ঢাকা, ২০১৯-০৬-২০ ১৯:৪১:৫৬, বৃহস্পতিবার

হাবিপ্রবিতে আরডিএ’র উদ্যোগে ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি শীর্ষক কর্মশালা

হাবিপ্রবিতে আরডিএ’র উদ্যোগে ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি শীর্ষক কর্মশালা

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পল্লী উন্নয়ন একাডেমী উদ্যোগে ‘পানি সাশ্রয়ী আধুনিক প্রযুক্তির সম্প্রসারণ ও বিস্তার এবং ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি শীর্ষক প্রায়োগিক গবেষণা প্রকল্প’ এর আওতায় আঞ্চলিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ইবিতে গাছ থেকে পড়ে আহত ৩ শিক্ষার্থী

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে জাম পাড়তে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে তিন শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। রবিবার বিকাল ৬টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে দুজনের অবস্থা খুবই গুরুতর বলে জানিয়েছেন ডাক্তার। প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক এলাকার উপাচার্যের বাসভবনের পাশে জাম পাড়তে যায় ব্যাবস্থাপনা বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী রাকিব, আইন বিভাগের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী কামাল, দীপু কুমার পাল ও আব্দুল্লাহ। কামাল গাছের উপরে ওঠে। এক পর্যায়ে সে ডাল ভেঙ্গে পড়তে থাকলে তাকে ধরতে যায় রাকিব ও দীপু। এতে রাকিব পায়ে হালকা আঘাত পেলেও দীপুর বাম পায়ের দুটি হাড় ভেঙ্গে যায়। কামাল বাম পা ও ঘাড়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছে। গুরুতর আহত কামাল ও দীপুকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলের কর্তব্যরত ডাক্তার এস এম শাহেদ হাসান বলেন, গুরুতর আহত দুজনকে কুষ্টিয়ায় পাঠনো হয়েছে। এক জনের পা খুব বাজে ভাবে ভেঙ্গে গেছে। পায়ে রড লাগানো লাগতে পারে। অন্যজন পা ও ঘাড়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তার ঘাড়ের একটি হাড় খুলে গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন বলেন, ঘটনাটি খুবই দু:খজনক। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এ ধরনের কাজ করা ঠিক না। আমি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। এসি  

আড়াই মাস পর প্রাণ ফিরেছে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন কর্তৃক উপাচার্য নিয়োগের প্রক্রিয়া সন্তোষ্টজনক হওয়ায় টানা ৬৮ দিনের আন্দোলন শেষে নিয়মিত ক্লাস ও পরীক্ষায় ফিরেছেন সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শনিবার সকাল থেকেই শিক্ষার্থীদের প্রদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির ক্যাম্পাস। জানা যায়, সকল বিভাগেই নিয়মিত ক্লাস ও পরীক্ষা শুরু হয়েছে। দীর্ঘদিন পরে ক্লাসে ফিরতে পেরে প্রণোচ্ছল শিক্ষার্থীরাও। অস্থিতিশীলতা শেষ হয়ে গতি ফিরেছে একাডেমিক ও প্রশাসনিক পর্যায়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ছাত্র পরিষদের আহ্বায়ক রনি আহম্মেদ বলেন, অনেক দিন পর আজ ক্যাম্পাসে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। সবাই নিয়মিত ক্লাসে ফিরেছেন, পুরো ক্যাম্পাসে প্রাণ ফিরেছে। আমি নিজেও অনেক আনন্দ বোধ করছি। এমএস/আরকে

সাবেকুন নাহার সনির ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী শিক্ষার্থী সাবেকুন নাহার সনির ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০০২ সালের এই দিনে টেন্ডারবাজিকে কেন্দ্র করে ছাত্রদলের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান বুয়েটের কেমিকৌশল বিভাগের ছাত্রী সনি। এই ঘটনার পর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলেন বুয়েটসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। সারাদেশের মানুষ এই আন্দোলনে সমর্থন জানায়। আন্দোলনের মুখে শেষ পর্যন্ত সনি হত্যা মামলার দ্রুত বিচার শেষে সন্ত্রাসী মুকি ও টগরসহ তিনজনের ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়। এই মামলার রায় ছিল দেশের যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সংগঠিত হত্যাকাণ্ডের প্রথম বিচার। সনি হত্যার দিনটিকে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন ‘সন্ত্রাসবিরোধী ছাত্র প্রতিরোধ দিবস’ হিসেবে পালন করবে। এ উপলক্ষে আজ সকাল সাড়ে ১০টায় বুয়েটের আহসান উল্লাহ হলের সামনে সনির স্মৃতি বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসএ/      

ফেনী স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব কুবির ইফতার

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের আঞ্চলিক সংগঠন ‘ফেনী স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব কুমিল্লা ইউনিভার্সিটির’ উদ্যোগে ইফতার অনুষ্ঠিত হয়েছে।শুক্রবার (৩১ মে) ফেনী শহরে নাহার চৌধুরী চাইনিজ রেস্টুরেন্ট এ এই ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শাহ মুহাম্মদ ফাহিম উদ্দিনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  ছিলেন, ফেনী জেলার আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক কফিল উদ্দিন। অ্যাসোসিয়েশন বতর্মান সভাপতি বোরহান উদ্দিন এবং অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে কফিল উদ্দিন বলেন,অ্যাসোসিয়েশন শুধু আসলে গেলে হবে না, সব সময় একটিভ থাকতে হবে। অ্যাসোসিয়েশন জন্য সময় দিতে হবে এবং সদস্যদের কল্যাণে কাজ করতে হবে। কাজের দক্ষতার অর্জনের মাধ্যমে নিজেকে যোগ্য নেতৃত্বে নিয়ে আসতে হবে। কেআই/    

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার কাঠামো পরিবর্তন!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কাঠামোগত ও প্রশ্নের নম্বরগত দুটি পরিবর্তন এনেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ বছর থেকে ভর্তি পরীক্ষায় লিখিত নম্বর থাকবে ৪০ শতাংশ এবং মাল্টিপল চয়েস প্রশ্নোত্তর (এমসিকিউ বা বহু নির্বাচনী) থাকবে ৬০ শতাংশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী। তবে কোন পদ্ধতিতে কত নম্বর থাকবে তা নিশ্চিত না করলেও এই পরিবর্তনকে মৌলিক হিসেবে উল্লেখ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার এনামউজ্জামান। প্রতি বছর সাধারণত অক্টোবর থেকে নভেম্বরের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য মোট ২০০ নম্বরের পরীক্ষা নেওয়া হতো। এর মধ্যে ১২০ নম্বর থাকত এমসিকিউ পরীক্ষায় এবং ৮০ নম্বর থাকতো এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার গ্রেড পয়েন্টের (জিপিএ) ভিত্তিতে। এ বছর থেকে এমসিকিউ প্রশ্নের সঙ্গে লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে। প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, ‘এ বছর ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে কাঠামোগত ও নম্বরগত পরিবর্তন দুটোই আসছে। কাঠামোগত পরিবর্তন হলো এমসিকিউ ও লিখিত দুটোই থাকবে। নম্বরগত পরিবর্তনে ৬০ শতাংশ থাকবে এমসিকিউ এবং ৪০ শতাংশ থাকবে লিখিত। আমরা যতদূর অগ্রসর হয়েছি ততটুকু প্রশ্নের উত্তর দেওয়া যাবে ৷ আর কিছু প্রশ্নের উত্তরের জন্য এখনও অপেক্ষা করতে হবে।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার এনামুজ্জামান বলেন, ‘আমাদের একাডেমিক কাউন্সিল একটি নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, ভর্তি পরীক্ষাতে এমসিকিউ প্রশ্নের পাশাপাশি লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে। তবে, লিখিত কত নম্বর থাকবে, এমসিকিউ কত নম্বর থাকবে এটা আমাদের জেনারেল অ্যাডমিশন কমিটি নির্ধারণ করবেন। এক্ষেত্রে লিখিত ৪০ নম্বর হতে পারে আবার ৬০ নম্বরও হতে পারে। মৌলিক এতটুকু পরিবর্তন আনা হয়েছে। তিনি বলেন, এছাড়া পরীক্ষা ব্যবস্থাপনার বিষয়ে কিছু কিছু পরিবর্তন আমরা আনতে চাই। কিছু নিয়ম-কানুন সংস্কার করতে চাই। গত বার যে ভুলগুলো হয়েছে সেগুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে কীভাবে পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে ভালোভাবে নিতে পারি সেই পরিকল্পনা করছি৷

সাত বছরের বেতন-ভাতা প্রদানের উদ্যোগ

আদালতের রায়কে শ্রদ্ধা জানিয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের, রংপুর কর্তৃপক্ষ গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে মাহামুদুল হককে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার পর তাঁর জ্যেষ্ঠতা, পদোন্নয়ন, সাত বছরের বেতন-ভাতা এবং মামলার ক্ষতিপূরণ প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সূত্র জানায় হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ‘র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৬১তম সিন্ডিকেটে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্যরা হলেন- বেরোবি রেজিস্ট্রার আবু হেনা মোস্তফা কামাল, রংপুর ডিভিশনাল কমিশনার মোহাম্মদ জয়নাল বারি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. শুচিতা শারমিন। পূর্ণাঙ্গ রায় বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে মাহামুদুল গত ১৪ মে লিখিত আবেদন জানালে সিন্ডিকেট এ সিদ্ধান্ত নেয়। আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক ৯ মার্চ ২০১৯ তারিখে ওই বিভাগে প্রভাষক পদে (স্থায়ী) মাহামুদুলকে নিয়োগ প্রদান করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট। উল্লেখ্য যে, ১৫ অক্টোবর ২০১৭ হাইকোর্ট এক রায়ে তাঁকে নিয়োগ দিতে বলেন। এরপার রায়কে চ্যালেঞ্জ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভ-টু-অ্যাপিল ও পরে রিভিউ করলে অ্যাপিলেট ডিভিশন তা খারিজ করে হাইকোর্টের রায় বহাল রাখেন। চিঠিতে মাহামুদুল হক বলেন, দীর্ঘ সাত বছর নিয়োগ না পেয়ে এবং আইনি লড়াই চালাতে গিয়ে তিনি জ্যেষ্ঠতা, পদোন্নতি, বেতন-ভাতা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন এবং আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তিনি উল্লেখ করেন হাইর্কোট তাঁকে বাছাই বোর্ড-এর সুপারিশ অনুযায়ী নিয়োগ দিতে বলেছেন। হাইর্কোট-এর রায় বাস্তবায়নে ২০১২ সালের ২২তম সিন্ডিকেটের তারিখ থেকে নিয়োগ কার্যকর করে জ্যেষ্ঠতার দিক ওই বিভাগে দ্বিতীয় হিসেবে এবং সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেওয়ার দাবি করেন তিনি। ওই সময় থেকে বেতন-ভাতা, জ্যেষ্ঠতা অনুযায়ী বিভাগের দ্বিতীয় সভাপতি হিসেবে নিয়োগ এবং ক্ষতিপূরণও চান মাহামুদুল। ক্ষতিপূরণ সর্ম্পকে মাহামুদুল তাঁর আবেদনে বলেন, “একটি মামলা চালাতে যে আর্থিক ও মানসিক ক্ষতি হয় তা পরিমাপ করা খুবই কঠিন। একজন ভিকটিম কয়েক’শবার ভিকটিম হয় মামলা চালাতে গিয়ে। রায় হয়তো ভিকটিমের পক্ষে যায় কিন্তু মামলার ক্ষত সারাজীবন তাঁকে বয়ে বেড়াতে হয়। ওই সময়ের বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনিয়মের কারণে আমার শিক্ষকতার ক্যারিয়ারে যে ক্ষত তৈরি হয়েছে তা আমাকে সারাজীবন বয়ে বেড়াতে হবে। বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে আমাকে নিয়োগ প্রদান করেছে। এখন আমার আর্থিক ক্ষতিপূরণ প্রদান করে বাংলাদেশে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে বলে আামার দৃঢ় বিশ্বাস।” বাছাই বোর্ডের উল্লেখ করে মাহামুদুল তাঁর চিঠিতে বলেন, ২০১১ সালের ২৯ অক্টোবর বেরোবি গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে দু’জন প্রভাষক নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। ২০১২ সালে ১৩ জানুয়ারি বাছাই বোর্ড যথাক্রমে মোহা. গোলাম কাদির মন্ডল ও মোহা. নজরুল ইসলামকে মেধা তালিকায় এবং মাহামুদুল হক ও নিয়ামুন নাহারকে অপেক্ষমান তালিকায় রেখে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে। বাছাই বোর্ডের সুপারিশপত্রকে প্রমাণ হিসেবে দেখিয়ে তিনি ওই চিঠিতে বলেন কম্পিউটারে প্রিন্টকৃত ১ ও ২ নম্বর সিরিয়ালের পরে ৩ নম্বর সিরিয়াল কলমে লিখে একজনকে তাসনিম হুমাইদাকে মেধা তালিকায় তৃতীয় এবং তাবিউর রহমানকে অপেক্ষামান তালিকায় তৃতীয় হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কম্পিউটারে কম্পোজকৃত “মেধাক্রমানুুসারে” শব্দটি কেটে কলম দিয়ে লিখে “যেকোন” শব্দটি বসানো হয়েছে। ২২তম সিন্ডিকেটে “যেকোন” শব্দটি বাতিল করা হয়েছে। যেহেতু মেধা তালিকায় প্রথমজন যোগদান করেননি সেহেতু বাছাই বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী তিনি অপেক্ষামান তালিকার প্রথম স্থান থেকে মেধা তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে চলে আসেন বলে জানান তিনি। এ অনুযায়ী জ্যেষ্ঠতার দিক থেকে তিনি ওই বিভাগে দ্বিতীয়, দাবি মাহামুদুলের। এসএইচ/

‘ফল বিপর্যয়ের’ প্রতিবাদে তিতুমীরের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি তিতুমীর কলেজের ইংরেজি বিভাগের ‘ফল বিপর্যয়ের’ প্রতিবাদে মহাখালীতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা। আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় কলেজের ভিতর থেকে এক মিছিল নিয়ে মহাখালী ফ্লাইওভারের নিচে অবস্থান নেন। প্রায় ১ ঘন্টা অবরোধে মহাখালীর আশেপাশের এলকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতো ভোগান্তিতে পড়তে হয় অফিসগামী মানুষের। পরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শিক্ষার্থীরা ফ্লাইওভারের নিচ থেকে মিছিল করে কলেজের সামনে নিয়ে অবস্থান নেয়। বিক্ষোভে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা বলেন, তিতুমীর কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত হওয়ার পর থেকে ফল বিপর্যয় শুরু হয়েছে। ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের যে ২৯০ জন তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা দিয়েছিলেন, তাদের মধ্যে মাত্র ২৫ জন কৃতকার্য হয়েছেন। একাধিক বিষয়ে অকৃতকার্য হয়ে চতুর্থ বর্ষে উত্তীর্ণ হয়েছেন দেড়শ শিক্ষার্থী। সাম্প্রতি সময়ে একই দাবিতে নীলক্ষেত অবরোধে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা ৭ কলেজে সমস্যার কথা স্বীকার করে দাবি পূরণের আশ্বাস ঢাবি কর্তৃপক্ষের। টিআর/

কৃষি পণ্যের ন্যায্যমূল্যের দাবিতে বশেমুরবিপ্রবিতে মানববন্ধন

ধানসহ কৃষি পণ্যের ন্যায্যমূল্য ও কৃষিতে সর্বোচ্চ ভতুর্কি নিশ্চিতের দাবিতে গোপালগঞ্জ -পিরোজপুর মহাসড়কে মানববন্ধন করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা।  গতকাল বৃহস্পতিবার ঘণ্টাব্যাপী বশেমুরবিপ্রবি’র সামনে মহাসড়কে এই মানববন্ধন করেন তারা। ‘কৃষক বাঁচলে বাঁচবে দেশ, গড়ে উঠবে সোনার বাংলাদেশ’-এই শ্লোগানে মানববন্ধনে বশেমুরবিপ্রবি’র বিভিন্ন সংগঠনসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।  এ সময় বক্তারা বলেন, ‘ধানের ন্যায্যমূল্য কৃষকরা পাচ্ছে না। আমরা কৃষক পরিবারের ছেলে, আমাদের বাবারা ধান চাষ করেই আমাদের পড়ালেখা করান। বাজারে ধানের দাম কম থাকায়, তারা ধান বিক্রি করতে পারছেন না। বাবারা ভালো না থাকলে, আমরা কীভাবে ভালো থাকি? কৃষককে তার উৎপাদিত ফসলের সঠিক মূল্য ও ভর্তুকি প্রদানে সরকারকে ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান বক্তারা। একে//

শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে ১ম সিন্ডিকেট সভা

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেফমুপ্রবি) প্রথম সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জামালপুরে প্রতিষ্ঠিত এ বিশ্ববিদ্যালয়টির রাজধানীস্থ লিয়াঁজো কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সামসুদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সভার শুরুতে ১৫ আগস্টে শাহাদাত বরণকারী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কমানা করা হয়। সভায় সিন্ডিকেট সদস্য মির্জা আজম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. সামাদ, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. রোস্তম আলী, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. এম শাহ নওয়াজ আলি, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (নিরীক্ষা ও আইন) মাহবুব-উল-ইসলাম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান খান, বিশ্ববিদ্যালয়টির সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. এএইচএম মাহবুবুর রহমান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব সৈয়দ আলী রেজা, অর্থ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সিরাজুন নূর চৌধুরী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ আকবর হুসাইন ও বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার খন্দকার হামিদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। সিন্ডিকেট সদস্য ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব বিভাগের পরিচালক ড. আব্দুর রেজ্জাক, উপ-রেজিস্ট্রার মহিউদ্দিন মোল্লা। আরকে//

বেরোবির সিন্ডিকেটের ৬১তম সভা অনুষ্ঠিত

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, (বেরোবি) রংপুর-এর সিন্ডিকেটের ৬১তম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার (১৫ মে ২০১৯) বিকাল ৪টায় সভাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকাস্থ লিয়াজোঁ অফিসে অনুষ্ঠিত হয়। ভাইস-চ্যান্সেলর ও ট্রেজারার (দায়িত্ব প্রাপ্ত) এবং সিন্ডিকেট সভাপতি প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও-এর সভাপতিত্বে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিন্ডিকেট সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. মোঃ মাহামুদ-উল-হক, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মোঃ আমিনুল ইসলাম খান, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস্ (বিইউপি)-এর উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. এম আবুল কাসেম মজুমদার, দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. পরিমল চন্দ্র বর্মণ, পরিকল্পনা, উন্নয়ন ও ওয়ার্কস এর পরিচালক প্রফেসর ড. আর এম হাফিজুর রহমান এবং বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড. সরিফা সালোয়া ডিনা। এছাড়াও সিন্ডিকেটের সদস্য-সচিব এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার কর্নেল আবু হেনা মুস্তাফা কামাল এএফডাবলিউসি, পিএসসি (অব:) সভায় উপস্থিত ছিলেন। দেড় ঘণ্টাব্যাপী চলা এ সভায় বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রয়োজনীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এসএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি