ঢাকা, ২০১৯-০৬-১৯ ০:৪৫:০৭, বুধবার

Live Scroll from Stock Exchange
 DSE
Up: 169 Dn: 85 Unc: 64
Up: 169 Dn: 85
Last Update:
T.Trd:   mn
T.Trd: mn
Live Scroll from Stock Exchange
 CSE
Up: 80 Dn: 48 Unc: 31
Up: 80 Dn: 48
Last Update: 6/18/2019 11:31:49 AM
T.Trd: 60.50  mn
T.Trd: 60.50 mn
Last Update:
‘বৃটেনের বাজারে বাংলাদেশি কৃষিজাত পণ্যের প্রচুর চাহিদা’

‘বৃটেনের বাজারে বাংলাদেশি কৃষিজাত পণ্যের প্রচুর চাহিদা’

ব্রিটেনের বাজারে বাংলাদেশের কৃষিজাত পণ্য ও মসলা পণ্যের বিপুল চাহিদা রয়েছে। এ বিষয়ক ব্যবসায়ে বিনিয়োগে বাংলাদেশের অর্থনীতি আরও চাঙ্গা হয়ে উঠবে। বাংলাদেশ সফররত বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত ব্রিটিশ ব্যবসায়ীদের সংগঠন ইউকেবিসিসিআই প্রতিনিধি দল এবং ঢাকা চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রির আলোচনায় এমন সম্ভাবনার তথ্য উঠে এসেছে। গতকাল সোমবার ডিসিসিআই কার্যালয়ে দু’পক্ষের আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। ডিসিসিআই’র সভাপতি ওসামা তাসীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় ডিসিসিআই সহ-সভাপতি ওয়াকার আহমেদ চৌধুরী, ইউকে বাংলাদেশে ক্যাটালিস্টস অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-এর চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ ওবিই ডিবিএ এবং সভাপতি বজলুর রশিদ এমবিই উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ঢাকা চেম্বারের পরিচালক ও কান্ট্রি কম্পিটিটিভনেস স্ট্যান্ডিং কমিটির সমন্বয়কারী পরিচালক ইঞ্চিঃ আকবর হাকিম বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্ভাবনার উপর একটি তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, সরকার দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকে আকর্ষণ করার জন্য ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করার পাশাপাশি কর সুবিধার পাশাপাশি ওয়ান স্টপ সার্ভিস প্রদান করছে এবং এ সুযোগ গ্রহণ করে যুক্তরাজ্যের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে আরও বেশি হারে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।
ইসলামী ব্যাংকের ৩৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এর ৩৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. নাজমুল হাসান, পিএইচডি এতে সভাপতিত্ব করেন। এ ছাড়া ব্যাংকের শরী’আহ সুপারভাইজরি কমিটির চেয়ারম্যান শায়খ মাওলানা মোহাম্মদ কুতুবুদ্দীন, ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান সৌদি আরবের আল-রাজি গ্রুপের ইউসিফ আব্দুল্লাহ আল-রাজী, ভাইস চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন, পরিচালক ও আইডিবি প্রতিনিধি ড. আরিফ সুলেমানসহ অন্যান্য পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. মাহবুব উল আলম, ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও কোম্পানি সচিব জে.কিউ.এম হাবিবুল্লাহ, এফসিএস এবং বিদেশি প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ারহোল্ডারসহ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শেয়ারহোল্ডার সভায় উপস্থিত ছিলেন। সভায় ২০১৮ সালের আর্থিক বিবরণীসহ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন করা হয়।

১৫ হাজার কোটি টাকার সম্পূরক বাজেট পাস

অতিরিক্ত ব্যয়ের অনুমোদন দিয়ে চলতি (২০১৮-১৯) অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট পাস করা হয়েছে। গতকাল সোমবার আলোচ্য অর্থবছরে যেসব মন্ত্রণালয় ও বিভাগ বরাদ্দের বেশি খরচ করেছে, তার অনুমোদন দিতে সংসদে এটি উপস্থাপন করা হয়।  অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল অসুস্থ থাকায় তার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পূরক বাজেট উপস্থাপন করলে তা সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়। আগামী ৩০ জুন সমাপ্ত চলতি অর্থবছরের কার্যাদি নির্বাহের জন্য সংযুক্ত তহবিল হতে মঞ্জুরিকৃত অর্থের অধিক অর্থ প্রদান ও নির্দিষ্টকরণের কর্তৃপক্ষ প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে নির্দিষ্টকরণ (সম্পূরক) বিল-২০১৯ উত্থাপন করেন। পরে বিলটি কণ্ঠভোটে পাস হয়। সম্পূরক বাজেটে বাড়তি ১৫ হাজার ১৬৬ কোটি ১৮ লাখ ৫৪ হাজার টাকার বরাদ্দ অনুমোদন করা হয়। মোট ৫৮টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে চলতি অর্থবছর ৩৭টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের উল্লেখিত পরিমাণ বাড়তি ব্যয় হয়। ২০১৮-১৯ বছরের জন্য চার লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট পাস করা হলেও কাটছাঁটের পর সংশোধিত বাজেটের আকার দাঁড়িয়েছে চার লাখ ৪২ হাজার ৫৪১ কোটি টাকা। ৩৭টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে সর্বাধিক দুই হাজার ৪৪৭ কোটি ৮৮ লাখ ২৩ হাজার টাকা নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়কে বরাদ্দের অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপরই রয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এ খাতে অতিরিক্ত বরাদ্দ দেওয়া হয় এক হাজার ৬০৪ কোটি ৬৪ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। এ ছাড়া এক হাজার কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ পাওয়া অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে রয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ খাতে এক হাজার ৫৪২ কোটি ৮৪ লাখ ৫৯ হাজার টাকা, বিদ্যুৎ বিভাগ এক হাজার ২৭৬ কোটি ৭৯ লাখ ৪৪ হাজার টাকা এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এক হাজার ১৮২ কোটি ৯৩ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। সম্পূরক বাজেট প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, চলতি অর্থবছরের মূল বাজেটে জিডিপির প্রবৃদ্ধির হার ৭ দশমিক ৮ শতাংশ অনুমান করেছিলাম। সংশোধিত বাজেটে তা ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ হবে বলে আশা করছি। বাজেট পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে সতর্ক থাকার জন্যই মূল্যস্ম্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা আরও বলেন, অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ এখন যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। এটা দেখে সারা বিশ্ব আজ অবাক হচ্ছে। বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে এখন উন্নয়নের বিস্ময়। যেখানে যাই সেখানেই সেই কদরটা পাই। দেশবাসী সেই সম্মানটা পায়। কাজেই অযথা কিছু কথা বলে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত না করাই ভালো। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে সম্পূরক বাজেটের অর্থ অনুমোদনের জন্য ৫৮টি মঞ্জুরি দাবি উত্থাপন করা হয়। এসব দাবির মধ্যে ৪টি দাবির ওপর আনা ছাঁটাই প্রস্তাবের ওপর আলোচনা হয়। এগুলো হচ্ছে- জননিরাপত্তা বিভাগ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। বাকি মঞ্জুরি দাবিগুলো সরাসরি ভোটে দেওয়া হয়। অবশ্য সব ছাঁটাই প্রস্তাবই কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা `নির্দিষ্টকরণ (সম্পূরক) বিল-২০১৯` উত্থাপন করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়। প্রধানমন্ত্রী সংসদে বিল উত্থাপনের ঘটনা এটাই প্রথম। এদিকে, সংসদ অধিবেশনে সম্পূরক বাজেটের ওপর মোট ৫৮টি দাবির ওপর ২১৭টি ছাঁটাই প্রস্তাব আনা হয়। ছাঁটাই প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নেন জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ, মো. ফখরুল ইমাম, লিয়াকত হোসেন খোকা, পীর ফজলুর রহমান, ডা. রুস্তম আলী ফরাজী ও রওশন আরা মান্নান এবং বিএনপির মো. হারুনুর রশীদ ও গণফোরামের মোকাব্বির খান। তারা বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সমালোচনার পাশাপাশি সম্পূরক বাজেট বরাদ্দ না দেওয়ার দাবি জানান।

এফএসআইবিএল ব্যাংকে দেওয়া যাবে বাখরাবাদ গ্যাসের বিল

বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের মধ্যে অনলাইন গ্যাস বিল আদায় সংক্রান্ত এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। সোমবার (১৭ জুন) কুমিল্লায় বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড এর প্রধান কার্যালয়ে এ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ চুক্তির আওতায় বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেডের গ্রাহকগণ ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লি:-এর যেকোন শাখায় গ্যাস বিলের টাকা জমা দিতে পারবেন। অনুষ্ঠানে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী নিজাম শরিফুল ইসলাম ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ মোস্তফা খায়ের স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিপত্র বিনিময় করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এসি  

এসএমই ব্যাংকিং কর্মীদের জন্য ব্র্যাক ব্যাংকের প্রশিক্ষণ

এসএমই ব্যাংকিং ডিভিশনের বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজারদের জন্য ‘এক্সেল ইয়োর ক্যারিয়ার উইথ ব্র্যাক ব্যাংক’ শীর্ষক একটি প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড। এই প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য ছিল প্রোডাক্ট ও ঋণ, ব্যবস্থাপনাগত দক্ষতা, ইন্টারনাল ও এক্সটারনাল কমপ্লায়েন্স বিষয়ে কর্মীদের জ্ঞান বৃদ্ধি করা। স্মল বিজনেস, আন্ডাররাইটিং ও ইমার্জিং কর্পোরেট বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ প্রশিক্ষণ সেশন পরিচালনা করেন। ঢাকায় ব্র্যাক ব্যাংকের হেড অফিসে অনুষ্ঠিত সমাপনী সেশনে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাক ব্যাংকের এসইএম ব্যাংকিং বিভাগের প্রধান সৈয়দ আবদুল মোমেন; স্মল বিজনেস (B÷) বিভাগের প্রধান এস এম আলমগীর হোসেন, স্মল বিজনেস বিভাগের রিজিওনাল প্রধান মুহাম্মদ আব্দুল আজিজসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ। একটি মূল্যবোধ ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হিসাবে, ব্র্যাক ব্যাংক সবসময় কর্মীদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রোগ্রামের আয়োজন করে এবং তাদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্যভাবে বিনিয়োগ করে। এসি  

বিকাশ-ইউক্যাশ ব্যালেন্স দেখতেও টাকা লাগবে

এতোদিন বিনামূল্যে মোবাইল অপারেটরগুলো ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স দেখালেও এখন থেকে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নিবে। যে কোন গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স জানতে দিতে হবে ৪০ পয়সা। গত বৃহস্পতিবার এ-সংক্রান্ত এক নিদের্শনা জারি করা হয়েছে হলেও রোববার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়। নিদের্শনাই উল্লেখ্য করা হয়েছে, মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সেবার জন্য এমএফএস অপারেটররা মোবাইল অপারেটরদের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে। এনেটওয়ার্ক ব্যবহারের জন্যই এখন থেকে এমএফএস অপারেটদের তাদের পয়সা দিতে হবে। এ নির্দেশনায় আরো বলা হয়, মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসে প্রতিবার লেনদেন, ব্যালেন্স চেক বা স্টেটমেন্ট নেওয়াসহ নানা ধরনের কাজকে একেকটি সেশন ধরা হবে। প্রতিটি সেশনের সময় হবে ৯০ সেকেন্ড। প্রতি ৯০ সেকেন্ডের একেকটি সেশনের জন্য মোবাইল ফোন অপারেটরদের ৮৫ পয়সা করে দিতে হবে।এছাড়া একেকটি সেশনের মধ্যে দুটি এসএমএসও থাকবে। তবে শুধু ব্যালেন্স চেক করতে গ্রাহককে সেশনের চার্জ দিতে হবে ৪০ পয়সা।

প্রস্তাবিত বাজেট পুঁজিবাজার বান্ধব: ডিএসই

প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পুঁজিবাজার বান্ধব হয়েছে বলে জানিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। একইসঙ্গে অপ্রদর্শিত অর্থ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়ারও দাবি জানায় ডিএসই। রোববার (১৬ জুন) দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলের ডিএসই কার্যালয়ে আয়োজিত প্রস্তাবিত বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কে এ এম মাজেদুর রহমান এ কথা জানান। ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এ এম মাজেদুর রহমান বলেন, পুঁজিবাজারের উন্নয়ন ও বিকাশে সারা বিশ্বনীতি সমর্থন এবং প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সম্পৃক্ততার মাধ্যমে সরকারের যে বলিষ্ঠ ভূমিকা থাকে, ঘোষিত বাজেটেও সে ধরনের ভূমিকা রয়েছে। ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, দীর্ঘমেয়াদী মূলধন সংগ্রহের অন্যতম প্রধান মাধ্যম হলো দেশের পুঁজিবাজার। আগামীতে অর্থনৈতিক উন্নয়ন পরিকল্পনার অংশীদার হিসেবে দেশের পুঁজিবাজারকে সরকার কাঙ্খিত লক্ষ্যে এগিয়ে নেবে। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ আশা করে যে, সরকারের ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে পুঁজিবাজারের জন্য যেসব প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এতে বাজারে বিনিয়োগের অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি ও জাতীয় অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে। বেসরকারিখাত আরো শক্তিশালী ও বিকশিত হয়ে দেশে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি হবে। যা দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আরও বেশি আকৃষ্ট করবে। পুঁজিবাজারের উন্নয়ন ও বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে নিম্নোক্ত প্রণোদনাসমূহের জন্য ডিএসই বিশেষভাবে অভিনন্দন জানাচ্ছে ও সরকারের ইতিবাচক মনোভাবের ফলে ক্রমবিকাশমান পুঁজিবাজার আরও এগিয়ে যাবে বলে ডিএসই’র এমডি আশা করেন। প্রস্তাবিত বাজেটে অনেকগুলো প্রণোদনার পাশাপাশি ডিএসই আরো কিছু প্রণোদনার বিবেচনার দাবিও জানান তিনি। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে-স্টক এক্সচেঞ্জকে ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন পরবর্তী ৫ বছরের জন্য পূর্ণ কর অব্যাহতি সুবিধা দেওয়া, এসএমই মার্কেটের লেনদেনের উপর উৎসে কর অব্যাহতি, স্টক এক্সচেঞ্জের ট্রেডিং প্লাটফর্মের মাধ্যমে ট্রেজারি বিল এবং বন্ডের লেনদেনের ওপর কর অব্যাহতির বিষয় সুস্পষ্টকরণ, তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্যে করপোরেট আয়কর হারের পার্থক্য ১০ শতাংশের পরিবর্তে ২০ শতাংশে উন্নীত করাঃ তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্যে করপোরেট আয়কর হারের পার্থক্য শতকরা ১০ এর পরিবর্তে শতকরা ২০-এ উন্নীত করা ও স্টক এক্সচেঞ্জের ট্রেক হোল্ডারদের কাছ থেকে উৎসে কর সংগ্রহের হার হ্রাস করার প্রস্তাব করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে ডিএসই’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবুল হাশেম, ডিএসই’র পরিচালক রকিবুর রহমান, মিনহাজ মান্নান ইমন উপস্থিত ছিলেন। আরকে//

পোশাক খাতে ৩ শতাংশ প্রণোদনা চায় বিজিএমইএ

দেশের তৈরি পোশাক খাতকে ‘দুর্বল শিশু’ আখ্যা দিয়ে পোশাক রফতানির সব ক্ষেত্রে অন্তত ৩ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক। প্রস্তাবিত বাজেটে বিজিএমইএ’র সব দাবি পূরণ না হলেও বাজেটকে ব্যবসাবান্ধব ও জনকল্যাণমূলক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। রোববার (১৬ জুন) রাজধানীর একটি হোটেলে প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পরবর্তী প্রতিক্রিয়া জানাতে বিজিএমইএ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। পোশাক রফতানিতে ১ শতাংশ বাড়তি প্রণোদনা দেওয়ায় বাজেটে ৭০ ভাগ খুশি বলেও জানান তিনি। রুবানা হক বলেন, কৃষকের সঙ্গে মালিকের তুলনা করা চলে না। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে গেলে আমাদের মনে হয় শিশু। দুর্বল শিশুর অবস্থানে চলে এসেছি। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রণোদনা অন্তত ৩ শতাংশে উন্নীত করার দাবি করছি। এসময় পোশাক কারখানায় গ্যাস-বিদ্যুতে ভ্যাট অব্যাহতির বিষয়টিকেও স্বাগত জানান রুবানা। তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত যদি আমাদের শুনতে হয়, আমরা ম্যাচিউরড, এস্টাব্লিশড, আমাদের আর সাহায্য দরকার নেই, তা ঠিক নয়। প্রতিথযশা অর্থনীতিবিদরাও তাও বলেন। পোশাকে কিন্তু ডাবল ডিজিট প্রবৃদ্ধি নেই। গড়ে ৫ শতাংশের মতো প্রবৃদ্ধি রয়েছে। গত এক মাসে আমরা ৩০টি ফ্যাক্টরি বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছি। ঈদের আগে অনেকে মেশিন বিক্রি করে হলেও বেতন দিয়েছে। পোশাক খাতকে বাঁচিয়ে রাখতে প্রণোদনা বাড়ানো দরকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, গত কয়েকবছরে আমরা সর্বোচ্চ ৮০০ কোটি টাকার প্রণোদনা উঠিয়েছি। নানারকম আমলাতান্ত্রিক ঝামেলার কারণে অনেকেই ইনসেন্টিভ পান না, নেনও না। নতুন বাজারের ক্ষেত্রে প্রণোদনা বাড়ানো উচিৎ। পোশাক খাতকে পরাজিত বনের বিড়াল বানাবেন না। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, এবারের বাজেটে আমরা ৭০ ভাগ খুশি। কিন্তু আমরা অন্তত ৩ শতাংশ প্রণোদনা পেতে চাই। বাজেটের প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় এটি জনকল্যাণমুখী বাজেট বলেছিলাম। আমি এখনও আগের অবস্থানেই আছি। এটি ব্যবসাবান্ধব ও জনকল্যাণমূলক বাজেট। রপ্তানী মুল্যের বিপরীতে ডলারের দাম টাকার বিপরীতে অবমুল্যায়নের দাবী বিবেচনায় সরকারের কাছে আবারো আহ্বান জানান তিনি। সামাজিক সুরক্ষা খাতে পোশাক শ্রমিকদের অন্তুর্ভুক্ত করারও জোর দাবি জানান তিনি। এছাড়া কৃষির সাথে পোশাক খাতের প্রণোদনার বিষয়টি তুলনা করা ঠিক নয় বলেও জানান বিজিএমইএ সভাপতি। সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ’র সিনিয়র সহ-সভাপতি ফয়সাল সামাদ, সহ-সভাপতি এম এম মান্নান কচিসহ সংগঠনের ঊর্ধ্বতন নেতারা উপস্থিত ছিলেন। আরকে//

ফেসবুক লাইভে আসছেন হুয়াওয়ের সিইও রেন ঝেংফেই

হুয়াওয়ে নিয়ে চলমান সংকটের বিষয়ে সরাসরি কথা বলতে ফেসবুক লাইভে আসছেন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) রেন ঝেংফেই। বিশ্বের বিখ্যাত দুই জন বিশেষজ্ঞের সঙ্গে প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টা ধরে ওই লাইভ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে এসব চিন্তাবিদের করা বিভিন্ন প্রশ্নের সরাসরি জবাব দেবেন তিনি। তারা হলেন, এমআইটি মিডিয়া ল্যাবের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) অধ্যাপক নিকোলাস নিগ্রোপন্থে এবং লেখক ও ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট জর্জ গিলডার। আগামী ১৭ জুন দুপুর ১২টায় চীনের শেনঝেনে হুয়াওয়ের প্রধান কার্যালয়ে এই ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠানটি শুরু হবে। অনুষ্ঠানে রেন ঝেংফেই হুয়াওয়ের বিষয়ে বিভিন্ন ভুল ধারণার বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যা দেবেন এবং বিশ্ববাসীর কাছে নিজের মতামত তুলে ধরবেন। হুয়াওয়ে বাংলাদেশ ফেসবুক পেজ (https://www.facebook.com/HuaweiTechBD/) এবং হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের পেজ থেকে আগামীকাল দুপুর ১২টায় এই লাইভ অনুষ্ঠানটি সবাই দেখতে পারবেন। কেআই/

এসআইবিএলের শাখা মানি লন্ডারিং প্রতিরোধে সম্মেলন

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড এর শাখা মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ পরিপালন কর্মকর্তাদের সম্মেলন ১৫ জুন ঢাকায় সিরডাপ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ব্যাংকের ১৫৫টি শাখার মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ পরিপালন কর্মকর্তাগণ এই সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)-এর প্রধান আবু হেনা মো. রাজী হাসান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এসআইবিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান র্নিবাহী কাজী ওসমান আলী এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক ও বিএফআইইউ-এর অপারেশনাল হেড মো. জাকির হোসেন চৌধুরী। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন এসআইবিএল এর উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ পরিপালন কর্মকর্তা আবু নাসের চৌধুরী। এ সময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী তউহীদ উল আলম, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সিরাজুল হক এবং প্রধান কার্যালয়ের অন্যান্য উর্ধ্বতন নির্বাহীবৃন্দ। কেআই/  

৯ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করবে মার্কেন্টাইল ব্যাংক

পাঁচজন তরুণ মেধাবী ব্যাংকার, চার গুণী ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা দিচ্ছে মার্কেন্টাইল ব্যাংক। ব্যাংকের ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী ১৭ জুন রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে গ্রাহক ও সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সেই অনুষ্ঠানে ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা ২০১৯’ এর জন্য নির্বাচিত চার গুণীজন ও এক প্রতিষ্ঠান এবং ‘এমবিএল ইয়াং ব্যাংকার্স অ্যাপ্রিশিয়েশন অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’ এর জন্য নির্বাচিত পাঁচজন তরুণ ও মেধাবী ব্যাংকারকে পুরস্কৃত করা হবে। মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেডের ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের বোর্ডরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ব্যাংকের চেয়ারম্যান এ.কে.এম. সাহিদ রেজা। এ সময় ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোঃ কামরুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান এ.এস.এম. ফিরোজ আলম, নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আকরাম হোসেন (হুমায়ুন), মার্কেন্টাইল ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এম. আমানউল্লাহ, মার্কেন্টাইল ব্যাংক সিকিউরিটিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম, পরিচালক মোরশেদ আলম, মোঃ আনোয়ারুল হক ও আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন প্রমুখ। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে ব্যাংকের চেয়ারম্যান এ.কে.এম. সাহিদ রেজা বিগত বছরে ব্যাংকের উল্লেখযোগ্য অর্জনসমূহ এবং ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরে বলেন, ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্টিত এ ব্যাংকটি আজ আর্থিক লেনদেন ও সেবায় বিশ্বস্থতার প্রতীক। বর্তমানে ব্যাংকটির ১৩৯টি শাখা ও ১৬৯টি এটিএম বুথ রয়েছে। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য পরিচালনায় বিশ্বের ৬৩৫টি ব্যাংকের সাথে করেসপন্ডেন্ট ব্যাংকিং রিলেশনশিপ রয়েছে। ৩৩টি দেশি-বিদেশি এক্সেঞ্জ হাউজ এর মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশিদের কষ্টার্জিত অর্থ দ্রুত ও নিরাপদে পৌঁছানোর কাজ করে যাচ্ছে। দেশের অভ্যন্তরে বিভিন্ন ব্যাংক ও এনজিও এর সাথে চুক্তির ফলে প্রবাসী আয় ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেল শক্তিশালী হয়েছে। আই ব্যাংকিংসহ আধুনিক সকল প্রকার ব্যাংকিং সেবা প্রদানে একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে এ ব্যাংকের কার্যক্রম আরো বাড়াতে একটি ইসলামী ব্যাংকিং উইন্ডো খোলা হবে। তিনি আরো বলেন, ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত ব্যাংকের মোট আমানত ২৩ হাজার ৬৪০ কোটি টাকা। এ সময়ে ব্যাংকের মোট ঋণ ও অগ্রিম ২২ হাজার ৬১১ কোটি টাকা। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকের মুনাফা হয়েছে ১৫৯ কোটি টাকা। এ.কে.এম সাহিদ রেজা বলেন, মার্কেন্টাইল ব্যাংক ঋণ প্রদান ও আমানত গ্রহণে কোন এগ্রেসিভ ব্যাংকিং করে না। সাধারণ মানুষের সেবাই ব্যাংক তার কার্যক্রম আরো বেগবান করবে। কারণ মুনাফা আমাদের মূল লক্ষ্য না। আমাদের লক্ষ্য সেবা। ব্যাংকের চেয়ারম্যান সাহিদ রেজা ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা-২০১৯’ এর জন্য নির্বাচিত চার গুণীজন ও এক প্রতিষ্ঠানের নাম ঘোষণা করেছেন। তারা হলেন- (০১) শিক্ষা- ড. তোফায়েল আহমেদ, (০২) মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণা- ক্যাপ্টেন সাহাবুদ্দিন আহমেদ, বীর উত্তম, (০৩) শিল্প ও বাণিজ্য- আবুল কাশেম (আবুল খায়ের গ্রুপ), (০৪) ক্রীড়া- মো. মোশাররাফ হোসেন খান (সাঁতার) ও (০৫) অর্থনীতি ও অর্থনীতি বিষয়ক গবেষণা- বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট, ময়মনসিংহ। তাদের প্রত্যেককে ২ ভরি ওজনের স্বর্ণপদক, ৩ লাখ টাকা ও ক্রেস্ট দেয়া হবে। এছাড়াও ‘এমবিএল ইয়াং ব্যাংকার্স অ্যাপ্রিশিয়েশন অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’র জন্য নির্বাচিত পাঁচজন তরুণ ও মেধাবী ব্যাংকারের নাম ঘোষণা করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, প্রতিযোগিতার পাঁচটি ধাপ পেরিয়ে এসকল মেধাবীরা নির্বাচিত হয়েছেন। তারা হলেন- (০১) উজ্জল কুমার সিংহ, অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট, আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড, (০২) সিরাজুল ইসলাম, অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট, এবি ব্যাংক লিমিটেড, (০৩) এ কে এম হোসেনুজ্জামান, ফার্স্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট, মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড, (০৪) তাওহীদ খান মজলিস, ফার্স্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড ও (০৫) মোহাম্মদ আরাফাত হোসেন, ফার্স্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট, ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড। নির্বাচিতদের প্রত্যেককে ২ লাখ টাকা, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট দেয়া হবে। ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোঃ কামরুল ইসলাম চৌধুরী সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের বোর্ড মেম্বার ও নির্বাহী কর্মকর্তাদের মধ্যে একটি সুসম্পর্ক বিরাজমান। উভয়ের মধ্যে সুন্দর ও সুষ্ঠু সমন্বয়ের ফলে ব্যাংকটির কার্যক্রম দিনদিন এগিয়ে যাচ্ছে। আগামীতে কার্যক্রমের এ গতি আরো বেড়ে যাবে বলে আশা রাখি। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মতিউল হাসান, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক জি.ডব্লিউ.এম. মোর্তজা, মোঃ জাকির হোসাইন ও আদিল রায়হানসহ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি