চতুর্থ দিনেও ভিড়ের এতটুকু কমতি নেই। বেশি চাহিদা ৩ জুনের টিকিটের। এদিন বাড়ি ফিরতে কমলাপুর ও বিমানবন্দর স্টেশনে দেখা গেছে উপচেপড়া ভিড়। টিকিট বিক্রির চতুর্থ দিনে আজ শনিবার সকাল থেকেই ধীরগতির অভিযোগ তুলেছেন টিকিটপ্রত্যাশীরা। কাঙ্ক্ষিত টিকিটের জন্য শুক্রবার রাত থেকেই কমলাপুরে অপেক্ষায় ছিলেন কয়েক হাজার মানুষ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড় আরও বাড়তে থাকে। আজ দেয়া হচ্ছে ৩ জুনের টিকিট। টিকিটপ্রত্যাশীরা বলছেন, সকালে আরও দুই ঘণ্টা আগে টিকিট বিক্রি শুরু করা গেলে মানুষের ভোগান্তি কম হতো। পাশাপাশি অতিরিক্ত চাপের বিষয়টি মাথায় রেখে বাড়তি কাউন্টার খোলাও দরকার ছিল বলে মত টিকিটপ্রত্যাশীদের। প্রতিদিন যে টিকিটগুলো থেকে যায়, কালোবাজারি বন্ধে সেগুলো প্রদর্শনের ব্যবস্থার দাবিও জানানো হয়। অন্যদিকে নারী যাত্রীরা অভিযোগ করেন, কাউন্টার কম হওয়ায় তাদের দীর্ঘসময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। অনলাইনে টিকিট না পাওয়ার কারণেই ভোগান্তি বেড়েছে বলে জানায় টিকিটপ্রত্যাশীরা। টিকিট বিক্রির তৃতীয় দিনেও বহু মানুষ টিকিট না পেয়ে ফিরে গেছেন হতাশ হয়ে। অনেকেই আজকের জন্য থেকে গেছেন লাইনে। আর অনলাইনে টিকিট কাটা নিয়ে আগের মতোই অভিযোগ করে গেছেন টিকিটপ্রত্যাশীরা। তারা জানিয়েছেন, অ্যাপে লগইন করলেই নোটিশ আসে অপেক্ষা করার জন্য। সে অপেক্ষা ঘণ্টার পর ঘণ্টাতেও শেষ হয় না। আর অ্যাপে টিকিট না পেয়ে তারা ছুটে এসেছেন কাউন্টারে। কমলাপুরসহ রাজধানীর ৪ স্টেশনে ৩৬টি কাউন্টারে ১২ হাজার ৭৪৮টি টিকিট বরাদ্দ রয়েছে। এ তথ্য কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল হক জুয়েলের। শুক্রবার সন্ধ্যায় সিএনএস লিমিটেডের কর্মকর্তা শামীম আহমেদ জানান, সন্ধ্যা ৬টা ২৩ মিনিট পর্যন্ত কাউন্টার থেকে ১০ হাজার ৮৭৯টি এবং অ্যাপ থেকে ৭ হাজার ৮৫১টি টিকিট বিক্রি করা হয়েছে। সিএনএসের আরেক কর্মকর্তা জানান, অ্যাপ দিয়ে টিকিট কাটা যাচ্ছে না, এটা ঠিক নয়। একই সঙ্গে আড়াই-তিন লাখ লোক হিট করায় গতি ধীর হচ্ছে। কমলাপুর, বিমানবন্দর ও ফুলবাড়িয়া রেল স্টেশন ঘুরে দেখা যায়, অগ্রিম টিকিট কাটতে আসা শত শত মানুষ রয়েছেন লাইনে। টিকিট না পাওয়া যাত্রীদের অনেকে জানান, এক একটি কাউন্টার থেকে কয়টি করে টিকিট বিক্রি দেয়া হচ্ছে তা জানতে পারছে না লোকজন। ফলে এক একটি কাউন্টারের সামনে শত শত লোক দাঁড়াচ্ছে। দুটি কাউন্টারের সামনে ডিসপ্লে থাকলেও ১৮টি কাউন্টারের সামনে কোনো ডিসপ্লে নেই। রেলপথ সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, সীমিত টিকিট সবাই পাবে না এটাই স্বাভাবিক। সীমিত টিকিটের বিপরীতে কাউন্টারের সামনে শত শত লোক দাঁড়াচ্ছে। অপরদিকে অ্যাপসে সীমিত টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। কিন্তু ওই সীমিত টিকিটের বিপরীতে হাজার হাজার লোক অ্যাপসটিতে হিট করছে। কোনো ক্ষেত্রে ধীরগতি হলেও অ্যাপস থেকে যথাযথ টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।

জাতীয় কবির জন্মদিন উপলক্ষে ব্যাপক কর্মসূচি

জাতীয় কবি নজরুল ইসলামের ১২০তম জন্মবার্ষিকী আজ শনিবার। বাংলা ১৩০৬ বঙ্গাব্দের ১১ জ্যৈষ্ঠ বর্ধমান জেলার আসানসোলের জামুরিয়া থানার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার ডাক নাম ‘দুখু মিয়া’। এবার জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম এর ১২০তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘নজরুল-চেতনায় বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’। জাতীয় কবির জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এক বিবৃতিতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মদিন যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের সব স্তরের নেতা-কর্মী, সমর্থক, শুভানুধ্যায়ী ও দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। জাতীয় পর্যায়ে জাতীয় কবির জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার। দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সকাল সাড়ে ৮টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গনে চিরনিদ্রায় শায়িত কবির সমাধিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। এ বছর জন্মবার্ষিকীর মূল অনুষ্ঠান হবে নজরুল স্মৃতি বিজড়িত ময়মনসিংহে। ময়মনসিংহের ত্রিশালে বিকাল ৩টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, শান্তি নিকেতন, ভারত এর উপাচার্য অধ্যাপক বিদ্যুৎ চক্রবর্তী, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী এমপি ও জাতীয় সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল। এছাড়াও কবির স্মৃতি বিজড়িত ময়মনসিংহের ত্রিশাল, কুমিল্লার দৌলতপুর, মানিকগঞ্জের তেওতা, চুয়াডাঙ্গার কার্পাসডাঙ্গা এবং চট্টগ্রামে স্থানীয় প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় যথাযোগ্য মর্যাদায় তাঁর ১২০তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। বাংলা কবিতায় নজরুলের আবির্ভাব একেবারেই উল্কার মতো। হঠাৎ করে একদিন তিনি বাংলা সাহিত্যে আবির্ভুত হয়ে সমস্ত আকাশকে কিভাবে রাঙ্গীয়ে গেলেন অথবা উজ্জ্বল করে দিলেন তা নিয়ে এখনো গবেষণা হতে পারে। কোন সঞ্জীবনি মন্ত্রে তিনি উচ্চকন্ঠে বলতে পারেন ‘বল বীর, বল উন্নত মম শির’ অথবা মহা-বিদ্রোহী রণ-ক্লান্ত/ আমি সেই দিন হব শান্ত/ যবে উৎপীড়িতের ক্রন্দল-রোল আকাশে-বাতাসে ধ্বনিবে না,/ অত্যাচারীর খড়গ কৃপাণ ভীম রণভূমে রণিবে না-’। সংগীত বিশিষ্টজনদের মতে রবীন্দ্রনাথ -পরবর্তি নজরুলের গান অনেকটাই ভিন্ন ধরনের নির্মাণ। অধিকাংশ গান সুর প্রধান। বৈচিত্রপূর্ণ সুরের লহরী কাব্যকথাকে তরঙ্গায়িত করে এগিয়ে নিয়ে যায়। সুরের বিন্যাসের উপরে কথা ঢলে পড়ে। তার গানে বহু গায়ক সুর-স্বাধীনতা ভোগ করেন। অনেক ক্ষেত্রে গায়ক সুরের ঢেউয়ে বেশি মেতে যান। তখন গান হয়ে যায় রাগপ্রধান। নজরুল বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, নজরুল ইতিহাস ও সময় সচেতন মানুষ ছিলেন যার প্রভাব তার লেখায় স্পষ্টভাবে পাওয়া যায়। তুরস্কে কামাল পাশার নেতৃত্বে প্রজাতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা, রাশিয়ায় সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব আর ভারতবর্ষে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের তরঙ্গকে নজরুল তার সাহিত্যে বিপুলভাবে ধারণ করেছেন। বাংলা সাহিত্যে বিদ্রোহী কবি হিসেবে পরিচিত হলেও তিনি ছিলেন একাধারে কবি, সংগীতজ্ঞ, ঔপন্যাসিক, গল্পকার, নাট্যকার, প্রাবন্ধিক, সাংবাদিক, চলচ্চিত্রকার, গায়ক ও অভিনেতা। তিনি বৈচিত্র্যময় অসংখ্য রাগ-রাগিনী সৃষ্টি করে বাংলা সঙ্গীত জগতকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। তার কবিতা, গান ও সাহিত্য কর্ম বাংলা সাহিত্যে নবজাগরণ সৃষ্টি করেছিল। তিনি ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার পথিকৃৎ লেখক। তার লেখনি জাতীয় জীবনে অসাম্প্রদায়িক চেতনা বিকাশে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। তার কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষণ ও বঞ্চনা থেকে মুক্তির পথ দেখিয়ে চলছে। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তার গান ও কবিতা ছিল প্রেরণার উৎস। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর পরই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামকে সপরিবারে সদ্যস্বাধীন বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বাংলাদেশে তার বসবাসের ব্যবস্থা করেন। ধানমন্ডিতে কবির জন্য একটি বাড়ি প্রদান করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শোকাবহ ঘটনার এক বছর পর ১২ ভাদ্র ১৯৭৬ সালের শোকের মাসেই শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (সাবেক পিজি হাসপাতাল) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন নজরুল। কবিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হয়। এখানেই তিনি চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন। সূত্র: বাসস একে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি