ঢাকা, ২০১৯-০৬-২৬ ৭:৪৬:৪৩, বুধবার

অভিনন্দনের গোঁফকে ‘জাতীয় প্রতীক’ ঘোষণার দাবি

অভিনন্দনের গোঁফকে ‘জাতীয় প্রতীক’ ঘোষণার দাবি

বিমান হামলা চালাতে গিয়ে পাকিস্তানের হাতে আটক হওয়া সেই ভারতীয় পাইলটের গোঁফকে ‘জাতীয় প্রতীক’ হিসেবে ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন লোকসভার এক সাংসদ। সোমবার লোকসভার অধিবেশনে দেশটির রাষ্ট্রপতির দেয়া ভাষণের উপর ধন্যবাদ জানাতে গিয়ে কংগ্রেস দলীয় নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী এ দাবি জানান। অধীর বলেন, বিমানসেনা অভিনন্দন বর্তমান ভারতের জন্য গর্বের। তার সাহসিকতার জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে তাকে সম্মান জানানো দরকার। পাশাপাশি তার গোঁফকে জাতীয় প্রতীক হিসেবে মর্যাদা দেয়ার দাবি জানান এ কংগ্রেস নেতা। উল্লেখ, গত ফেব্রুয়ারিতে ভারত নিয়ন্ত্রিত পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলায় ৪৪ জন ভারতীয় জওয়ান নিহত হয়। ওই হামলার দায় স্বীকার করেছিল জয়েশ-ই-মোহাম্মাদ নামের একটি জঙ্গি সংগঠন। সে হামলার ঘটনায় পাকিস্তানকে দায়ী করে ভারত, তবে অস্বীকার করে পাকিস্তান। এ ঘটনার জেরে দেশ দুটির মধ্যে যুদ্ধের আশঙ্কা দেখা দেয়। হামলার প্রতিক্রিয়া স্বরুপ ১২ দিন পর কাশ্মীরের বালাকোটে বিমান হামলা চালায় ভারত। সে সময় গুলিতে ভারতীয় একটি বিমান ভূপাতিত করে পাকিস্তান। সে সময় তাদের হাতে আটক হন ভারতের বিমানসেনা অভিনন্দন বর্তমান। দীর্ঘ আলোচনা শেষে ৬০ দিন পর বর্তমানকে ভারতের নিকট হস্তান্তর করে ইমরান খানের সরকার। সে সময় তাকে বীর হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। ভারতে অভিনন্দন এখন বেশ জনপ্রিয়। অনেকেই তার গোঁফের মত গোঁফ রাখছেন। শুধু তাই নয়, অভিনন্দন নামে শাড়িও বিক্রি হচ্ছে দেশটিতে।  আই/
ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থায় মার্কিন সাইবার হামলা ব্যর্থ হয়েছে: ইরান

ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থায় আমেরিকার চালানো সাইবার হামলা ব্যর্থ হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরান। মার্কিন হামলায় ইরানি ক্ষেপণাস্ত্রের নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থায় কোনো বিঘ্ন ঘটেনি বলে জানায় তারা। (খবর, রেডিও তেহরান) ইরানের যোগাযোগ ও প্রযুক্তিমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ আজারি জাহরোমি সোমবার এক টুইটার বার্তায় বলেছেন, “গণমাধ্যম জিজ্ঞেস করছে সাইবার হামলা হয়েছে কিনা। তারা কঠোর প্রচেষ্টা চালিয়েছে, তবে তারা এখনো কোনো সফল হামলা চালাতে পারেনি। গত বৃহস্পতিবার মার্কিন গণমাধ্যম দাবি করেছে, ইরানের রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ন্ত্রণকারী কম্পিউটার ব্যবস্থার ওপর আমেরিকা হামলা চালিয়েছে। ইরানের হরমুজগান প্রদেশের আকাশ থেকে আমেরিকার একটি আরকিউ-৪এ গ্লোবাল হক ড্রোন ভূপাতিত করার পরপরই আমেরিকা সাইবার হামলার কথা ঘোষণা করে। তথ্য সংগ্রহের সময় ইরান তার নিজস্ব প্রযু্ক্তিক্তে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র খোরদাদ-৩ দিয়ে ভূপাতিত করে। জাহরোমি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ইরান মার্কিন সাইবার হামলা শিকার। এর মধ্যে শুধু গতবছরই আমেরিকা তিন কোটি ৩০ লাখ দফা হামলা চালায় তবে তা ব্যর্থ করে দিয়েছে ইরানি বিশেষজ্ঞরা। এনএম/আরকে

ইস্তানবুলের মেয়র নির্বাচনে একেপার্টির হার

তুরস্কের ইস্তানবুলের মেয়র নির্বাচনে বিরোধী পার্টি কামাল আতাতুর্কের দল সিএইচপি’র কাছে হেরেছে এরদোগানের ক্ষমতাসীন একে পার্টি। রোববারের ওই নির্বাচনে সিএইচপি প্রার্থী ইকরাম ইমামুগলোর কাছে প্রায় সাড়ে সাত লাখ ভোটের ব্যবধানে হেরে যায় একে পাটির বিনালি ইয়েলদ্রিম। তুরস্ক ভিত্তিক সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৯৯ দশমিক ৩৭ শতাংশ ভোট গণনা হয়েছে। যেখানে ৫৪ দশমিক ০৪ শতাংশ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন ইমামুগলু। আর একে পার্টির প্রার্থী ইলদ্রিম পান ৪৫ দশমিক ০৯ শতাংশ ভোট। প্রাপ্ত ভোটের ফলাফলে, ইমামুগলু পেয়েছেন ৪৭ লক্ষাধিক ভোট আর ইলদ্রিম পেয়েছেন ৪০ লাখ। উভয়ের ভোটের ব্যবধান সাত লাখের বেশি। এদিকে, চুড়ান্ত ফল প্রকাশ না হলেও বেসরকারিভাবে নির্বাচিত সিএইচপি প্রার্থীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যাপ এরদোগান। আর পরাজিত একে পার্টির প্রার্থী বিনালি ইয়েলদ্রিম নতুন মেয়রকে অভিনন্দন জানিয়ে একসাথে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। নির্বাচিত ইমামুগলু বলেন, আপনাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। গণতন্ত্রের এ ধারা অব্যহত রাখবেন বলে আমি বিশ্বাস করি। এর মধ্য দিয়ে নতুন যাত্রার সূচনা হলো বলেও জানান নতুন মেয়র। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি আই/

যুক্তরাষ্ট্রের মৃত্যু ঘোষণা করলো ইরানের পার্লামেন্ট

মধ্যপ্রাচ্যে চলমান উত্তেজনারমুখে যুক্তরাষ্ট্রের মৃত্যু ঘোষণা করেছে ইরানের পার্লামেন্ট। রোববার পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার মাসুদ পেজেশকিয়ান অধীবেশনের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রকে ‘বিশ্বের আসল সন্ত্রাসী’ হিসেবে আখ্যায়িত করলে সংসদ সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রের মৃত্যু ঘোষণা দিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন। গত বৃহস্পতিবার ইরান কর্তৃক মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত হওয়ার পর ওয়াশিংটন ও তেহরানের মাঝে উত্তেজনার তীব্রতা বৃদ্ধি পায়। এরপরই ইরানকে কঠিন হুশিয়ারি দেয় ট্রাম্প। ওই রাতেই ইরানে হামলার নির্দেশ দেন তিনি। পরে তাৎক্ষনিকভাবে সে সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। পরে এক বিবৃতিতে হামলা থেকে বিরত থাকার কারণ হিসেবে বলেন, ওই হামলায় বেশকিছু বেসামরিক ইরানি মারা যাবেন বলে তিনি তা থেকে বিরত থাকেন। ট্রাম্পের এমন কথার পাল্টা জবাবে শনিবার তেহরান ঘোষণা দেয়, তারা যেকোন ধরনের হামলার সমুচিত জবাব দিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। ইরানের সেনা বাহিনীর কর্মকর্তা মেজর জেনারেল গোলাম আলী রশীদ হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, এ অঞ্চলে মার্কিন হামলা হলে পাল্টা জবাবে যে পরিস্থিতি তৈরি হবে, তা নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা আর কারো থাকবেনা। ইরানের ডেপুটি স্পিকার আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র সকল সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে মদদ দিচ্ছে। তাদের হাতে ভারী অস্ত্র তুলে দিয়ে অসংখ্য মানুষকে হত্যা করছে। বিশ্ব ভূখণ্ড তারা অশান্ত করে তুলেছে। এখন তারা আবার আলোচনার কথা বলছে। যা একেবারে হাস্যকর-যোগ করেন তিনি। এদিকে, ইরানের রকেট ও ক্ষেপনাস্ত্র ব্যবস্থায় সাইবার হামলার হুশিয়ারি দিয়েছে পেন্টাগন। তবে ইরানের পক্ষ থেকেও ওয়াশিংটনের ক্ষেপনাস্ত্রে সাইবার হামলা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে। সূত্র: দ্যা জেরুজালেম পোষ্ট আই/আরকে

ইথিওপিয়ায় গুলিতে সেনাপ্রধান নিহত

জাতিগত সহিংসতার মুখে আফ্রিকার দেশ ইথিওপিয়ায় অভ্যুত্থান চেষ্টাকারীদের প্রতিহত করতে গিয়ে নিজের দেহরক্ষীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল সিরে মেকোনেন। শনিবার রাজধানী আদ্দিস আবাবার উত্তরাঞ্চলের একটি শহরে অভ্যুত্থান চেষ্টাকারীদের দমন করতে তিনি প্রাণ হারান। দুষ্কৃতকারী সেসময় তার সঙ্গেই ছিল বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বরাত দিয়ে বিবিসি এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ বলেছেন, অভ্যুত্থান চেষ্টাকারীদের রুখতে গিয়ে সেনাপ্রধান মেকোনেন মারা গেছেন। এসময় তার আরও দুই সেনা কর্মকর্তা নিহত হন বলে জানান তিনি। দীর্ঘদিন ধরে দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে জাতিগত সহিংসতা চলে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে তা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলাফল শনিবারের এ মর্মান্তিক ঘটনা। এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের পক্ষ থেকে আদ্দিস আবাবায় অবস্থানকারী কর্মকর্তাদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ভেবে চিন্তে নিদ্ধান্ত গ্রহনের পরামর্শ দেয়া হয়। অভ্যুত্থানকারীদের বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে তাকেসহ কয়েকজনকে গুলি করা হয়। এতে মেকোনেনসহ বেশ কয়েকজন মারাত্মক গুলিবিদ্ধ হন। এ খবর প্রধানমন্ত্রীর নিকট গেলে, প্রথমে তিনি মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করতে পারেননি। পরে তিনি খবর পান যে মেকোনেন মারা গেছেন। বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আফ্রিকার এ দেশটিতে নয়টি প্রদেশ রয়েছে। এদিকে আমহারার আঞ্চলিক নিরাপত্তা প্রধান আসামিনিউ তোসিগে ওই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার পরিকল্পনা করেছিলেন বলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এ বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়। তবে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে কিনা এ ব্যাপারে স্পষ্ট কিছু বলা হয়নি। সূত্র: বিবিসি আই/আরকে

কিমকে ট্রাম্পের ‘চমৎকার চিঠি’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছ থেকে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন একটি ব্যক্তিগত চিঠি পেয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। ওই চিঠিকে ‘চমৎকার’ বলে বর্ণনা করেছেন কিম। ‘চিঠির কৌতূহলোদ্দীপক বিষয়বস্তু নিয়ে গভীরভাবে ভাবছেন’ তিনি। এ ছাড়া ট্রাম্পের ‘অসাধারণ’ সাহসেরও প্রশংসাও করেছেন তিনি। এ মাসের শুরুর দিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, কিম জং-উনের কাছ থেকে তিনি একটি সুন্দর চিঠি পেয়েছেন। তবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের চিঠি কখন আর কীভাবে কিমের কাছে পৌঁছানো হয়েছে, তা পরিষ্কার করা হয়নি। গত ফেব্রুয়ারি মাসে ভিয়েতনামে ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং কিম জং উনের বৈঠকটি কোনও সমঝোতা ছাড়াই শেষ হয়ে যায়। এরপর থেকে দুই দেশের মধ্যে আলোচনা স্থগিত হয়ে রয়েছে। ট্রাম্প এবং কিমের ওই বৈঠক ব্যর্থ হয়ে যাওযার পর এটাই দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কে গত কয়েক মাসের মধ্যে সবচেয়ে বড় অগ্রগতি বলে মনে করা যায়। তবে দুই নেতাই বেশ কয়েকটি চিঠি আদান-প্রদান করেছেন। চিঠির এই সময়টিও বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সামনের সপ্তাহেই সিউলে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইনের সঙ্গে আলোচনায় বসতে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এনএম

তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা ট্রাম্পের

ইরানের ওপর আরোও ‘গুরুতর’ নিষেধাজ্ঞার আরোপ করার কথা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচীতে বাঁধা দিতেই ইরানের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা বলে জানান তিনি। তিনি জানান, তেহরান তাদের অবস্থান থেকে সরে না আসা পর্যন্ত অর্থনৈতিক চাপ বজায় রাখা হবে বলে। ট্রাম্প সাংবাদিকদের জানান, ‘আমরা অতিরিক্ত নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছি।(কিছু) ক্ষেত্রে খুব দ্রুত তা করা হবে।’ পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে আন্তর্জাতিক চুক্তির সীমা লঙ্ঘন সম্পর্কিত ইরানের ঘোষণা আসার পরই এমন কথা জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার সীমা বিষয়ে বিশ্বের পরাশক্তিগুলোর সাথে ইরানের চুক্তি হয়েছিল ২০১৫ সালে। সে অনুযায়ী কিছু বিষয়ে নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেওয়া হয়েছিল ও ইরানকে তেল রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গত বছর চুক্তিটি প্রত্যাহার করে এবং নিষেধাজ্ঞাও জারি করে। যার ফলে ইরান আবারো অর্থনৈতিক মন্দার সম্মুখীন হয় এবং তার মুদ্রার মান হ্রাস পায়। ট্রাম্প বলেন, ‘যদি ইরান একটি সমৃদ্ধ জাতি হতে চায়... তবে সেটি আমার কাছে ঠিক আছে। কিন্তু, তারা তা কখনোই হতে পারবে না যদি না তারা পাঁচ-ছয় বছর ধরে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে থাকে।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট আবার টুইট করে দেশটির ওপর ‘বাড়তি কঠোর নিষেধাজ্ঞা’ জারির ঘোষণা দেন, যা সোমবার থেকে কার্যকর হবে। গত বছর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ফলে ইরানের বিশেষ করে জ্বালানী, শিপিং এবং আর্থিক খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। বিদেশী বিনিয়োগ কমে যায় ও তেল রপ্তানি বাধাগ্রস্ত হয়। নিষেধাজ্ঞার কারণে মার্কিন কোম্পানিগুলো দেশটির সাথে বাণিজ্য থেকে বিরত থাকলেও অন্যান্য দেশের কোম্পানিগুলো সম্পর্ক বজায় রেখেছিল। এর ফলে বিদেশ থেকে আমদানি করা পণ্যের ঘাটতি দেখা যায়, বিশেষ করে প্রভাব পরে শিশুদের ব্যবহার্য দ্রব্যে। স্থানীয় মুদ্রার দাম পড়ে যাওয়ায় দেশে উৎপাদিত খাদ্যে প্রভাব পড়ে, দাম বেড়ে যায় মাংস বা ডিমের মতো খাদ্য সামগ্রীর। দুইটি দেশের মধ্যের উত্তেজনা যখন ক্রমশই বাড়ছিল ঠিক তখনই মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই নিষেধাজ্ঞার ঘোষণাটি এল। আকাশসীমা লঙ্ঘন করার অভিযোগে ইরান গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের একটি ড্রোনকে গুলি করে নামিয়ে দিয়েছিল। ইরানের ইসলামিক রেভ্যুলশোনারি গার্ড কর্পস বা আইআরজিসি বলছে, এই ড্রোন ভূপাতিত করার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রকে ‘পরিষ্কার’ বার্তা পাঠানো হলো যে ইরানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করা যাবে না। তবে মার্কিন সামরিক কর্তৃপক্ষের দাবি, মানুষবিহীন ঐ উড়োজাহাজটি হরমুজ প্রণালীতে আন্তর্জাতিক সীমানাতেই ছিল। তারপর থেকেই দুটো দেশের মধ্যে সামরিক উত্তেজনা তৈরি হতে থাকে। আইআরজিসি’র উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা আমির আলি হাজিজাদেহ বলেন, ‘৩৫ জনকে বহনকারী একটি সামরিক বিমান সেসময় ঐ ড্রোনের খুব কাছেই ছিল, যেটিকে আমরা সহজেই গুলি করতে পারতাম। কিন্তু তা আমরা করিনি।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সেসময় বলেছিলেন, তিনি ইরানের সাথে যুদ্ধ চান না, কিন্তু সংঘাত বেধে গেলে, ইরানকে ‘নিশ্চিহ্ন’ করে দেওয়া হবে। তথ্যসূত্র: বিবিসি এমএইচ/    

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি