ঢাকা, ২০১৯-০৬-২৬ ৮:১৬:৩৭, বুধবার

বাজেট জনকল্যাণমুখী ও যুগোপযোগী: সেতুমন্ত্রী

বাজেট জনকল্যাণমুখী ও যুগোপযোগী: সেতুমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাজেট যুগোপযোগী, জনকল্যাণমুখী এবং আ.লীগের ইশতেহারের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। শনিবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের এ সব কথা বলেন। সেতুমন্ত্রী বলেন, বাজেট নিয়ে অপপ্রচার ও বিভ্রান্তকর তথ্য ছড়াচ্ছে একটি মহল, এটি এক বছরের বাজেট পাঁচ বছরের নয়। ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বরাবরের মতো বাজেট নিয়ে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করছে বিএনপি। বিশাল বাজেটের ব্যাপকতা বিএনপির পক্ষে বুঝা সম্ভব নয়। তাই বাজেট নিয়ে মিথ্যাচার করছে তারা। এনএম
যেকোনো মুহূর্তে ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেফতার : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ওয়ারেন্ট জারি হওয়া ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন দেশেই আছেন। তার দেশত্যাগের সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং যেকোনো মুহূর্তে তাকে গ্রেফতার করা হবে।   আজ বুধবার রাজধানীর বকশীবাজারে কারা কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত ‘কারা অধিদফতরের উদ্ভাবনী মেলা ও শোকেসিং-২০১৯’ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে ধরা যাচ্ছে না, বিষয়টি ঠিক নয়। তার দেশত্যাগের সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তিনি দেশেই আছেন। আর যেকোনো সময় তাকে গ্রেফতার করা হবে।’ দুদক কর্মকর্তার সঙ্গে ডিআইজি মিজানের ঘুষ লেনদেনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ডিআইজি মিজান ঘুষ কেন দিয়েছেন, নিশ্চয়ই তার কোনো দুর্বলতা আছে। সেই দুর্বলতা ঢাকতেই তিনি ঘুষ দিয়েছেন। না হয় ঘুষ দেবেন কেন? ঘুষ দেয়া-নেয়া দুটোই অপরাধ। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ মন্ত্রী আরও বলেন, ‘এমনিতে তার বিরুদ্ধে একটি অভিযান চলছে, এরপর নতুন করে আবার ঘুষ কেলেঙ্কারি। বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ও আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ উল্লেখ্য, গত মার্চে নুসরাত তার মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করার পর তার তদন্তে তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সোনাগাজী থানায় ডেকে নিয়ে ওই মাদ্রাসাছাত্রীর জবানবন্দি নিয়েছিলেন। তার কয়েক দিনের মাথায় নুসরাতের গায়ে অগ্নিসংযোগ করা হলে তা নিয়ে সারাদেশে আলোচনার মধ্যে ওই জবানবন্দির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিদগ্ধ নুসরাতের মৃত্যুর পর গত ১৫ এপ্রিল ওই ভিডিও ছড়ানোর জন্য ওসি মোয়াজ্জেমকে আসামি করে ঢাকায় বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন ওই অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)। এর ধারাবাহিকতায় পিবিআই যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়, সেখানে ওসি মোয়াজ্জেমের নিজের মোবাইল ফোনে জবানবন্দি রেকর্ড করার এবং তা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগের সত্যতা পায় বলে জানায়। পিবিআইয়ের দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদন আমলে নিয়ে গত ২৭ মে বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন। পরোয়ানা জারির দুদিনের মাথায় আদালতে হাজির না হয়ে অজ্ঞাত স্থান থেকে জামিনের আবেদন করেন সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম। আই//

বিএনপি অফিসে তালা ঝুলালো ছাত্রদল

পুরনো কমিটি ভেঙে দেওয়ায় বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিসে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। কমিটি ভেঙে দেয়ার ঘোষণা প্রত্যাহারের পাশাপাশি তিনদফা দাবিতে তারা বিক্ষোভ করেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বিক্ষুব্ধরা ফটকে তালা দিয়ে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। তিন দফায় বয়সের সীমারেখা না রাখা, স্বল্পমেয়াদী কমিটি গঠন এবং কেন্দ্রীয়, বিশ্ববিদ্যালয়, মহানগর ও কলেজের সমন্বয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের কথা বলা হয়েছে। ২০১৪ সালে রাজীব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি গঠনের পর সে সময়েও কয়েক দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল।   ওই আংশিক কমিটি ছিল ১৫৩ জনের।  দীর্ঘদিন পর সেই কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হলে তাতে ৭৩৬ জনকে পদ দেওয়া হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ এ কমিটি ঈদের আগের দিন (৬ জুন) ভেঙে দেয় বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতারা। নতুন কাউন্সিলে প্রার্থী হওয়ার জন্য তিনটি যোগ্যতা নির্ধারণী শর্তও ঠিক করে দেওয়া হয় সে সময়। যেখানে বলা হয়, প্রার্থীকে ছাত্রদলের প্রাথমিক সদস্য হতে হবে, তাকে অবশ্যই বাংলাদেশের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী হতে হবে এবং ২০০০ সালের পরে এসএসসি/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। নতুন কাউন্সিল অনুষ্ঠানে সংগঠনটির সাবেক নেতাদের নিয়ে সোমবার তিনটি কমিটি করে দেওয়া হয় বিএনপির পক্ষ থেকে। কিন্তু কমিটি ভেঙে দেওয়ার ঘোষণা এবং প্রার্থীতার ক্ষেত্রে বয়সের শর্ত নিয়ে আপত্তি জানিয়ে মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বিএনপি অফিসের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।  আন্দোলন চলাকালে কিছুক্ষণ পর আমানউল্লাহ আমান, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, ছাত্রদলের সাবেক নেতা শামসুজ্জামান দুদু, এবিএম মোশাররফ হোসেন, শফিউল বারী বাবু, আবদুল কাদের ভুঁইয়া কার্যালয়ের সামনে এলেও বিক্ষোভের মধ্যে তারা অফিসে প্রবেশ করতে পারেননি। আই/এসএ/

শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ (ভিডিও)

আওয়ামী লীগ সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ। ১১ মাস কারাভোগের পর ২০০৮ সালের এই দিনে সংসদ চত্বরের বিশেষ কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। সেনা সমর্থিত এক এগারোর সরকারের সময় ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই গ্রেপ্তার হন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আপোষহীন মনোভাব আর জনগনের অনঢ় দাবীতে শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয় তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার। গণতন্ত্র আর ভোটের অধিকার রক্ষায় দলনিরপেক্ষ ব্যক্তিকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান করার দাবিতে ২০০৬ সালে আবারো রাজপথে আওয়ামী লীগ। জনদাবি মানতে নারাজ বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান হলেন জোট সরকারের রাষ্ট্রপতি ইয়াজ উদ্দিন। উত্তাল আন্দোলন। পদত্যাগে বাধ্য হন ইয়াজউদ্দিন।দৃশ্যপটে এক এগারোর সরকার। সামনে ফখরুদ্দিন। নেপথ্যে মঈনউদ্দিন। গনতান্ত্রিক ধারা ব্যহত করে সেই সরকার গঠনের আনুষ্ঠানিকতা হয়েছিল বঙ্গভবনে। মাইনাস টু ফর্মুলার অংশ হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয় শেখ হাসিনাকে। জনরোষের ভয়ে কারাগারে না রেখে জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় বিশেষ কারাগার ঘোষণা করে সেখানে রাখা হয় আওয়ামী লীগ সভাপতিকে। অসুস্থ্য হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য প্যারোলে মুক্তি দেবার দাবী ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। বঙ্গবন্ধু কন্যার আপোষহীনতা, তার দৃঢ়তা আর জনদাবির মুখে  শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয় তখনকার তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ২০০৯ সালে নবম জাতীয় নির্বাচনে জনরায় আসে আওয়ামী লীগের পক্ষে। মহান মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী দলটি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গঠন করে।

রাজপথে সক্রিয় হবে ঐক্যফ্রন্ট

সরকারবিরোধী কর্মসূচি নিয়ে ফের রাজপথে নামার উদ্যোগ নিয়েছে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। সে লক্ষ্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পরিসর আরও বড় করতে চান তারা। এর আগে নিজেদের মধ্যে দূরত্ব নিরসনের উদ্যোগ নেবেন নেতারা। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তারা এ বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তুলবেন বলে জানিয়েছেন জোটের অন্যতম শীর্ষ নেতা ও জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর উত্তরায় আ স ম আবদুর রবের বাসভবনে দেড় মাস পর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে রব সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। তবে ওই বৈঠকে নির্দিষ্ট কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ফলে সিদ্ধান্ত ছাড়াই বৈঠক স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া বৈঠকে কাদের সিদ্দিকীর আল্টিমেটামের বিষয়টি এজেন্ডায় থাকলেও তার কোনো সুরাহা হয়নি। বৈঠকে গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না উপস্থিত ছিলেন না। নিজেদের মধ্যে ঐক্য অটুট রাখা, আন্দোলনের কৌশল নির্ধারণের পাশাপাশি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর আল্টিমেটামের বিষয়টির সুরাহা হওয়ার কথা ছিল বৈঠকে। বৈঠক শেষে ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র আ স ম আবদুর রব ব্রিফিংয়ে বলেন, আজকের বৈঠকে ড. কামাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন না। তার অবর্তমানে আমরা কোনো সিদ্ধান্তে নিতে পারেনি। তাই বৈঠকটি আজকের মতো স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে আবার বৈঠকে বসা হবে। আ স ম রব আরও বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত না করা পর্যন্ত ঐক্যফ্রন্টের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের প্রত্যাশা নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু এখনও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। আমরা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা অব্যাহত রেখেছি। ভবিষ্যতে বৃহৎ ঐক্য গড়ে তোলা হবে। এদিকে সংসদ সদস্য হিসেবে ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত সাতজন শপথ নেওয়ায় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার আল্টিমেটাম দেন ‘ক্ষুব্ধ’ কাদের সিদ্দিকী। ৮ জুন আল্টিমেটামের সময়সীমা শেষ হওয়ার পরও আরও দুইদিন সময় দেন কাদের সিদ্দিকী। এর পরিপ্রেক্ষিতে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বৈঠকে বসেন। বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বৈঠক হলেও নিজেদের মধ্যে কেবল আলোচনা ছাড়া কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি ঐক্যফ্রন্ট। এ বিষয়ে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমি আল্টিমেটাম দিয়েছিলাম। এরইমধ্যে ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক হয়েছে আমার। আশা করি খুব শিগগিরই আবারও বৈঠকে বসব। ড. কামালের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার পরই আমি আমার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাব। আমি যে আল্টিমেটাম দিয়েছিলাম সে বিষয়ে অটল আছি। ঐক্যফ্রন্টের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য ইকবাল সিদ্দিকী, বিকল্পধারার একাংশের সভাপতি নূরুল আমিন ব্যাপারী, মহাসচিব শাহ আহমদ বাদল, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইদ, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া। এছাড়া গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না না এলেও তিনি দুইজন প্রতিনিধি পাঠান। এরা হলেন নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় নেতা ডা. মো. জাহিদ ও মমিনুল হক। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে নিজেদের এমপিদের শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এই সিদ্ধান্ত অমান্য করে প্রথমে গণফোরামের দুজন এমপি শপথ নেন। তখন এ দুইজনের কড়া সমালোচনা করেন বিএনপি নেতারা। পরে শপথ নেওয়ার সময়সীমা শেষ হওয়ার আগ মুহূর্তে বিএনপি থেকে নির্বাচিত পাঁচজন সংসদ সদস্য শপথ নেন। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে গত ৯ মে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী জানিয়ে দেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে সাতজনের শপথ গ্রহণের সঠিক ব্যাখ্যা দিতে না পারলে ৮ জুন ফ্রন্ট ছেড়ে দেবে তার দল। সেদিনের সংবাদ সম্মেলনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, আগামী একমাসের মধ্যে যে যে অসঙ্গতি আছে, তা সঠিকভাবে নিরসন না হলে ৮ জুন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেবে। আরকে//

ওসি মোয়াজ্জেম শিগগিরই গ্রেফতার হবে: কাদের

নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দায়িত্ব অবহেলার দায়ে ফেনীর সোনাগাজী থানার তৎকালীন  ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে শিগগিরই গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে তিনি একথা বলেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, (ওসি মোয়াজ্জেম) ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে, হয়তো শিগগিরই শুনতে পারবেন যে ধরা পড়েছে।’ ‘সরকারের কোনো গাফিলতি, কোনো দুর্বলতা নেই। সরকার প্রধান অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে এবং সে কারণে কারও এখানে শৈথিল্য দেখানোর অবকাশ নেই। এবারের ঈদযাত্র স্বস্তির ছিলো জানিয়ে তিনি বলেন, সড়কে পরিবহনে শৃঙ্খলা সংকট আছে, চালক এবং পথচারী উভয়ের মানসিকতার পরিবর্তন প্রয়োজন। তিনি আরো বলেন, পরিবহন খাতে সরকার জিম্মি না। মহাসড়কে ইজিবাইক, নসিমন বন্ধে সরকার বিকল্প ভাবছে বলেও মন্তব্য করেন কাদের। তবে অরাজকতা বন্ধে জনমত গড়ে তোলা জরুরি। বিএনপির শপথ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, শপথ নিয়ে সংসদকে অবৈধ বলা বিএনপির স্ববিরোধীতা। তারা মুখে একথা বলেন,কাজে অন্যটি করেন।   টিআর/  

ওসি মোয়াজ্জেমকে শাস্তি পেতেই হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘নুসরাত হত্যাকাণ্ডে সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন যে অপরাধ করেছেন, তাকে তার শাস্তি পেতেই হবে’- বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজ রোববার (৯ জুন) সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘অপরাধের সঙ্গে জড়িত যেকোন ব্যক্তিকে শাস্তি পেতে হবে। সে ওসি হোক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা হোক অথবা জনপ্রতিনিধি। কেউই আইনের উর্ধ্বে নন।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘নুসরাত জাহানকে হত্যার ঘটনায় মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। চার্জশিটে তার নামও এসেছে। পালিয়ে গেলে খুঁজে পেতে হয়তো একটু সময় লাগবে। তবে তাকে বিচারের মুখোমুখি হতেই হবে।’ এদিকে গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে এক সপ্তাহ ধরে লুকোচুরির পর এখন পুলিশ বলছে, ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন পালিয়ে গেছেন। ফেনী ও রংপুর দুই জায়গার পুলিশই গ্রেফতারি পরোয়ানা হাতে পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছে। এবিষয়ে পুলিশের রংপুর রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, ‘গ্রেফতারি পরোয়ানা রংপুরে এসেছে। কিন্তু মোয়াজ্জেম হোসেন অনুমতি ছাড়াই কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন। পরোয়ানাটি সোনাগাজী থানার ওসির কাছে পাঠানো হয়েছে। রংপুরে পাঠানোর ক্ষেত্রে বিধি অনুসরণ করা হয়নি। বিধি মোতাবেক কাজ করার জন্য তিনি ফেনীর পুলিশকে জানাবেন।’ উল্লেখ্য, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল গত ২৭ মে পরোয়ানা জারি করেন। ৩১ মে পরোয়ানার চিঠি ফেনীর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে পৌঁছায়। কিন্তু পুলিশ সুপার কাজী মনির-উজ-জামান বারবার বিষয়টি অস্বীকার করতে থাকেন। একপর্যায়ে ৩ জুন রাতে পরোয়ানা হাতে পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন তিনি। এর দুদিন পর বিশেষ বার্তাবাহকের মাধ্যমে পরোয়ানা রংপুর রেঞ্জে পাঠানো হয়। এখন আবার রংপুর রেঞ্জ বলছে, কাজটি বিধি মোতাবেক হয়নি। গত ৬ এপ্রিল মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফীকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এর দিন দশেক আগে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান নুসরাত। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সেসময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। এতে করে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে। নুসরাত মারা যাওয়ার পর ওসির এ কর্মকান্ড সবার নজরে আসে। পরে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা আদালত গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে তদন্তের নির্দেশ দেন। পিবিআই গত ২৭ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে ওই দিনই ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। পরোয়ানা জারির দুইদিন পর আদালতে হাজির না হয়ে সেই ওসি অন্তরালে থেকে আইনজীবির মাধ্যমে জামিন আবেদন করেন। আগামি ১১ জুন শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। আই//  

শপথ নিলেন ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা

এবার একাদশ সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। তাকে শপথবাক্য পাঠ করান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। আজ রোববার দুপুর ১২টায় রুমিনকে জাতীয় সংসদ ভবনের নিজ কার্যালয়ে শপথবাক্য পাঠ করান স্পিকার। ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক। একাদশ সংসদে আনুপাতিক হারে বিএনপি একটি মাত্র সংরক্ষিত আসন পেয়েছে। সেই আসনে বিএনপি রুমিনকে মনোনয়ন দিয়েছে। উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করে সাতটি আসনে। শুরুতে সংসদে অংশ না নেওয়ার কথা বললেও দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া বাকি সবাই শপথ নিয়ে সংসদে গেছেন। এ ক্ষেত্রে সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচন আইন অনুযায়ী, দলটিকে একটি আসন বণ্টন করে দিয়ে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ইসি। এসএ/  

ঐক্যফ্রন্টকে কাদের সিদ্দিকীর সেই আলটিমেটামের সিদ্ধান্ত দুইদিন পর

‘অসঙ্গতি’ দূর করার জন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতৃবৃন্দকে এক মাসের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী। সেই সময় শেষ হয়েছে গতকাল শনিবার। গত ৯ মে তিনি বলেছিলেন, ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে অনেক অসঙ্গতি রয়েছে। এসব অসঙ্গতি ও কিছু প্রশ্নের উত্তর আগামী এক মাসের মধ্যে সুরাহা না হলে ৮ জুন ঐক্যফ্রন্ট থেকে বেরিয়ে যাবে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ। সময় শেষ হলেও এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি কাদের সিদ্দিকী। গতকাল শনিবার এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের সিদ্দিকী বলেন, জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৭ জন সংসদ সদস্যের শপথ নেয়ার সঠিক ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছিলাম। এরই মধ্যে ড. কামাল হোসেন আমাদের সঙ্গে মিটিং করে আগামী ১০ জুন আ স ম আবদুর রবের বাসায় ফ্রন্টের সবাইকে ডেকেছেন । তিনি যোগ করেন, ওই বৈঠক থেকে কী ব্যাখ্যা আসে সেটা আমরা দেখব। তারপর আমাদের সিদ্ধান্ত নিব ঐক্যফ্রন্ট থেকে বেরিয়ে যাব কি যাব না। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কাদের সিদ্দিকীর প্রশ্নের জবাব দিতে আগামী ১০ জুন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দলগুলোকে নিয়ে বৈঠকে বসবেন ড. কামাল হোসেন। সেখানে ড. কামাল হোসেন ও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গণফোরামের দুই জন এবং বিএনপির পাঁচ জন প্রার্থীর শপথ নেয়ার বিষয়ে ব্যাখ্যা ও যৌক্তিকতা তুলে ধরবেন। সুত্র বলছে, ওই বৈঠকের পর আগামী ১১ অথবা ১২ জুন আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দলীয় সিদ্ধান্ত জানাবেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি। উল্লেখ্য, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংসদ সদস্যের শপথ নেয়াসহ নানা অসঙ্গতির বিষয়ে ব্যাখ্যা চেয়ে ফ্রন্টের জ্যেষ্ঠ নেতাদের অবহিত করেছিলেন কাদের সিদ্দিকী। সে সময় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার আলটিমেটাম দেয়ার আগে তিনি জোটের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন, আ স ম আবদুর রব, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মাহমুদুর রহমান মান্না, মোস্তফা মোহসীন মন্টুর সঙ্গে এসব অসঙ্গতির বিষয়ে কথা বলেছিলেন। গত ৯ মে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের কিছু সিদ্ধান্তে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে উল্লেখ করে কাদের সিদ্দিকী বলেছিলেন, ৩০ ডিসেম্বর বাংলাদেশে নির্বাচনের নামে জঘন্য নাটক হয়েছে, যা শুধু বাংলাদেশে নয়, পৃথিবীর কোনো দেশেই এমন নাটকের নজির নেই। কিন্তু ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করার পরও গণফোরামের সুলতান মনসুর শপথ নিলে তাকে বহিষ্কার করা হয়। মোকাব্বির খান শপথ নিলে ড. কামাল হোসেন তাকে ‘গেট আউট’ বলেন। পরে দেখা যায় গণফোরামের বিশেষ কাউন্সিলে মোকাব্বির খান উপস্থিত। এসব নিয়ে মানুষের মধ্য বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। মানুষ এসব বিষয়ে জানতে চাইলে আমরা জবাব দিতে পারি না। ওই দিনই রাজধানীর মতিঝিলে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অসঙ্গতি নিরসন না হলে ৮ জুন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেবে বলে ঘোষণা দেন কাদের সিদ্দিকী।

রুমিন ফারহানার শপথ আজ

বিএনপির মনোনয়নে সংরক্ষিত নারী আসন থেকে নির্বাচিত এমপি ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা শপথ নিচ্ছেন আজ রোববার। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জাতীয় সংসদ ভবনে নিজ কার্যালয়ে দুপুর ১২টায় তাকে শপথবাক্য পাঠ করাবেন। রুমিন ফারহানার শপথ নেওয়ার পর জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত ৫০টি আসন পূর্ণ হবে। বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তাকে চিঠি দিয়ে রোববার দুপুর ১২টায় শপথ নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ছয়টি আসনে জয় পায় বিএনপি। এর মধ্যে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া বাকি পাঁচজন সংসদে শপথ নিয়েছেন। এ ক্ষেত্রে সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচন আইন অনুযায়ী, বিএনপিকে একটি আসন দিয়ে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। বিএনপি একক প্রার্থী হিসেবে ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানাকে মনোনয়ন দেয়। এসএ/

আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মাসব্যাপী কর্মসূচি

আগামী ২৩ জুন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ উপলক্ষে মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি। ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আজ শনিবার (৮ জুন) দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দলের পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সারা দেশের জেলা-উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হবে। ২৩ জুন থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, সভা-সমাবেশ, সেমিনার ও র‍্যালি, আলোচনা সভা, প্রচার ও পুস্তিকা প্রকাশ, রচনা প্রতিযোগিতা, চিত্রাঙ্কন। এসব কর্মসূচির মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকায় তিন দিনব্যাপী কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। ঢাকায় কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন ২৩ জুন সকালে বঙ্গবন্ধু ভবন ও কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন। এরপর আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাবেন দলের কেন্দ্রীয় নেতারা।’ ২৪ জুন বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনে কেন্দ্রে আলোচনাসভা ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে ও ২৫ জুন বঙ্গবন্ধু এভিনিউ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে বলেও জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতি সদস্য মাতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, একে এম এনামুল হক শামীম, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ। এসএ/  

অনেক আগেই খালেদা জিয়ার জেলে যাওয়া প্রয়োজন ছিল: তথ্যমন্ত্রী

পাকিস্তানের একজন জেনারেলের মৃত্যুর পর বাংলাদেশের একজন প্রধানমন্ত্রী হয়ে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া সমস্ত প্রটোকল ভঙ্গ করে শোকবাণী পাঠিয়েছিলেন। তার এসব কর্মদোষে অনেক আগেই জেলখানায় যাওয়া উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া কোন রাজবন্দি নয়। রাজনৈতিক কারণেও জেলখানায় যাননি। দুর্নীতির মামলায় শাস্তিপ্রাপ্ত হয়ে জেলখানায় আছেন। আওয়ামী লীগের দায়ের করা কোন মামলায় নয়, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দায়ের করা মামলায় তিনি জেলে গেছেন। শুক্রবার বিকেলে ঐতিহাসিক ছয়দফা দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবস্থ বঙ্গবন্ধু হলে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়া ৫ম বারের মতো জেল খানায় ঈদ পালন করছেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফিনল্যান্ডে আছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদের এমন বক্তব্যের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেখানে ঈদ উদযাপন করতে যাননি রাষ্ট্রীয় সফরে গেছেন। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যার নেতৃত্বে বাংলাদেশের মানুষ স্বাধীনতা পেয়েছিল সেই বঙ্গবন্ধুকে ১৫ আগস্ট সপরিবারে হত্যা করা হয়েছিল, সেদিন ১০ বছরের শিশু রাসেল, ৪ বছরের শিশু সুকান্ত বাবু, অন্তঃসত্বা বেগম আরজু মণিকে হত্যা করা হয়েছিল। সেই ন্যাক্কারজনক হত্যাকান্ডকে উপহাস করার জন্য হত্যাকারীদের উৎসাহ দিতে যিনি নিজের জন্মের তারিখটা পরিবর্তন করে ভুয়া জন্মদিন পালন করেন তিনিই হচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপিতে কয়েক ধরণের নেতা আছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, কিছু আছে হঠাৎ বিএনপি, আর কিছু আছে বাইচান্স বিএনপি, কিছু আছে বাই এক্সিডেন্ট বিএনপি। এই দলটি গঠিত হয়েছে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে। রাজনৈতিক সুযোগ সন্ধানী, ক্ষমতালোভীদের সমন্বয়ে এই রাজনৈতিক দলটি গঠিত হয়েছে। এই দলের বেশিরভাগ নেতা হচ্ছে রাজনীতির মাঠের কাক। তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানসহ অন্যান্যদের ষড়যন্ত্রের প্রেক্ষিতে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার পর বিএনপিসহ অনেক রাজনৈতিক দলের জন্ম হয়েছে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে। রাস্তায় ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে দেয়া হলে অনেক কাক ঝড়ো হয়। জিয়াউর রহমানও ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে রাজনৈতিক কাকদের সমন্বয়ে বিএনপি গঠন করেছিলেন। আজকে বিএনপির যারা বড় বড় নেতা তারা সবাই রাজনীতির কাক। কারণ, মির্জা ফখরুল, মওদুদ আহমেদ, খন্দকার মোশাররফসহ বিএনপির বড় নেতারা সকলেই আগে অন্যদল করতেন। তথ্যমন্ত্রী বিএনপির প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, ১৯৬৬ সালের ছয়দফা ঘোষণা হচ্ছে বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলনের সুচনা। তারপর বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের স্বাধীনতার ঘোষণা। এগুলোর সাথে বিএনপির কোন দ্বন্দ্ব থাকার কথা নয়। কিন্তু তারা এই দিবসগুলো পালন করেন না কেন? তিনি বলেন, বিএনপি দাবি করে তাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা মুক্তিযোদ্ধা। কেউ হঠাৎ হুইসেল বাজালেন, বাংলাদেশের সমস্ত মানুষ যুদ্ধে চলে গেলো, ত্রিশ লক্ষ মানুষ মারা গেল, সেই ভাবেতো মুক্তিযুদ্ধ হয়নি। মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে একটি ধারাবাহিক আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে। তারা এই দিবসগুলো পালন না করার অর্থই হচ্ছে তারা পাকিস্তানি ভাবধারায় বিশ্বাস করে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্বে কতটুকু বিশ্বাসী তা প্রশ্ন জাগে যখন ছয় দফা দিবস ও ৭ মার্চ পালন করে না। মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন আহমেদ, উত্তর জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও রেলপথ মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল প্রমুখ। আই/আরকে

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি