ঢাকা, ২০১৯-০৬-২৬ ৮:০৬:৪৯, বুধবার

স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

বাণিজমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, দেশের টাকা যাতে বাহিরে না যায়, সে জন স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের জন্য নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলবে। মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে স্বর্ণকর মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আগামী মাসের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। বাণিজমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ব্যবসাবান্ধব। ব্যবসায়ীদের সবধরণের সুবিধা দেওয়া হবে। মন্ত্রী বলেন, ভোক্তার অধিকার যাতে প্রতিষ্ঠিত হয়, সে ব্যাপারে কাজ করছে সরকার। স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী আরও বলেন, এমন স্বর্ণ তৈরি করুন, যাতে ধনিরা বিদেশে স্বর্ণ কিনতে না যায়। দেশেই তৈরি স্বর্ণে যাতে আকৃষ্ট হোন সে ব্যাপারে কাজ করুন। এর আগে কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে সমাপনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে বাণিজমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান- মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি গঙ্গা চরণ মালাকার, এফবিবিসিসিআই`র সহসভাপতি ও বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক দীলিপ কুমার আগরওয়ালা। বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক দীলিপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, দেশের অর্থনীতিক উন্নয়নে আমরা স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা অংশীদার হতে চাই। এ জন্য দরকার নিরাপদ পরিবেশ। অতীতে কোন নীতিমালা ছিল না, ফলে আমাদেরকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ বিভিন্ন শ্রেণি থেকে আমাদের হয়রানি করতো। এ জন্য এ নীতামালা আমাদের জন্য জরুরি ছিল। তিনি বলেন, আমাদের তৈরি স্বর্ণ আমরা দেশের বাহিরে আমাদের রপ্তানি করতে চাই। এ জন্য আমাদের প্রশিক্ষণের জন্য প্রতিষ্ঠান দরকার। আন্তর্জাতিক বাজার থেকে বাংলাদেশে কম দামে স্বর্ণ বিক্রি হয় বলে জানান তিনি। বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি সভাপতি গঙ্গা চরণ মালার বলেন, দেশের পোষাক খাতকে যেমন সরকার গুরুত্ব দিচ্ছে, সময় হয়েছে এ খাত নিয়ে নতুন কিছু করার। স্বর্ণ শিল্প গড়তে সরকারের নিকট উপযুক্ত পরিবেশ তিরি দাবি জানান তিনি।  নীতিমালা হঠাৎ হওয়ায় অনেকে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন। তাই সময় আরও বাড়ানো উচিৎ বলে মত দেন মালাকার। তিনি বলেন, বর্তমানে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের ৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হয়। ভ্যাটের পরিমাণ বেশি হওয়ায় অনেক ব্যবসায়ী ভ্যাট দিচ্ছেন না। তাই ভ্যাট ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ শতাংশে আনার দাবি জানান তিনি। এতে সরকার অধিক পরিমাণে ভ্যাট পাবার পাশাপাশি ক্রেতারাও উপকৃত হবেন। সরকারের সহযোগীতা পেলে মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশি স্বর্ণ রফতানি করা সম্ভব বলে জানান তিনি। রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, সারাদেশের ব্যবসায়ীরা অবৈধ সোনা বৈধ করছেন। ৩০ জুনের মধ্যে দেশের প্রায় সব ব্যবসায়ী এ সুযোগ গ্রহণ করে কর প্রদান করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। মোশাররফ হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন যেহেতু নীতিমালা ছিল না, তাই শুরুতে একটু সমস্যা হচ্ছে। দেশের স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের রেজিস্ট্রেন প্রতি তিন বছর অন্তর নবায়ন করতে হবে। ব্যবসায়ীদের নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল হলে দেশের এ খাত থেকে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব অর্জন করবে বলে জানান তিনি। ব্যবসায়ীদের বৈধ পথে ব্যবসার করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, বিদেশ থেকে স্বর্ণ আনতে প্রতি ভরিতে ২ হাজার টাকা সরকারকে দিতে হবে। বাজারে সাধারণ ক্রেতাদের নিকট স্বর্ণ বিক্রি করলে ক্যাশ ম্যামোর সঙ্গে ভ্যাটের পরিমাণ উল্লেখ থাকতে হবে। এতে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ে স্বচ্ছতার মধ্যে থাকবে। পরে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক দীলিপ কুমার আগারওয়ালা জানান, তিন দিনব্যাপী এ মেলায় ১ হাজার ২’শ মত স্বর্ণ বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি প্রায় ১৭০ কোটি টাকার সোনা, গোল্ড ও ডায়মন্ড বৈধ হয়েছে বলে জানান তিনি।    অনুষ্ঠান শেষে অতিথিদের হাতে সম্মাননা স্বারক তুলে দেওয়া হয়। আই/     
স্বর্ণকর মেলার শেষ দিনে উপচে পড়া ভিড়

তিন দিনব্যাপী স্বর্ণকর মেলা আজ মঙ্গলবার শেষ হয়েছে। সমাপনী দিনে মেলায় শতশত স্বর্ণ ব্যবসায়ী তাদের অপ্রদর্শিত স্বর্ণ মেলায় প্রদর্শন করেন। বৈধ করেন কয়েক হাজার ভরি স্বর্ণ। মেলা ঘুরে দেখা যায়, রেজিস্ট্রেশন করতে দীর্ঘলাইন ধরে দাঁড়িয়ে আছেন ঢাকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা। কোন রকম হয়রানি ছাড়া নির্বিঘ্নে স্বর্ণ বৈধ করার টাকা জমা দিচ্ছে।মো. মোরশেদ নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী জানান, স্টোকে থাকা স্বর্ণ নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় ছিলাম।এখন নির্বিঘ্নে ব্যবসা করতে পারবো।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক স্বর্ণ ব্যবসায়ী জানান, এখনো অসংখ্য স্বর্ণ ব্যবসায়ী আছে, যারা এখনো জমা দেননি। নির্দিষ্ট সময়ে তারা বৈধ না করলে সরকারের উচিৎ তাদের ব্যাপারে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া। এফবিসিসিআইয়`র সহসভাপতি ও বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির সাধারণ সম্পাদক একুশে টিভি অনলাইনকে বলেন, সরকার আমাদের বড় একটা সুযোগ দিয়েছে। আমাদের উচিৎ,যার যা স্টোকে আছে তা নিজেদের স্বার্থেই বৈধ করা। তিনি বলেন, আগামী ১ জুলাই থেকে বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অঙ্গ সংগঠন হিসেবে কাজ করবে। পাশাপাশি এনবিআরের ওয়ার্কিং কমিটিতেও কাজ করবো আমরা। আগামী ৩০ জুনের মধ্যে মধ্যে সব স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে নিজের অপ্রদর্শিত স্বর্ণ নিজ নিজ বিভাগীয় ও জেলা শহরের রাজস্ব অফিসে বৈধ করুন। সময় বাড়ানোর দাবি নাকচ করে দিয়ে আগরওয়ালা বলেন, যারা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে করবে না, তাদের ব্যবসা করার সুযোগ নেই।তাদের স্বর্ণ অবৈধ বলে অভিহিত হবে- যোগ করেন তিনি।মেলায় আজ ২০০ কোটি টাকার রাজস্ব হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রথমদিন আমরা ২৪ কোটি টাকার রাজস্ব পেয়েছি। গতকাল লোক সংখ্যা কম হলেও করের পরিমাণ ছিল বেশি। প্রায় ৫১ কোটি টাকার স্বর্ণ গতকাল বৈধ হয়েছে। আজ ২`শ কোটি হবে বলে আমরা আশা রাখছি। সব মিলে গোটা বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৪`শ কোটি টাকার রাজস্ব আসবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।এর আগে গত রোববার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল মেলার উদ্বোধন করেন। প্রথম দিনই ২৪ কোটি টাকার রাজস্ব আয় হয়। প্রসঙ্গত, নীতিমালা না থাকায় দেশে কি পরিমাণ স্বর্ণ আছে তা জানা নেই সরকারের। ফলে চোরাচালান বন্ধ সম্ভব হতো না।পাশাপাশি অবৈধ স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা ধরাছোঁয়ার বাহিরে ছিলেন। এমতাবস্থায় সরকার নীতিমালা প্রণয়ন করে।( তারিখটা মনে নেই, জেনে নিতে হবে) তারই আলোকে এ মেলার আয়োজন করা হয়। আই/

ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) সামনে একটি মানববন্ধন সংগঠিত হয়েছে। রোববার এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ২১ জুন হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ারে চিকিৎসাধীন এক রোগীর মৃত্যুর পর তার স্বজনসহ বহিরাগতদের মাধ্যমে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হাসপাতালে হামলা এবং হাসপাতালের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ ছড়ানোর প্রতিবাদে এই মানববন্ধনটির আয়োজন করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ১৪ মে মো. শহীদ উল্লাহ্ নামের ৫৭ বছর বয়সী (ঠিকানা: পশ্চিম স্যোশালিয়া, রামগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর) রোগী মাল্টি অর্গাণ ফেইল্যূরসহ ভর্তি হন। চিকিৎসাকালে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তার ডায়াগনোসিস হয় ESRD on MHD with Type-I respiratory failure with Acute LVF ē Bilateral Pneumonia with unstable Angina with old CVD ē H/0- DM ē HTN হাসপাতালের পক্ষ হতে তাঁর চিকিৎসা জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। পাশাপাশি রোগীর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা সম্পর্কে হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ তাঁর স্বজনদের প্রতিদিন নিয়মিত দুই বেলা কাউন্সেলিংসহ বারবার অবহিত করেন। কিন্তু রোগীর ছেলে কামাল শুরু হতেই উশৃংখল আচরণসহ সবার সঙ্গে অশালীন আচরণ ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিলেন। সর্বশেষ তার বাবা মারা যাওয়া দুইদিন পূর্বে সে হাসপাতালের একজন লেডি অফিসারের সঙ্গে অশালীন ও আপত্তিকর আচরণ করেন এবং হাসপাতালের “বিল না দিয়ে রোগী নিয়ে যাব, দেখি হাসপাতাল কি করতে পারে!?” বলে হুমকি দিয়ে যান। তাঁর হুমকির প্রেক্ষিতে ১৯ জুন তেজগাঁও থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়। ২১জুন মৃত্যুর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বিল না দেওয়া হীন মানসে হাসপাতালে ত্রাস সৃষ্টিসহ শতশত বহিরাগতদের দিয়ে তান্ডব ও অরাজক পরিস্থিতি ও ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। সে ওই সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক নার্স ও কর্তৃপক্ষকে জিম্মি করে “বিল না দিয়ে” রোগী নিয়ে যাওয়ার জন্য পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই তাদের বহিরাগত লোকজনকে খবর দিয়ে রাখে এবং রোগী মারা যাবার আধা ঘণ্টার মধ্যেই শত শত লোক হাসপাতালে ভীড় করে। যদিও রোগীর বাড়ি ঢাকার বাইরে। হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্ত্তী`র নেতৃত্বে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন হাসপাতালের কর্মকর্তাগণ, মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্রছাত্রীবৃন্দ।  

রাজধানীতে বেড়েছে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ (ভিডিও)

বর্ষার শুরুতেই রাজধানীতে বেড়েছে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, গত তিন সপ্তাহে রাজধানীতে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৪শ’র বেশি। ডেঙ্গু প্রতিরোধে মশার বংশবৃদ্ধি রোধে বাড়ি ও আশপাশের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখা এবং দিনে মশারি টানিয়ে ঘুমানোর পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। ডেঙ্গু, ভাইরাসজনিত জ¦র। স্ত্রী এডিস মশার মাধ্যমে এ রোগ ছড়ায়। বর্ষাকালেই ডেঙ্গুর প্রকোপ বেশি। তবে এবছর বর্ষা শুরুর আগেই ডেঙ্গুর প্রার্দুভাব বেড়েছে। রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২০ জুন পর্যন্ত রাজধানীতে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৭শ’ ৭ জন। জানুয়ারিতে ৩৬ জন, ফেব্রুয়ারিতে ১৯, মার্চে ১২, এপ্রিলে ৪৫, মে মাসে ১শ’ ৫৩ এবং ২০ জুন পর্যন্ত এ সংখ্যা ৪শ’ ৪২। গত এপ্রিলে ডেঙ্গুতে মারা গেছেন দুইজন। জ্বও হলে প্যারাসিটামল ছাড়া অন্যকোন ওষুধ না খাওয়ার পরামর্শ চিকিৎসকদের। পরীক্ষায় ডেঙ্গু ধরা পড়লে প্রচুর পানি পান ও বিশ্রাম নেয়ার কথা বলছেন চিকিৎসকরা। ফুলের টব, ডাবের খোসা, পরিত্যক্ত টায়ার, এসির পানি, প্লাস্টিকের পাত্রসহ জমে থাকা পরিষ্কার পানিতে ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশার জন্ম। দিনের বেলায় কামড়ায় এডিস মশা। তাই বাড়ি ও আশপাশে কোথাও যাতে পরিষ্কার পানি জমে না থাকে সে বিষয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। শুধু সিটি কর্পোরেশন নয় এডিস মশার বংশবৃদ্ধি রোধে সর্বস্তরের সচেতনতা দরকার বলেও মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।  

রাজধানীর চলছে বৃক্ষ ও পরিবেশ মেলা (ভিডিও)

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে চলছে বৃক্ষ ও পরিবেশ মেলা। ফল-পুষ্পের নানা গাছে মেলা প্রাঙ্গণে সবুজের সমারোহ। দিনভর ভিড় লেগে আছে প্রকৃতিপ্রেমীদের। কিনছেন নানা জাতের গাছ। রাজধানীর বুকে সবুজ অরণ্য। প্রতি বছরের মত এবারো বর্ষা মৌসুমে আগারগাঁওয়ে বসেছে বৃক্ষ ও পরিবেশ মেলা। মেলায় প্রয়োজনীয় গাছের খোঁজে আসছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। বিশেষ করে যারা ছাদ কৃষি করেন তারা কিনছেন ফল-ফুলের নানা গাছ।  স্টলে স্টলে শোভা পাচ্ছে লেবু, জাম্বুরা, পেয়ারা, কমলা, নাশপাতি, সফেদাসহ বাহারি ফলের গাছ। চোখ জুড়ানো সবুজের মেলায় এসে খুশি দর্শনার্থীরা। মেলায় ঢুকতেই চোখে পড়ে নানা জাতে আম গাছ। মেলা সেজেছে ল্যাংড়া, আ¤্রপলিসহ একশ’রও বেশি জাতের আম গাছ। মেলায় আসা মানুষের আগ্রহ তাই আমগাছে। বিভিন্ন জাতের ফলের পাশাপাশি অর্কিড, ক্যাকটাস, বনসাই, ড্রসিনা, অ্যানথোরাম, মুসান্ডা, এরিকা ফুলের গাছ মেলার সৌন্দর্যকে বাড়িয়েছে বহুগুণে। মেলাজুড়ে আছে বনজও বৃক্ষের সমাহার। ত্রিশ টাকা থেকে শুরু করে লাখ টাকার সৌখিন গাছ শোভা পাচ্ছে মেলায়। নাগরিক জীবন থেকে হারিয়ে যাওয়া সবুজ মেলায় টানছে নগরবাসিকে।

যাত্রাবাড়িতে শিশুসহ একই পরিবারের ৫ জন গুলিবিদ্ধ

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে একটি বাসার জানালা দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে শটগানের গুলিতে বাসার ভেতরে থাকা দুই শিশুসহ একই পরিবারের ৪ জনসহ মোট পাঁচজন আহত হয়েছেন। শনিবার রাত ১১টার দিকে শনির আখড়া গোবিন্দপুর নূর মসজিদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন- টাইলস মিস্ত্রি হাফিজুল ইসলাম (২৪), তার ভাতিজি আবিদা (৫), ভাগিনা জুনায়েত (৪), ছোট ভাইয়ের বৌ সাথি (২০) এবং একই এলাকার জাহিদুল ইসলাম এনায়েত (২৪)। আহত হাফিজুলের ভাই আবদুল্লাহ বলেন, সবাই রাতের খাবার খেতে বসেছিলাম। এ সময় হঠাৎ জানালা দিয়ে কে বা কারা এলোপাতাড়িভাবে শটগান থেকে গুলি করে পালিয়ে যান। তবে কে বা কারা গুলি করেছে তা জানাতে পারেননি তিনি। আহতদের ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সবার মুখ-কপালে ছোররা গুলির দাগ রয়েছে বলে ঢামেক সূত্র জানায়। যাত্রাবাড়ী থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, শনিরআখড়া গোবিন্দপুর এলাকায় গুলির ঘটনার খবর পেয়েছি। এতে বাসার ভেতরে থাকা কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তবে তারা আশঙ্কামুক্ত। কারা, কী উদ্দেশ্যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা জানার চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।

খোলা জায়গায় ময়লার ভাগাড়, ভোগান্তিতে রাজধানীবাসী [ভিডিও]

রাস্তার এক পাশে নৌবাহিনীর ঘাঁটি, আর অপরপাশে বিমানবাহিনীর অফিসার্স কোয়ার্টার। মাঝখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ময়লার স্তূপ। তা থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে সারাক্ষণ। অথচ এ রাস্তা দিয়েই চলাচল সিভিল এভিয়েশন স্কুল ও কলেজ, বিএএফ শাহীন স্কুল ও কলেজ, বিএএফ ইংলিশ মিডিয়াম, শহীদ আনোয়ার গার্লস স্কুল ও কলেজসহ অন্য প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীদের।  নাখালপাড়া, তেজগাঁও, এলেনবাড়ি, আরজতপাড়ার মানুষের চলাচলও এ রাস্তায়। চিকিৎসকরা বলছেন, দীর্ঘমেয়াদি এমন দুর্গন্ধ শিশুদের মনোবিকাশের অন্তরায়। ক্ষতিকারক বড়দের জন্যও। রাজধানীর মিরপুর, পুরান ঢাকার লালবাগ-সূত্রাপুর-আগামসিলেন, মধ্যবাড্ডা, মালিবাগ, উত্তরার চারটি সেক্টরসহ আরও কিছু এলাকায় রাস্তার উপর রয়েছে ময়লার ভাগাড়। খোলা জায়গায় ময়লার ভাগাড় থেকে রেহাই চান রাজধানীবাসী।        

রাজধানীতে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে স্বর্ণকার নিহত

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে দুর্বৃত্তদের ছুরিঘাতে এক স্বর্ণকারের মৃত্যু হয়েছে। নিহত স্বর্ণকারের নাম মো. ইউনুস (৩৬)। গতকাল মঙ্গলবার দিনগত রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরিবার ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ইউনুসের যাত্রাবাড়ীর মীরহাজী বাগ বায়তুল আমান মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় রাত ২টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। পথে তিন যুবক তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান । বুধবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। নিহত ইউনুস কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার হোসেনপুর গ্রামের সর্দারের ছেলে।  এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে যাত্রাবাড়ী থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। অপরাধীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এই ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে রয়েছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা। আই/কেআই

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি