ঢাকা, ২০১৯-০৪-২৬ ৭:৫২:২০, শুক্রবার

রতন হত্যায় গ্রেপ্তার হয়নি কেউ (ভিডিও)

রতন হত্যায় গ্রেপ্তার হয়নি কেউ (ভিডিও)

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় প্রকাশ্যে রতন মন্ডল হত্যার এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও গ্রেফতার হয়নি কেউ। উল্টো মামলা তুলে নিতে আসামিরা বাদীকে হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ নিহতের স্বজনদের। তবে পুলিশ বলছে, আসামিদের ধরতে চেষ্টা চলছে। গত ১৬ এপ্রিল রাতে কালবৈশাখী ঝড়ে শৈলকুপার বসন্তপুর গ্রামের সেকেন্দার মন্ডলের একটি ইপিল-ইপিল গাছের ডাল ভেঙ্গে পড়ে প্রতিবেশী ওলিয়ার রহমানের ঘরের উপর। এ নিয়ে রাতেই দু’পক্ষের ঝগড়া হয়। সকালে চাচাতো ভাই রতন মন্ডলসহ কয়েকজন মিলে গাছ সরাতে গেলে ওলিয়ারের লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় গুরুতর আহত রতনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরদিন নিহত রতনের বাবা রায়হান মন্ডল বাদী হয়ে ২৬ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করলেও গ্রেফতার হয়নি কেউ। উল্টো হুমকি দেয়া হচ্ছে মামলা তুলে নিতে। আসামিরা গা-ঢাকা দিলেও শিগগিরই গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তুচ্ছ ঘটনায় প্রকাশ্যে এই হত্যাকান্ডের বিচার দেখতে চায় এলাকাবাসী। বিস্তারিত দেখুন ভিডিওতে : এসএ/এসএস    
জব্বারের বলি খেলায় চ্যাম্পিয়ন শাহজালাল

ঐতিহ্যবাহী জব্বারের বলি খেলার ১১০তম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন কুমিল্লার শাহজালাল বলি।  বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) বন্দর নগরীর চট্টগ্রামের লালদীঘির মাঠে অনুষ্ঠিত এই বলিখেলা শেষে দুই পয়েন্ট জিতে শিরোপা জিতেছে শাহজালাল বলী। অপরদিকে রানার্সআপ হয়েছেন গতবারের চ্যাম্পিয়ন চকরিয়ার জীবন বলি। সিরাজগঞ্জের মো. শফিকুল ইসলাম ও মহেশখালীর সিরাজুল মোস্তফার মধ্যে লড়াইয়ের মাধ্যমে শুরু হলো ঐতিহ্যবাহী আবদুল জব্বারের বলীখেলার এবারের আসর। জব্বারের বলী খেলায় প্রথম রাউন্ডে ৬২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। চ্যালেঞ্জিং রাউন্ডে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে গিয়েছিলেন জীবন, কাঞ্চন, বজল, মো. হোসেন, কালাম, সাহাবউদ্দিন, কালু এবং শাহজালাল। এর আগে বিকেল সোয়া চারটায় বেলুন উড়িয়ে বলীখেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান। উল্লেখ্য, ১৯০৯ সালে চট্টগ্রামের বদরপাতি এলাকার ধনাঢ্য ব্যবসায়ী আবদুল জব্বার সওদাগর ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে যুবসমাজকে ঐক্যবদ্ধ করতে এ প্রতিযোগিতার সূচনা করেন। তার মৃত্যুর পর এ প্রতিযোগিতা জব্বারের বলীখেলা নামে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে। প্রতিবছর ১২ বৈশাখ নগরের লালদীঘি মাঠে এ বলীখেলা অনুষ্ঠিত হয়। এ খেলায় অংশগ্রহণকারীদের বলা হয় ‘বলী’।  এবার বলীখেলায় চ্যাম্পিয়নকে নগদ ২০ হাজার টাকা ও ট্রফি এবং রানারআপকে নগদ ১৫ হাজার টাকা ও ট্রফি দেওয়া হবে। অন্য বলীদের নগদ ১ হাজার টাকা ও একটি করে ট্রফি দেওয়া হয়। কেআই/

পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

কলারোয়ায় পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে সুফলা ভোগীদের নিয়ে তিন দিনব্যাপী দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কর্মশালা সমাপ্তি হয়েছে। উপজেলা পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশনের কার্যালয়ে মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া তিন দিনব্যাপী উক্ত কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন-উপজেলা পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন কর্মকর্তা হেলাল মুস্তাফিজুর রহমান। উক্ত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজ। উক্ত কর্মশালায় পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন সমিতির সভানেত্রী ও দলনেত্রী গণের প্রশিক্ষণ প্রদান করেন উপজেলা প্রাণীসম্পদ অফিসার ডা. জিল্লুর রহমান, ভিএফএ মইনুল ইসলাম, ভিএফএ আকবর হোসেন, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের প্রশিক্ষক বিল্লাল হোসেন, এডিবিও নমিতা রাণী ও নারায়ন চন্দ্র ঘোষ প্রমুখ। সার্বিক সহযোগিতা করেন এডিবিও সেলপ নাজমুল হাসান সকল সহকর্মীবৃন্দ। উল্লেখ্য-উক্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ২৫ জন সভানেত্রী ও দলনেত্রীগণ অংশগ্রহণ করেন। তাদের নিয়ে তিন দিনব্যাপী হাস-মুরগী ও ছাগল পালন, গরু মোটাতাজাকরণ ও দুগ্ধবতী গাভী পালনের উপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। কেআই/

বেনাপোলে ফুড ফ্লেভার আমদানির আড়ালে শাড়ি-থ্রিপিস

মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে ভারত থেকে ফুড ফ্লেভার আমদানির আড়ালে শাড়ি-থ্রিপিস ও কেমিকেল আমদানি করার অপরাধে ট্রাকসহ মালামাল জব্দ করেছে বেনাপোল কাস্টম কর্তৃপক্ষ। এসময় পণ্য বোঝাই ওই ট্রাকসহ তার সকল কাগজপত্র জব্দ করা হয়। বেনাপোল বন্দর থেকে জব্দকৃত পণ্য চালানটি বুধবার দুপুরে বেনাপোল কাস্টম হাউসে পুন:পরীক্ষা হয়েছে। পণ্য চালানটির আমদানিকারক ঢাকার রেড গ্রিন ইন্টারন্যাশনাল। পণ্য চালানটির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান গত ২ এপ্রিল পণ্যটি আমদানি করার জন্য একটি এলসি খোলেন। পণ্য চালানটির প্যাকিং লিস্টে আমদানিকরা হয় ২৫ কার্টুনে মাত্র ৫০০ কেজি ফুড ফ্লেভার। কিন্তু পণ্য চালানটি জব্দ করার পর ওই ট্রাক থেকে ২০০ কেজি কেমিকেলসহ বিপুল পরিমাণ শাড়ি, থ্রিপিস পাওয়া যায়। বেনাপোল কাস্টম হাউসের ইনভেস্টিগেশন রিসার্স এন্ড ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের একটি প্রতিনিধি দল জব্দকৃত মালামাল পরীক্ষা করেছেন। পরীক্ষণে বুধবার রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে। রিপোর্টে পণ্য চালানটির মালামাল ঘোষণার আড়ালে এসব পণ্য পাওয়া গেছে। যা থেকে সরকারের কয়েক লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকি হচ্ছিল বলে জানান কাস্টম কর্তৃপক্ষ। তবে পণ্য চালানটিতে আমদানিকৃত পণ্যের ঘোষণায় ছিল ফুড ফ্লেভার। বেনাপোল কাস্টম হাউসের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ জাকির হোসেন জানান, গোপন সূত্রে সংবাদ পাওয়া যায় একজন আমদানিকারক ভারত থেকে ঘোষণার আড়ালে একটি পণ্য চালান বেনাপোল বন্দরে নিয়ে আসছে। এমন সংবাদে কাস্টম হাউসের সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা রাশেদুর রহমান বন্দরের শেড এলাকা থেকে পণ্য বোঝাই একটি কাভার্ডভ্যান (ট্রাক) জব্দ করে। পরে ট্রাকটি কাস্টম হাউসে নিয়ে আসা হয়। পরে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে মালামাল পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষণে ঘোষণার আড়ালে অন্য পণ্য পাওয়া গেছে। পণ্য চালানটির সিএন্ডএফ এজেন্ট ছিলেন মেসার্স আহাদ এন্টার প্রাইজ। এ ব্যাপারে সিএন্ডএফ এজেন্ট মালিক আব্দুল আহাদ জানান, ওই গাড়িতে তার আমদানিকারকের ৫০০ কেজি ফুড ফ্লেভার ছিল। অন্য সব মালের কোন তথ্য তাদের জানা নেই। এ ব্যাপারে বুধবার রাতে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। তদন্ত টিমের প্রধান করা হয়েছে বেনাপোল কাস্টম হাউসের ইনভেস্টিগেশন রিসার্স এন্ড ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের সহকারি কমিশনার মো. আকরাম হোসেনকে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে। তদন্ত রিপোর্ট আসার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান উপ-কমিশনার। কেআই/

নবাবগঞ্জে ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

ঢাকার নবাবগঞ্জের কোঠাবাড়ি চক থেকে গোবিন্দ রাজবংশী (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় নতুন বান্দুরা ইউনিয়নের বারুদুয়ারীর কোঠাবাড়ির চক থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত গোবিন্দ রাজবংশী বারুদুয়ারী গ্রামের মৃত হরমোহন রাজবংশীর ছেলে। পুরাতন বান্দুরা বাজারে কাপড়ের ব্যবসায় পাশাপাশি তিনি মাছের ব্যবসা করতেন। নিহতের স্ত্রী সাগরিকা রাজবংশী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তিন মাস আগে গোবিন্দ কোঠাবাড়ির চকে দুইটি ডাঙ্গা মাছ চাষের জন্য ভাড়া নিয়েছিলেন। কাজের লোক ছুটিতে থাকায় বুধবার রাত ৯টার দিকে গোবিন্দ ডাঙ্গা দেখাশুনার জন্য চকে যায়। সোয়া ৯টায় মোবাইলে পরিবারের সঙ্গে তার একবার কথা হয়েছিল। এরপর রাতে আর কথা হয়নি। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় স্ত্রী সাগরিকা খাবার নিয়ে ডাঙ্গায় গেলে মুখ বাঁধা অবস্থায় আনন্দকে একটি বাঁশের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা অবস্থায় দেখতে পাই। এসময় আনন্দর মুখ ও পা বাধা ছিল। তাছাড়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ও নিহতের মুখের ভিতর টিস্যু পেপার ঢুকানো ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। নিহতের ছেলে সঞ্জিত রাজবংশী বলেন, আমার বাবা সাথে কারও কোন ঝগড়া ছিল না। বাবা ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকতেন। যারাই আমার বাবাকে হত্যা করেছে আমি তাদের বিচার চাই। নবাবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। বুকে, হাতে, পায়ে ক্ষতের চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। আমরা তদন্ত করে দ্রুত দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে। কেআই/

বেনাপোলে একাধিক মামলার আসামি গ্রেপ্তার

যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী একাধিক মামলার পলাতক আসামি সাহাঙ্গীরকে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে বেনাপোল সীমান্তের পুটখালী গ্রাম থেকে পোর্ট থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত সাহাঙ্গীর বেনাপোলের পুটখালী উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত. আরশাদের ছেলে। বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) এইচ.এম.এ লতিফ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী একাধিক মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত পলাতক আসামি সাহাঙ্গীর গোপনে এলাকায় ফিরে অবস্থান করছে। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। তাকে দুপুরে যশোর আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি। কেআই/

বেনাপোল স্থলবন্দরের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে গণশুনানী

দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোলে ব্যবসা বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও বন্দরের সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করনের লক্ষে গণশুনানী করা হয়েছে। বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে বেনাপোল চেকপোষ্ট আন্তর্জাতিক প্যাসেঞ্জার টার্মিনাল ভবনে কাস্টমস, সিএন্ডএফ, ইমিগ্রেশন, ব্যাংক, গোয়েন্দা সংস্থা, বিজিবি, সাংবাদিক শ্রমিক প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে এই গণশুনানী অনুষ্ঠিত হয়। বেনাপোল স্থল বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) প্রদোষ কান্তি দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (অর্থ ও প্রশাসন) ও অতিরিক্ত সচিব আলাউদ্দিন ফকির। এসময় উপস্থিত ছিলেন স্থলবন্দরের সহকারি পরিচালক (প্রশাসন) জাকির হোসেন, শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডল, প্রশাসনিক অফিসার আবুল হোসেন, স্থল বন্দরের খন্ডকালিন সদস্য জাহিদুল ইসলাম, বেনাপোল কাস্টম হাউজের সহকারি কমিশনার উত্তম চাকমা, বন্দরের উপ-পরিচালক আব্দুল জলিল, আব্দুল্লাহ আল মামুন, বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টের সভাপতি মফিজুর রহমান স্বজন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহসিন মিলন, বন্দরবিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন, বন্দরের কন্ট্রাক্টর অহিদুজ্জামান প্রমুখ। উন্মুক্ত গণশুনানীতে অংশগ্রহণকারীরা বেনাপোল বন্দরের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরেন। তারা বলেন, বেনাপোল বন্দরে নেই প্রয়োজনীয় ইকুইপমেন্ট, নেই ফায়ার সার্ভিসের পর্যাপ্ত সরঞ্জাম, চুরিরোধে নেই কোন সিসি ক্যামেরা। এমনকি প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা কর্মী। এছাড়া বৃহত্তর এই বন্দরে প্রায় আড়াই হাজার শ্রমিক কাজ করে। সেখানে নেই কোন হাসপাতাল এম্বুলেন্সের ব্যবস্থা। বন্দরে কাস্টমস, বিজিবি ও বন্দরের লোক একই পণ্য তিন জায়গায় এন্ট্রি করায় একদিকে যেমন আমদানি কমে যাচ্ছে। তেমনি অন্যদিকে সময়ও নষ্ট হচ্ছে। এর আগে শুধু কাস্টম এন্ট্রি করায় এই বন্দরে ৭ থেকে সাড়ে ৭ শত গাড়ি পণ্য আমদানি হতো। বর্তমানে তা কমে দাঁড়িয়েছে মাত্র ৩ শত ট্রাক। বন্দরে জায়গা সংকটের কারনে যানজট হচ্ছে। শুনা গিয়েছিল ১শ‘৭৫ একর জমি অধিগ্রহণ করা হবে যানজট নিরসনে। কিন্তু সেই জমির ফাইল এখনো মন্ত্রনালয়ে বন্দি রয়েছে। বেনাপোল বন্দর জানে এখানে জমি প্রয়োজন। সময়মত জমি না নিয়ে বর্তমানে তিনগুন দামে জমি অধিগ্রহণ করতে হচ্ছে এতে বন্দরের অর্থ বেশি খরচ হবে। প্রধান অতিথি আলাউদ্দিন ফকির বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে মানুষের নৈতিকতারও আস্তে আস্তে পরিবর্তনের সাথে দেশে উন্নয়ন অব্যাহত রয়েছে। একটি দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে হলে প্রয়োজন নৈতিকতা বোধ সততা। নৈতিকতা ও সততা হলো মানুষের কাজ কর্মের শুদ্ধাচার। দেশের আজ অনেক প্রবৃদ্ধি পেয়েছে। মঙ্গা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ কাটিয়ে দেশ এগিয়ে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে রূপান্তরিত হয়েছে। আস্তে আস্তে বেনাপোল বন্দরের উন্নয়নও হবে বলে তিনি জানান। কেআই/

হাসি ফুটলো নেত্রকোণার প্রতিবন্ধীদের মুখে (ভিডিও)

নেত্রকোণার প্রতিবন্ধী শিশুদের মুখে অপার্থিব হাসি ফুটিয়েছে কানাডাভিত্তিক প্রবাসী সংগঠন গ্রেটার ভ্যানকুভার বাংলাদেশ কালচারাল এসোসিয়েশন। একুশে টেলিভিশনে নেত্রকোণার দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হাবিবুর রহমানের গড়ে তোলা স্কুল নিয়ে সংবাদ প্রচারের পর তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসে সংগঠনটি। লাল ঘোড়া, স্লিপার, বসার চেয়ারসহ নানা ধরণের খেলাধুলার সামগ্রী পেয়ে ভীষণ খুশী স্কুলটির শিশুরা। আফিফা সাব্বির আর ইতি, ইয়াছির। ওদের অনেকে চোখে দেখে না, পারে না কথা বলতে। নিরানন্দ তাদের জীবনে খানিকটা আনন্দ এনে দিয়েছে এইসব স্লিপার আর লাল ঘোড়া। শিশুদের আনন্দ দেখে খুশী অভিভাবকরাও। এভাবেই জীবনের চড়াই উৎরাই ওরা পার হবে হাসিমুখে- এমন আশা তাদের। সম্প্রতি একুশে টেলিভিশনে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হাবিবুর রহমানের স্কুলের উপর সংবাদ প্রচার হলে কানাডার প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন ওদের সহায়তায় এগিয়ে আসে। নেত্রকোণার হাবিবুর রহমান নিজে অন্ধ হলেও দীর্ঘদিন থেকেই প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষিত করতে কাজ করে যাচ্ছেন। শিক্ষার আলো দিয়ে তাদের স্বাবলম্বী করাই তার চাওয়া। তার প্রতিষ্ঠিত স্কুলে এখন শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী ৫২ শিশু লেখাপড়া করছে। বিস্তারিত দেখুন ভিডিওতে :   এসএ/    

বন্ধুদের ঝগড়া থামাতে গিয়ে নিজেই হলো লাশ

রাজধানী ঢাকার অদূরে সাভারে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই বন্ধুর মারপিট থামাতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থী। এ ঘটনায় পুলিশ ৪ জনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার রাতে সাভারের মধ্য রাজাশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাঈম মিয়া (২০) সাভার পৌর এলাকার মধ্য রাজাশন মহল্লার মনির হোসেনের ছেলে। সে চলতি এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। পুলিশ বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে নিহতের বন্ধু শাকিল, মিলন, রিফাতসহ ৪ জনকে আটক করেছে। সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোফাজ্জল হোসেন বলেন, ক্যারাম খেলাকে কেন্দ্র করে মিলন ও শাকিলের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। তখন তাদের বন্ধু নাঈম তাদের থামাতে গেলে ছুরিকাঘাতে নাঈম গুরুতর জখম হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে রাতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তিনি আরো জানান, বুধবার সকালে এলাকায় অভিযান চালিয়ে নিহতের ৪ বন্ধুকে আটক করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে সাভার মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসি  

শরিয়তপুরের উন্নয়নে ৬০০ কোটি টাকার প্রকল্প

শরিয়তপুরের সার্বিক উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক বলে জানিয়েছেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিক সহযোগিতায় আমরা নাগরিক সুবিধার নিশ্চিত করে পিছিয়ে পড়া জনপদের তকমা ঘোচাতে চাই। নড়িয়া উপজেলার চর আত্রা ইউনিয়নে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ কার্যক্রম ও বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। পানি সম্পদ উপমন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের মূলস্রোতে নিজেদের সম্পৃক্ত করার মূল উপাদান বিদ্যুত সংযোগ প্রদান। যেহেতু চরআত্রা, নওপাড়া ও কাঁচিকাটা মূল ভূখণ্ড হতে বিচ্ছিন্ন তাই এখানে বিদ্যুত সংযোগ দেয়া খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। প্রযুক্তির আশীর্বাদে আমরা সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে এই পিছিয়ে পড়া অঞ্চলের প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুত সংযোগ পৌঁছে দেব। এনামুল হক শামীম বলেন, গত নির্বাচনে আমি যখন ওই চরে গণসংযোগে এসেছিলাম, তখন আপনাদের অন্যতম দাবি ছিল বিদ্যুৎ সংযোগ। আমি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, ভোটে জিতলে তিন মাসের মধ্যেই বিদ্যুতের আলো পৌঁছাব। প্রধানমন্ত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনার ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌঁছানোর অনুপ্রেরণায় ও তার নির্দেশে আমি সেই প্রতিশ্রুতি আজ রক্ষা করতে পেরেছি। কারণ আমরা স্বপ্ন দেখি, স্বপ্ন দেখায় আর স্বপ্নের বাস্তবায়নের মাধ্যমে জনগণের ভাগ্যন্নোয়নে কাজ করি। পরে আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম এ দিন সন্ধ্যায় নওপাড়া ইউনিয়নেও সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘শরিয়তপুরের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য ৬০০ কোটি টাকার নানাবিধ প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছি। এর মাধ্যমে আমরা শরিয়তপুরকে একটি মডেল জেলায় রূপান্তরিত করতে চাই।’ উল্লেখ্য, শরীয়তপুর জেলা শহর বা উপজেলা থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ায় পার্শ্ববর্তী মুন্সীগঞ্জ জেলা থেকে পদ্মা নদীর তলদেশ দিয়ে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবলের (সাবমেরিন ক্যাবল) মাধ্যমে নদীর ৮০০ মিটার অংশে বিদ্যুত সংযোগ প্রদানের এই কার্যকম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ১০ মেঘাওয়াট ক্ষমত্সম্পন্ন এই সংযোগের ফলে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে চরগুলোতে বসবাসকারী প্রায় ৭০ হাজার মানুষ। পদ্মা ও মেঘনা নদীর পাড় ঘেঁষে গড়ে ওঠা চরে প্রায় ৭০ বছর আগ থেকে মানুষের বসবাস শুরু। ওই চরের নওপাড়া ও চরআত্রা ইউনিয়ন পড়েছে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় ও কাঁচিকাটা ইউনিয়ন ভেদরগঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত। বাংলাদেশ বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সদস্য মো. আব্দুস ছালাম, জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের, পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, শরিয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবু অনল কুমার দে, শরিয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল ওহাব ব্যাপারী, নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম ইসমাইল হক, ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মো. হুমায়ন কবির মোল্লা প্রমুখ এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। একে//

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দিল মোহাম্মদ দিলু (৩৬) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। সে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের গোদারবিল এলাকার মৃত মকবুল আহমদ প্রকাশ পুতুর ছেলে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার মহেশখালিয়াপাড়ায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।  পুলিশের দাবি, নিহত দিল মোহাম্মদ ইয়াবাকারবারি। তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ৯টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ৬টি এলজি, ১৩ রাউন্ড কার্তুজ ও ৭ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, মঙ্গলবার বিকালে ৯ মামলার পলাতক আসামি এবং তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী দিল মোহাম্মদ দিলুকে আটক করেন পুলিশ। পরে তার স্বীকারোক্তি মতে, মেরিন ড্রাইভ সড়কের পার্শ্ববর্তী মহেশখালিয়াপাড়ায় ইয়াবা এবং অস্ত্র উদ্ধারে গেলে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সহযোগীরা দিলুকে ছিনিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি করে। একপর্যায়ে মাদককারবারিরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে দিলুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এ সময় আহত হন এসআই বাবুল ও কনস্টেবল ইব্রাহীম। দিলুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান। বুধবার ভোরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিলুকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানান ওসি। এসএ/  

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি