ঢাকা, ২০১৯-০৫-২৩ ১৫:৫০:১৭, বৃহস্পতিবার

বঙ্গবন্ধু দেশের জন্য জীবন উৎসর্গ করে গেছেন:শেখ হেলাল

বঙ্গবন্ধু দেশের জন্য জীবন উৎসর্গ করে গেছেন:শেখ হেলাল

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি বলেছেন, আপনারা জাতির পিতা জাতির জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেন বলেই বাংলাদেশের গ্রামেগঞ্জে আওয়ামী লীগের ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। এই ঘাঁটিকে টিকিয়ে রাখতে হবে। তাই দলমত নির্বিশেষে দেশ ও জাতির উন্নয়নের স্বার্থে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে একযোগে কাজ করতে হবে। সোমবার দুপুরে বাগেরহাট জেলা পরিষদের অডিটরিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় তিনি এ কথা বলেন। দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অক্টোবরে জাতীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যেই ওয়ার্ড, থানা ও মহানগরের সম্মেলন শেষ করতে হবে। সেভাবেই সকলকে প্রস্তুতি নিতে হবে। শহরের জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টচার্য। বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. মোজাম্মেল হোসেন এমপির সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, কেন্দ্রীয় নেতা এস এম কামাল হোসেন, এ্যাড. আমিরুল আলম মিলন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এ্যাড. মীর শওকাত আলী বাদশা, পারভীন জামান কল্পনা প্রমুখ। এসময়ে জেলার সকল পৌরসভা, থানা, ওয়ার্ড ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও দলীয় কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা বলেন, দলমত নির্বিশেষে দেশ ও জাতির উন্নয়নের স্বার্থে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে একযোগে কাজ করতে হবে। অক্টোবরে জাতীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যেই ওয়ার্ড, থানা ও মহানগরের সম্মেলন শেষ করতে হবে। সেভাবেই সকলকে প্রস্তুতি নিতে হবে। কেআই/  
গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষকে ছাড় নয়: হাইকোর্ট

পা হারনো রাসেলকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিষয়ে নির্দেশের পরও গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষের আচরণ নেতিবাচক। তবে এ ব্যাপারে কোনও ছাড় দেওয়া হবে না জানিয়ে আগামী ২৫ জুন পরবর্তী আদেশের তারিখ নির্ধারণ করেছেন হাইকোর্ট। বুধবার এ বিষয়ে আদেশ দেন বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাই কোর্ট বেঞ্চ। গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষ গত ১০ এপ্রিল রাসেল সরকারকে পাঁচ লাখ টাকার চেক দেয় । একই সঙ্গে বাকি ৪৫ লাখ টাকা দিতে ২২ মে পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিল আদালত। উল্লেখ্য, গত বছরের ২৮ এপ্রিল মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারে কথা কাটাকাটির জেরে গ্রিন লাইন পরিবহনের বাসচালক ক্ষিপ্ত হয়ে প্রাইভেট কার চালকের ওপর দিয়েই বাস চালিয়ে দেন। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাইভেট কার চালক রাসেল সরকারের (২৩) বাম পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এমএইচ/

মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা মানছে না জেলেরা (ভিডিও)

জীব বৈচিত্র্য রক্ষায় বঙ্গোপসাগরে ৬৫ দিন সব ধরনের মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা মানছেনা জেলেরা। তারা বলছে, পাশের দেশ ভারতে মাত্র ২৬ দিনের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেখানে বাংলাদেশে এতো দীর্ঘ সময় অযৌক্তিক। আর মৎস্য কর্মকর্তারা বলছেন, সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ সুরক্ষার জন্যই ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা। মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের গবেষণা বলছে, মে মাসের শেষের দিক থেকে জুলাই পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরে মাছসহ বিভিন্ন সামুদ্রিক প্রাণির প্রজননকাল। জাটকা নিধনে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সফলতা অনুসরণ করে প্রথমবারের মতো সমুদ্রের প্রাণিজ সম্পদ ভাণ্ডারের সুরক্ষায় নিষেধাজ্ঞার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। নিষেধাজ্ঞার ৬৫ দিন বঙ্গোপসাগরের কোনও স্থানেই যান্ত্রিক কিংবা ডিঙি নৌকা দিয়ে মাছ ধরা যাবে না। তবে এই নিষেধাজ্ঞা মানতে নারাজ জেলেরা। তারা নিয়মিত মাছ ধরছে এবং বাজারজাতও করছে। ফিশিং বোর্ড মালিক সমিতিও বলছেন, এই নিষেধাজ্ঞা মেনে চলা জেলেদের পক্ষে সম্ভব নয়। তবে প্রজ্ঞাপন জারির পর কক্সবাজারের কিছু কিছু অংশে জেলেরা ফিশিং ট্রলার উপকূলে ফেরত এনেছে।

নারী নির্যাতনকারীদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনতে হবে:নাসিম

নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বর্তমান সরকার জঙ্গী দমন করেছে,মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছে,সেখানে এদেশে নারী নির্যাতন শিশু ধর্ষন চলতে পারেনা। বিশেষ ট্রাইবুনাল করে বিচারের মাধ্যমে তাদের ফাঁসি দিতে হবে। তবেই এদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন ধর্ষন বন্ধ হবে। মঙ্গলবার বিকেলে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে ১০ কোটি ৭৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ট্রমা সেন্টার নির্মান কাজ এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপ কালে এসব কথা বলেন তিনি। মোহাম্মদ নাসিম তাড়াশের কলেজ ছাত্রী রুপা ধর্ষন ও হত্যা ঘটনার উল্লেখ করে বলেন, ধর্ষনের একমাত্র শাস্তি হওয়া উচিৎ মৃত্যুদন্ড। যারা ঘটনার স্বীকার করবে শুধু দ্রুত বিচার নিশ্চিত করে তাদের ফাঁসি দিতে হবে। তা ছাড়া এ অপরাধ কমানো সম্ভব না। এই খুনী কোন ভাবেই রেহাই দেয়া সম্ভব না। তাহলেই বর্তমান সরকারের সুনাম হবে। এসময় সিরাজগঞ্জের স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল হামিদ, সিরাজগঞ্জ চেম্বারের প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সুর্য্য, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে প্রকল্পটি ১৮ মাসের মধ্যে সমাপ্ত হবে বলে এক মতবিনিময় সভায় জানানো হয়। কেআই/ 

শার্শায় স্বর্ণ আত্মসাতের ঘটনায় ৩ পুলিশ গ্রেফতার 

ভারতে পাচার করার সময় দুই স্বর্ণ বহনকারীকে ৮টি বারসহ আটক করে তাদের কাছ থেকে স্বর্ণ আত্মসাত করে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগে যশোরের শার্শায় তিন পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  মঙ্গলবার সকালে তাদের যশোর আদালতে চালান দেওয়া হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে শার্শার বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়োজিত এ.এস.আই তবিবুর রহমান, এ.এস.আই রঞ্জন কুমার মৈত্র ও কনস্টেবল তুষার সরকার। পুলিশ জানায়, গত রোববার সন্ধ্যার দিকে শার্শার জামতলা প্রাইমারী স্কুলের পাশ থেকে দুই স্বর্ণ চোরাচালানি সাজেদুর রহমান ও আক্তার হোসেনকে বেনাপোল পোর্ট থানার এ.এস.আই তবিবুর, এএসআই রঞ্জন ও কনস্টেবল তুষার আটক করে। পরে তাদের কাছ থেকে ৮টি স্বর্ণের বার রেখে দেয় তারা। তাদের ক্যাম্পে না এনে গোপনে ছেড়ে দেয়। স্বর্ণ আটকের কোন তথ্যও তারা ক্যাম্প ইনচার্জকে অবহিত না করে নিজেদের কাছে রেখে দেয়। সোমবার এ ঘটনা জানাজানি হলে দুপুরের দিকে ওই তিন পুলিশ সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ঘটনার কথা স্বীকার করেন। পরে তাদের কাছ থেকে স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি পুলিশের উর্ধতন মহলে জানানোর পর সোমবার বিকালে তাদের তদন্ত কেন্দ্র থেকে শার্শা থানায় আনা হয়। রাতেই তাদের বিরুদ্ধে ও স্বর্ণ চোরাচালানীদের বিরুদ্ধে দুইটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয় শার্শা থানায়। মামলা নং-২৫ ও ২৬। এর পরই তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়।  শার্শার বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ পরিদর্শক (এসআই) সুখদেব ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, অভিযুক্তরা বিষয়টি আমাকে না জানিয়ে নিজেরাই এ কাজ করেছে। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাদের শার্শা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে শার্শা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ তাসমিম আলম জানান, এ ঘটনায় সোমবার রাতে থানায় দুইটি পৃথক মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত তিন পুলিশ সদস্যকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। কেআই/

কলারোয়া ইসলামী ব্যাংকের  ইফতার মাহফিল

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটিড কলারোয়া শাখার উদ্যোগে ‘তাকওয়া অর্জনে মাহে রমজানের ভুমিকা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে কলারোয়া ইসলামী ব্যাংক শাখা ভবনে এ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামী ব্যাংকের এফএভিপি ও শাখা প্রধান শেখ তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ইফতার পূর্ব এ আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আর এম সেলিম শাহনেওয়াজ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন-কলারোয়া সরকারী কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর আবু নসর, যশোরের বেনাপোল ইসলামী ব্যাংক শাখার এসএভিপি ও শাখা প্রধান আবুল হোসেন। তাকওয়া অর্জনে মাহে রমজানের ভুমিকা শীর্ষক বিষয়ে প্রধান আলোচক হিসেবে আলোচনা করেন মাওলানা কামরুল ইসলাম। এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলোওয়াত করেন ব্যাংকের সহকারী অফিসার আবুল হোসেন। ইসলামী সংগীত পরিবেশন করেন জুনিয়ার অফিসার আবুল হোসেন মারুফ, আহসান হাবীব, আবু বকর সিদ্দিক, আব্দুল খালেক। এছাড়া অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-কলারোয়া আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মুহা.আইয়ুব আলীসহ সকল অতিথিবৃন্দ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ইসলামী ব্যাংকের অফিসার শামছুল হক। কেআই/  

ভুল চিকিৎসায় বশেমুরবিপ্রবি`র শিক্ষার্থীর জীবন সংকটাপন্ন

  গোপালগঞ্জের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নার্সের ভুল চিকিৎসায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মরিয়ম সুলতানা মুন্নীর (২০) জীবন সংকটাপন্ন। মরিয়ম সুলতানা মুন্নী গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলিয়া গ্রামের মোঃ মোশারফ হোসেনের মেয়ে। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, পিত্তথলিতে পাথর জনিত সমস্যায় সোমবার রাতে মরিয়মকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার সকালে তাকে অস্ত্রোপচার করার জন্য অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত নার্স শাহনাজ পারভিন গ্যাসের ইনজেকশনের বদলে এসেনথেসিয়া ইনজেকশন প্রয়োগ করে। ভুল ইনজেকশন প্রয়োগে মরিয়ম সঙ্গে সঙ্গে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরিস্থিতি অবনতি দেখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দ্রুত বোর্ড গঠন করে উন্নত চিকিৎসার জন্য মরিয়মকে খুলনার শহিদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে তাকে নিবিড় পরিচর্চা কেন্দ্র (আইসিইউ)-তে রাখা হয়েছে। মরিয়মের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে উল্ল্যেখ করেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীর স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন,মরিয়মকে ভুল চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আমরা অভিযুক্ত নার্সের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। গোপালগঞ্জের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের উপপরিচালক ড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত। আশা করি,মেয়েটি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে। ইতিমধ্যে শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ড. মাসুদুর রহমানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে তিন দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। ওই নার্স দোষী হলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ কেআই/ 

ভুল ইনজেকশনে মৃত্যুরমুখে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী

ভুল ইনজেকশন পুশ করায় মৃত্যুরমুখে পড়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) এক ছাত্রী। অসুস্থ শিক্ষার্থীরা নাম মরিয়ম সুলতানা মুন্নি। সে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী এবং গোপালগঞ্জ সদরের চন্দ্রদিঘলিয়া গ্রামের মোশারফ বিশ্বাসের মেয়ে। আজ সকালে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। মেয়েটির অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত তাকে খুলনার শেখ আবু নাসের হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বেশকিছু দিন থেকে ওই শিক্ষার্থী পিত্তথলিজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক আব্দুল মতিনের তত্ত্বাবধানে একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. তপন মন্ডলের কাছে চিকিৎসা নিয়ে আসছিলেন মুন্নি। গেল সোমবার রাতে হঠাৎ হাসপাতালে মুন্নির পোস্ট এনেস্থেটিক একটিভিটি সম্পন্ন করা হয়। আজ সকালে তার অপারেশন করার কথা ছিল। সে অনুযায়ী হাসপাতালের ফিমেল ওয়ার্ডের সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহনাজ সকালে রোগীর ফাইল না দেখে গ্যাসট্রাইটিসের ইনজেকশন সারজেলের পরিবর্তে অ্যানেস্থেসিয়ার (অজ্ঞান কারার) ইনজেকশন সারভেক ওই রোগীর শরীরে পুশ করেন। এতেই বিপত্তি ঘটে। ইনজেকশন পুশ করা মাত্রই অজ্ঞান হয়ে পড়ে মুন্নি। দীর্ঘক্ষণ জ্ঞান না ফেরায় অবস্থা সংকটাপন্ন হলে দ্রুত তাকে খুলনায় প্রেরণ করা হয়। এ ব্যাপারে শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও মুন্নির চিকিৎসক তপন মন্ডল বলেন, নার্স ভুল ইনজেকশন পুশ করার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। ইনজেকশন দেয়ার আগে রোগির ফাইল ভালো করে চেক করে নেওয়ার কথা থাকলেও সেটা না করেই ইনজেকশন পুশ করায় এমনটা হয়েছে বলে জানান তারা। এদিকে, এ ঘটনায় দায়িত্বরত নার্সের ত্রুটি ও অবহেলা ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।   আই// এসএইচ/  

কুষ্টিয়ায় বাউল আশ্রম দখলের পাঁয়তারা (ভিডিও)

কুষ্টিয়ায় বাউল আশ্রম দখলের পাঁয়তারা কুষ্টিয়ার খোকসায় একটি বাউল আশ্রম দখলের পাঁয়তারা করছে প্রভাবশালীরা। এরিমধ্যে ওই আশ্রমের দুটি সমাধি ভেঙে ফেলেছে তারা। এ ঘটনায় ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এতে উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে আশ্রমের বাউলদের। খোকসা উপজেলার জয়ন্তি হাজরা ইউনিয়নের ভবানীগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দা রূপ কুমার, স্থানীয়দের কাছে যিনি রূপ পাগল নামে পরিচিতি। যুবক বয়সে তিনি বাউল স¤্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের অনুসারী হিসেবে দীক্ষা নেন। পরে পৈত্রিক জমিতে নিজ নামে গড়ে তোলেন বাউল আশ্রম। রূপের বাবা-মা মারা গেলে ওই আশ্রমের আঙ্গিনায় তাদের সমাহিত করা হয়। রূপ কুমারের মৃত্যুর পর তার অনুসারীরা এ আশ্রম পরিচালনা করে আসছেন। সম্প্রতি এলাকার একটি প্রভাবশালী চক্র আশ্রমের জমি দখলে উঠে পড়ে লেগেছে। এরিমধ্যে আশ্রম আঙ্গিনায় থাকা রূপ কুমারের বাবা মার সমাধী ভেঙে ফেলেছে তারা। এ ঘটনায় উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে আশ্রমের ভক্তদের। আশ্রম কমিটির পক্ষ থেকে মামলা করার পর দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  

লক্ষীপুরে বেড়েই চলেছে শিশু শ্রম (ভিডিও)

সংসারে অভাব অনটনের কারণে বাধ্য হয়ে ইট ভাটা, ওয়ার্কশপ, গ্যারেজ কিংবা বিস্কুট ফ্যাক্টরীতে কাজ করছে লক্ষ্মীপুরের অনেক শিশু। আর কম মজুরীতে বেশি শ্রম পাওয়ায় মিল-কারখানা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিকরা শিশু শ্রমকেই বেছে নিচ্ছেন। ঝুঁকিপূর্ণ এসব কাজের কারণে অকালে ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ বিভিন্ন জটিল রোগের আশংকা করছেন চিকিৎসকরা। যে বয়সে তাদের বিদ্যালয়ের আঙ্গিনা কিংবা শ্রেনী কক্ষ মাতিয়ে রাখার থাকার কথা, সেখানে এখন তারা এমনো ঝুঁকিপূর্ণ কাজে ব্যস্ত। সংসারে অভাব-অনটনের কারণেই বইখাতা ছেড়ে, তাদেরকে বেছে নিতে হয়েছে অন্ন-সংস্থানের হাতিয়ার। লক্ষ্মীপুর সদর, রায়পুর, রামগতি, রামগঞ্জসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে এমন শিশু শ্রম চোখে পড়ে। এর বিনিময়ে ওদের পরিবার পায় প্রতি মাসে প্রায় হাজার টাকা। আর অভাবের সুযোগ নিয়ে কম মজুরীতে কাজ করাচ্ছে প্রতিষ্ঠান মালিকরা। ঝুকিপূর্ণ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান গুলোতেও দিন দিন বাড়ছে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা। শিশুদের দিয়ে কাজ করালেও তাদের স্বাস্থ্যের ব্যাপারে সচেতন বলে জানান এই কারখানা মালিক। ঝুকিপুর্ণ এসব কাজ করার ফলে ফুসফুসের প্রদাহসহ নানা জটিল রোগে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার আশংকা জানান এই চিকিৎসক। সরকার সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পুর্নবাসনের ব্যবস্থা করলে এই শ্রম অনেকটাই কমে যাবে বলে মনে করেন স্থানীয়রা।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি