ঢাকা, ২০১৯-০৬-১৯ ১:১১:৫৫, বুধবার

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে এক বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। গত শুক্রবার স্থানীয় সময় রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বাংলাদেশির নাম জয়নুল ইসলাম। তার বাড়ি মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের কাজীবন্ধ গ্রামে। জয়নুল ইসলাম মিশিগানের ডেট্রয়েটের কাশ্মীর স্ট্রিটে পরিবারসহ বসবাস করতেন। তিনি পেশায় একজন ট্যাক্সিচালক ছিলেন। নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তারাবির নামাজ পড়ে ট্যাক্সিক্যাব নিয়ে বের হওয়ার পর শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক দেড়টা থেকে ৩টার মধ্যে সন্ত্রাসী হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন জয়নুল ইসলাম। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, অপরাধীকে শনাক্ত করার জোর প্রচেষ্টা চলছে। সন্ত্রাসীর গুলিতে জয়নুল ইসলামের নিহত হওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশি কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
লন্ডনে ছুরিকাঘাতে বাঙালি যুবক নিহত

যুক্তরাজ্যের পূর্ব লন্ডনের বাঙালি অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসে ছুরিকাঘাতে এক বাঙালি যুবক নিহত হয়েছে। লন্ডন মেট পুলিশ জানিয়েছে, ২৩ বছর বয়সী ঐ যুবক রোববার রাতে হাসপাতালে মারা যায়। নিহত যুবকের নাম আলীমুজ্জামান আলিম বলে জানিয়েছেন টাওয়ার হ্যামলেটসের সাবেক কাউন্সিলর খালেস উদ্দিন। নিহত যুবকের বাড়ি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর থানার জয়দা গ্রামে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। রোববার সাড়ে ৪টায় সময় পূর্ব লন্ডনের মাইলএন্ডের সেন্টপল ওয়েতে। স্যোশাল মিডিয়ায় একটি ভিডিওতে দেখা যায় সেন্টপল ওয়ে স্কুলের সামনের রাস্তায় এক যুবক রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। তাকে বাঁচাতে অন্যান্য যুবকরা প্রাণপণ চেস্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এদিকে মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, ওই সময় দুই যুবক ছুরিকাঘাত হয়। অপর যুবকের বয়স ২০ থেকে ৩০ এর মধ্যে। তবে সে আশঙ্কামুক্ত। লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। সাবেক কাউন্সিলর ওহিদ আহমেদ জানান, টাওয়ার হযামলেটস কাউন্সিলের পুলিশ সংখ্যা কমানো, ইয়ুথ সার্ভিস বাতিল করার প্রশাসনের অবহেলার কারণে বাঙালি অধ্যূষিত এলাকা একের পর এক ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটছে। কেআই/

মালয়েশিয়ায় হাইকমিশন কর্মকর্তাদের ইফতার মাহফিল

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনে কর্মরত অফিস স্টাফদের আয়োজনে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার রাজধানী কুয়ালালামপুরের আম্পাং এলাকার মসজিদ আল-মোস্তাকিমে এ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ইফতার মাহফিলে সমগ্র বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়। আয়োজকরা উপস্থিত অতিথি ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের ধন্যবাদ জানান ও সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন। এ সময় ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন, মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের শ্রম শাখার প্রথম সচিব মো: হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল, ২য় সচিব ফরিদ আহমদ। এছাড়া আয়োজকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মো. আরিফুল ইসলাম, মো. হেলাল, তারিক আহমেদ, সোহরাব হোসেন, তোফায়েল আহমেদ, তরিকুল ইসলাম, মো. হায়দার ইসলাম, মো. জাহাঙ্গির আলম, সাইফুল ইসলাম, সাজ্জাদুর রহমান, আশরাফুল ইসলাম, মো. মোকসেদ আলী, মাহমুদ, ওয়াহীদুজ্জামান চৌধূরী, আলী আহসান চৌধূরী প্রমুখ। এনএম/কেআই

মালয়েশিয়ায় বিষাক্ত গ্যাসে এক বাংলাদেশির মৃত্যু

মালয়েশিয়ায় বিষাক্ত গ্যাসে এক বাংলাদেশির মৃত্যু ও অপর দু’জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শনিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, মালয়েশিয়ার ইপোর লুমুট নামক মহাসড়কের পেট্রল স্টেশনের সামনে তিনটি ম্যানহোলের  ভেতরে রক্ষণাবেক্ষণ কাজ করছিল। এ সময় ম্যানহোল থেকে বিষাক্ত গ্যাসের ইনসেলিংয়ের কারণে এক বাংলাদেশি নিহত ও অপর দু’জন আহত হয়েছে। মেরু রায় ফায়ার ও রেসকিউ ডিপার্টমেন্ট স্টেশন প্রধান শাহরুদি মহম্মদ হালিল জানান,আহত দু’জনের মধ্যে একজন স্থানীয় ও অন্যজন বাংলাদেশি। আহতদের রাজা পারমাইসুরি বাইনুন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি বলেন, তিনটি ভূগর্ভস্থ গ্যাস পাইপের ম্যানহোলের রক্ষণাবেক্ষণের কাজ চলার সময় এ ঘটনা ঘটে। দেশটির সরকারি সংবাদ সংস্থা বার্নামা ও স্টার অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, সিকিউরিটি গার্ডের ফোন পাওয়ার ৫ মিনিটের মধ্যে দমকল ও উদ্ধারকর্মীরা পৌঁছানোর আগেই জনসাধারণ সবাইকে উদ্ধার করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহত ও আহতদের নাম জানা যায়নি। কেআই/

মালয়েশিয়ায় বৃহত্তর যশোর জেলা সমিতির ইফতার

প্রবাসীদের কল্যাণে গঠিত বৃহত্তর যশোর জেলা কল্যাণ সমিতি মালয়েশিয়ার উদ্যোগে প্রতিবারের ন্যায় এবারও ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কুয়ালালামপুরে বুকিত বিনতাং-এর আরাবেল্লা রেষ্টুরেন্টে এই ইফতার মাহফিলের আয়োজন হয়। যশোর,ঝিনাইদহ,মাগুরাসহ এর আশপাশের কয়েকটি জেলার প্রবাসীদের সমন্বয়ে গঠিত এ সমিতির সভাপতি জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লে: কর্ণেল (অব:) রেজাউল আলম। প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক শেখ আরিফুজ্জামান ও সহসাধারণ সম্পাদক মুস্তাক আহমেদের সঞ্চালনায় এবং হাফেজ মাওলানা মুফতি আবু তাহেরের পবিত্র কোরআন তেলওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। এসময় বক্তারা বলেন, বৃহত্তর যশোর জেলা কল্যাণ সমিতি মালয়েশিয়ায় কর্মরত শ্রমিকদের পাশে থেকে কাজ করে যেতে চায়। তাই সমিতির কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে মালয়েশিয়াতে যাতে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে সেজন্য সকলকে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দ। এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, সমিতির উপদেষ্টা সৈয়দ জাকিরুল হক, শাহিনুর রহমান সাংগঠনিক সম্পাদক, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান, ইঞ্জিনিয়ার সুলতানুর রেজা, কামরুজ্জামান প্রমুখ। ইফতার ও দোয়া মাহফিলের অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, ব্যবসায়ী আলহাজ্ব মকবুল হোসেন মুকুল, এসকে সেন্টু, মিনারুল, আবু সাঈদ, বিল্লাল হোসেন, মাসুম, মো. আব্দুল হালিম প্রমুখ ছাড়াও মালয়েশিয়ার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ ও মালয়েশিয়ায় অবস্থিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া, বরিশাল, চাঁদপুর, বিক্রমপুর, মাদারিপুর, গোপালগঞ্জ ও শরীয়তপুর সমিতির নেতৃবৃন্দ। কেআই/

বেঁচে যাওয়া আরো ৩ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন

তিউনিসিয়ার উপকূল সংলগ্ন ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি থেকে বেঁচে যাওয়া আরও তিন ভাগ্যবান বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। তারা হলেন- সিলেটের মাহফুজ আহাম্মেদ ও বিল্লাল আহাম্মেদ এবং কিশোরগঞ্জের বাহাদুর। শুক্রবার  ভোরে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের টিকে-৭১২ ফ্লাইট যোগে তারা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তারা এখন বিমানবন্দর ইমিগ্রেশনে রয়েছেন। অভিবাসন প্রক্রিয়া সম্পন্ন না হওয়ায় তাদের বিমানবন্দরে রেখেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জিজ্ঞাসাবাদ করবে বলে জানানো হয়েছে। এ দিকে জীবিত উদ্ধার হওয়া ১৪ বাংলাদেশির মধ্যে চারজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর আগে নৌকাডুবি থেকে বেঁচে ২১ মে দেশে ফিরেন ১৫ বাংলাদেশি। জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইএমও) তত্ত্বাবধানে ও রেড ক্রিসেন্টের সহযোগিতায় দেশে ফিরেন তারা। এমএইচ/

আয়ারল্যান্ডের জাতীয় নির্বাচনে লড়ছেন বাংলাদেশের তালুকদার (ভিডিও)

আয়ারল্যান্ডের জাতীয় নির্বাচনে প্রথম অভিবাসী হিসেবে লড়ছেন বাংলাদেশের আজাদ তালুকদার। লিমেরিক ওয়েস্ট শহরে কাউন্সিলর পদে তার প্রতিদ্বন্দ্বী আরো ৭ জন। শেষ মুহুর্তে নির্বাচনী প্রচারণায় আজাদ তালুকদার জানান, জয়ী হলে আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশের দূতাবাস খুলতে  উদ্যোগ নেবেন। তিনি বলেন, ভারতে গিয়ে আর বাংলাদেশিদের ভিসা নিতে হবে না। তবে শুধু অভিবাসীই নয় সবার জন্য কাজ করারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। গাজীপুরের সন্তান ৫০ বছর বয়সী আজাদ তালুকদার একজন সফল ব্যবসায়ী। ২০০০ সালে আয়ারল্যান্ডে যান তিনি। ৪ বছরের মাথায় যোগ দেন ফিয়ান্না ফেইল দলে। ২৪ মে লিমেরিক সিটি কাউন্সিলর নির্বাচনে তিনি লড়বেন এই দলের প্রার্থী হিসেবে। বিস্তারিত দেখুন ভিডিওতে : এসএ/  

ইফতার করিয়ে গিনেস বুকে হিন্দু শিল্পপতি

ইফতার করিয়ে গিনেস বুকে নাম লেখালেন হিন্দু শিল্পপত। প্রায় এক কিলোমিটার দীর্ঘ লাইনের মানুষকে ইফতার করিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়েন এই শিল্পপতি। এতে কোন জায়গা ফাঁকা ছিলনা।  জগিন্দর সিং সালারিয়া নামের ভারতীয় ওই ব্যক্তি দুবাইয়ের একজন বড় শিল্পপতি। তিনি ‘পিসিটি হিউম্যানিটি’ নামক একটি দাতব্য সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা। কাতারে গরীব মুসলিমদের জন্য বিনামূল্যে তিনি এ ইফতারের ব্যবস্থা করেন। যেখানে ৭ প্রকারের খাবার ছিল। তার এ মহৎ উদ্যোগ গিনেস বুকের ‘লংগেস্ট লাইন অব হাঙ্গার রিলিফ প্যাকেজ’ রেকর্ডে জায়গা করে নেয়। গত শনিবার নিজের কোম্পানির সামনে ইফতার প্রদান করে এই রেকর্ড গড়েন বলে জানিয়েছে গালফ নিউজ ও দ্য হিন্দু। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি জানিয়েছেন, দুবাই ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক এলাকায় অবস্থিত তার নিজের কোম্পানি পেহাল ইন্টারন্যাশনালের সামনে প্রতিদিন দরিদ্র মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ করেন তিনি। চলমান সেই প্রক্রিয়ার অংশ এই বিশ্ব রেকর্ড। এতে আরও বলা হয়েছে, কোন স্বার্ধ অথবা রেকর্ডের জন্য নয় শুধুমাত্র দরিদ্র মানুষদের মুখে হাসি ফুটাতেই তার এ উদ্যোগ। মার্কিন টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব ডগলাস পালাউ এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। সূত্রঃ দ্যা হিন্দু আই/কেআই

যুক্তরাজ্যে ফটিকছড়ি কমিউনিটির ইফতার মাহফিল

যুক্তরাজ্যে ফটিকছড়ি কমিউনিটি ইউকের উদ্যেগে  ইফতার এবং দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত রোববার পূর্ব লন্ডনের ফিস্ট এন্ড মিস্টি রেস্টুরেন্টে এ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ইসহাক চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা পরিচালনা করেন সাংবাদিক সরওয়ার হোসেন। এসময় বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি নেতা আকতারুল আলম,ব্যারিস্টার আলী রেজা, কাজী মোহাম্মদ ফয়েজুল আলম, অনুপম সাহা, মাসুদুর রহমান, ব্যারিস্টার গনি উল্লাহ, ব্যারিস্টার আব্বাস উদ্দিন, মোহাম্মদ জব্বার, আরিফ সোবহান, সৈয়দ রাসেল, আজমল করিম, মোহাম্মদ আলী তালুকদার, মোহাম্মদ আলম চৌধুরী প্রমুখ। সভায় সংগঠনের বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এছাড়া আগামী ১৫ জুন ইদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এনএম/ কেআই

যুক্তরাষ্ট্রে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

যুক্তরাষ্ট্রে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ কন্যা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩৯তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়েছে। গত ১৭ মে সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওযামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ এমপি। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহাবুব রহমানের  সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের পরিচলনায় সমাবেশে জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্থ্য আর দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয । এরপর দোয়া পরিচলনা করেন মাওলানা সাইফুল সিদ্দীক। সভায় বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সামসুদ্দীন আজাদ, লুৎফর করিম, যুগ্ম সম্পাদক আইরীন পারভীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, কোষাধ্যক্ষ আবুল মনসুর খান, মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম, প্রবাসী কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক সোলয়মান আলী, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, সহ দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মালেক, নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল ও সহ সভাপতি শেখ আতিক, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদ চৌধুরী, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন বাবু, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কার্যকরী সামছুল আবেদিন, আলী গজনবী, আব্দুল হামিদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সভায় ড. আবদুস সোবহান গোলাপ বলেন, ১৯৮১ সালে ১৭ মে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে না ফিরলে আজকের বাংলাদেশ হতো না। জননেত্রীর নেতৃত্বে  বাংলাদেশ ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের চরম সঙ্কটে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে আওয়ামী লীগের হাল ধরেছিলেন। শেখ হাসিনা দেশে ফিরে আসেন বলেই ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হত্যার বিচার হয়েছে। তিনি  বলেন, বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করেই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিকে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগে সকল নেতা-কর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে আশাতীত সাফল্য অর্জিত হয়েছে। তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ একদিন আমেরিকার মতো উন্নত-আধুনিক রাষ্ট্রে পরিণত হবে।  সভায় বক্তারা স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ আর দলের এক ক্রান্তিকালে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশে ফিরে আওয়ামী লীগের হাল ধরে জাতি আর মুজিব সৈনিকদের ঐক্যবদ্ধ করেছেন। তিনি দেশে না ফিরলে আওয়ামী লীগ বিভক্ত হয়ে যেতো, আওয়ামী লীগ আর ক্ষতায় ফিরে আসতে পারতো না। বক্তারা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার ফলেই বঙ্গবন্ধু হত্যাসহ সকল হত্যার বিচার হচ্ছে। দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে দাঁড়িয়েছে। বক্তারা বিএনপি-জামায়াত-শিবিরের ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় সবাইকে সজাগ থাকারও আহ্বান জানান। সভায বক্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়্যু কামনা করে বলেন, তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশের উন্নয়ন আর গনতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করে সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করতে হবে।সমাবেশে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ইতিহাসের নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। এসময় বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভূ-লুণ্ঠিত করে বাঙালি জাতির অস্তিত্বকে বিপন্ন করতে নানামুখী ষড়যন্ত্র শুরু করে ঘাতকগোষ্ঠী। ঠিক এমনি ক্রান্তিলগ্নে ১৯৮১ সালের ১৪, ১৫, ও ১৬ ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার অনুপস্থিতিতে তাকে সংগঠনের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। সামরিক জান্তা জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের সব ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। কিন্তু সামরিক শাসকদের রক্তচক্ষু ও নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ১৯৮১ সালের ১৭ মে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন শেখ হাসিনা। কেআই/

সৌদি প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স উন্নয়নে অবদান রাখছে

সৌদি প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স বাংলাদেশের মানুষের উন্নয়নে সবচেয়ে বড় অবদান রাখছে বলে মন্তব্য করেছেন জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল এফ এম বোরহান উদ্দিন। শনিবার সৌদি আরব এর জেদ্দায় বৃহত্তর চট্টগ্রাম সমিতির জেদ্দা কতৃক আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিল প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের আমলে বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়েছে আর এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে প্রবাসীদের বৈধ পথে রেমিটেন্স পাঠানোর আহ্বান জানান তিনি। কনসাল জেনারেল বোরহান উদ্দিন প্রবাসীদের ওয়েজ অনার্স কল্যাণ বোর্ডের সদস্য হবার পাশাপাশি প্রবাসীদের জন্য সরকার যে ‘ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড’  দিয়েছে সোনালি ব্যাংক শাখা থেকে ক্রয় করে ভবিষ্যতে জন্য বিনিয়োগ করার কথাও বলেন তিনি।  ইফতারের আগে পবিত্র কোরআন থেকে তেলায়াত এবং সিয়াম সাধনার উপর রোজার গুরুত্ব, ফজিলতসহ রোজা কায়েম করার বিষয়ে বয়ান করা হয়। পরবর্তীতে বাংলাদেশের সুখ শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়। জেদ্দার হোটেল এলিটে বিশিষ্টজন,বৃহত্তর চট্টগ্রাম প্রবাসী নাগরিকদের নিয়ে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলের সভাপতিত্ব করেন বৃহত্তর চট্টগ্রাম সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মঈন চৌধুরী। ইফতার মাহফিল বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব এম এ সালামের সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর চট্টগ্রাম সমিতির প্রধান উপদেষ্টা মোহাম্মদ আয়ুব, দেলোয়ার হোসেন,ক.ম.জসিম। অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতা ও বাস্তবায়নে ছিলেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিয়া মোহাম্মদ তারেক, আহ্বায়ক কামাল উদ্দিন, ইলিয়াস হোসেনসহ আরও অনেকে। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন, জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, বিভিন্ন কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ও বৃহত্তর চট্টগ্রাম সমিতির সকল সদস্যবৃন্দ। কেআই/            

সৌদি প্রবাসীরা পাচ্ছেন স্থায়ী বসবাসের সুযোগ

প্রবাসীদের জন্য সৌদি আরব সম্প্রতি স্থায়ী বা অস্থায়ী ভিত্তিতে রেসিডেন্ট পারমিট দেয়ার বিধান রেখে একটি আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে। প্রস্তাবিত এ আইন অনুযায়ী একজন বিদেশী নাগরিক নির্ধারিত ফি দিয়ে সৌদি আরবে বসবাস, কাজ, ব্যবসা ও নিজের সম্পদ তৈরি করতে পারবেন। একই সাথে প্রবাসীদের জন্য এখন যে স্থানীয় স্পন্সর দরকার হয়, এ আইনের আওতায় যারা স্থায়ী বা অস্থায়ী রেসিডেন্ট পারমিট পাবেন, তাদের আর সেই ধরণের স্পন্সরের দরকার হবে না। আরব নিউজ পত্রিকা দেশটির সরকারী কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে বলছে, চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য দেশটির মন্ত্রিসভায় যাবে আইনের খসড়া। এই রেসিডেন্সি পারমিটে পারিবারিক অবস্থাও অন্তর্ভূক্ত থাকবে যেন এই কার্ডধারী ব্যক্তি তার স্বজনদের জন্য ভ্রমণ ভিসা ইস্যু করতে পারেন। রেসিডেন্সি পারমিটটি দুই পদ্ধতিতে হবে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে একবারে দেয়া হবে যা আর নবায়ন করতে হবে না এবং অন্য পদ্ধতি হচ্ছে প্রতি বছর এটি নবায়ন করতে হবে। নতুন প্রিভিলেজড ইকামা পারমিটের জন্য প্রবাসীদের একটি বৈধ পাসপোর্ট, ভালো ক্রেডিট রিপোর্ট, স্বাস্থ্য প্রতিবেদন এবং পুলিশ ক্লিয়ারেন্স রিপোর্টের প্রয়োজন হবে। সৌদিতে কাজ করছেন এবং সেখানে বসবাস করছেন প্রায় ১ কোটি বিদেশি নাগরিক। বর্তমানে স্পন্সরশিপভিত্তিক যে ব্যবস্থা চালু আছে তাতে একজন সৌদি চাকরিদাতা স্পন্সর হতে রাজি হলে তবেই সৌদি আরবে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে বসবাসের সুযোগ হয় বা সৌদি ছাড়ার অনুমতি পাওয়া যায়। কিন্তু নতুন এই প্রক্রিয়ায় স্পন্সরের অনুমতি ছাড়াই সৌদিতে যাওয়া আসার সুবিধা ভোগ করতে পারবেন দক্ষ প্রবাসীরা। আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি